মেন্যু
he amar meye

হে আমার মেয়ে (হুদহুদ প্রকাশন)

প্রকাশনী : হুদহুদ প্রকাশন
লেখক আলী আল তানতাবী মিশরের একজন প্রখ্যাত আলিম। তিনি আল-আজহার এর গ্র্যান্ড ইমাম ছিলেন। তিনি হৃদয় থেকে মেয়েদের আন্তরিক ভাবে উপদেশ দিয়েছেন তাদের সম্ভ্রম রক্ষা করার জন্য, বিয়ে ছাড়া ছেলেদের... আরো পড়ুন
পরিমাণ

38  70 (46% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

10 রিভিউ এবং রেটিং - হে আমার মেয়ে (হুদহুদ প্রকাশন)

5.0
Based on 10 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    Md Amdadullah Tafhim:

    #ওয়াফিলাইফ_পাঠকের_ভাল_লাগা_সেপ্টেম্বর_২০২০

    বইঃ হে আমার মেয়ে
    লেখকঃ ড. আলী তানতাবী

    ♣প্রাক-কথনঃ
    উঠতি বয়সী তরুন-তরুনীদের মধ্যে এক প্রকার আবেগ কাজ করে। যে আবেগের উচ্ছ্বাসে দুনিয়াবী জীবনের বাস্তবচিত্র সম্পর্কে সজাগ দৃষ্টি রাখে না। ফলশ্রুতিতে নিজের অজান্তেই আবেগ-উচ্ছ্বাস, অগাধ ভক্তি ও বিশ্বাস অনেক মেয়েদের জীবনে নিয়ে আসে বিভীষিকা, যে বিভীষিকার করালগ্রাসে একজন মেয়ে নিজের জীবন বিলিয়ে দেয় আত্নহত্যার মত জঘন্য কাজের মধ্য দিয়ে। সম্ভ্রম নারীর জীবনের চেয়ে মূল্যবান জিনিস। কিন্তু এই সম্ভ্রম অনেক ক্ষেত্রেই রক্ষা হচ্ছে না বর্তমান সভ্যতার নব্য জাহিলিয়্যাতের ধারালো আঘাতে। একজন সন্তানতুল্য মেয়ের প্রতি তাই একজন পিতার উপদেশাবলী নিয়ে “হে আমার মেয়ে।”

    ♣ কি নিয়ে এই বইঃ
    জীবন সায়াহ্নে দাঁড়িয়ে আপন মেয়ের প্রতি একজন বয়োবৃদ্ধ পিতার হৃদয় নিংড়ানো কিছু কথামালা নিয়ে বইটি রচিত। বইয়ে লেখক চিরাচরিত কিছু বাস্তব রুপ তুলে ধরেছেন। বইটিতে লেখক পুরুষদের “নেকড়ে” সম্বোধন করে পৃথিবীর সকল মেয়েজাতিকে বলেছেন, সংশোধনের উপায় একজন মেয়ের নিজের মধ্যে নিহিত। তার হেফাযত অনেকটা নিজের মধ্যে আছে, নরম কন্ঠের মিথ্যা আর ফাকা বুলিতে যেন একটা মেয়ে কোন যুবকের হাতে নিজের সর্বস্ব বিকিয়ে না দেয়। লেখক প্রতিটি মেয়েকে একটি পবিত্র জীবনের সন্ধান দিতে চেয়েছেন বইটিতে।

    এছাড়াও বইটিতে সহশিক্ষার খারাপ দিক, জালিম সমাজে মেয়েদের অবস্থান এবং নৈতিক স্খলনের ভয়ংকর থাবা থেকে কিভাবে পরিত্রান পাওয়া যায় তা নিয়ে আলোচনা করেছেন।

    ♣ বইটি কাদের জন্য?
    ১. একজন মেয়ের জন্য।
    ২. একজন বোনের জন্য।
    ৩. একজন স্ত্রীর জন্য।
    ৪. একজন মায়ের জন্য।
    ৫. একজন পিতার জন্য।
    ৬. একজন ভাইয়ের জন্য।
    ৭. একজন স্বামীর জন্য।
    বইটি মূলত মেয়েদের উদ্দেশ্যে লিখিত হলেও যুবকদেরও পড়া উচিত, কেননা প্রতিটি পাতায় সতর্ক করা হয়েছে বাস্তব উন্মোচিত কিছু সত্যের দিকে। যে পদস্খলিত সত্যের অর্ধাংশ সংঘটিত হয় নৈতিকতা বিবর্জিত ও মূল্যবোধহীন যুবকদের দ্বারাই।

    ♣লেখক সম্পর্কেঃ
    বিংশ শতাব্দীতে যে সকল মনীষী তাদের কলম আর জবানের মাধ্যমে দাওয়াতের ময়দানে বিশাল অবদান রেখেছেন তাদের মধ্যে অন্যতম ড. আলী তানতাবী। তিনি সিরিয়ার একজন প্রখ্যাত আলেম,দামেস্কের ফতোয়া প্রদানের দায়িত্ব তার কাঁধেই অর্পিত ছিল।জার্মানির হাতে ফ্রান্সের পতনের সময় তিনি জ্বালাময়ী ভাষণ দিয়েছিলেন।তার এ অগ্নিকণ্ঠের ভাষণ সিরিয়ার মানুষকে বেশ উজ্জীবিত করেছিল। মূলত তিনি ছিলেন সত্য প্রকাশে নির্ভীক এক সুপুরুষ।

    ♣অভিব্যক্তি ও মন্তব্যঃ
    সম্পুর্ন এত দ্রুত পড়েছি যে অন্যকোন বই এভাবে পড়া হয়নি। বইয়ের প্রতিটি কথা, শব্দসুষমা, যথোপযুক্ত সম্বোধন একজন পাঠককে আকৃষ্ট করবে নিঃসন্দেহে। একজন মেয়ের সবচেয়ে বড় সম্পদ তার সম্ভ্রম, কিন্তু আবেগের আতিসহ্যে ছেলেদের ছলনামুলক কথায় ভুলে যায় নিজের অস্তিত্বের কথা, যার সমাজচ্যুত এক নারী হিসেবে সে বেঁচে থাকে অথবা আত্নহত্যা করে। দিনশেষ একপেশে সমাজব্যবস্থা ছেলেটিকে নতুন দ্বীনে ফিরে এসেছে বলে ক্ষমা করলেও মেয়েদের অবস্থা হয় করুণ ও অবহেলিত। বইটি পড়ে অনেক বিষয় সম্পর্কে জানার সুযোগ হয়েছে। সামাজিক অবক্ষয়ের দিকে দৃষ্টিপাত করার সুযোগ হয়েছে, হয়েছে একজন ভাই হিসেবে বোনের জন্য, পিতা হিসেবে মেয়ের জন্য কিছু বাস্তব ও চরম সত্য উন্মোচিত করে সতর্ক হওয়ার জন্য হৃদয় নিংড়ানো উপদেশ দেওয়ার শিক্ষা।

    💥এক নজরে…
    বইঃ হে আমার মেয়ে
    লেখকঃ ড. আলী তানতাবী
    অনুবাদঃ মাওলানা মুশাহিদ দেওয়ান
    প্রকাশনীঃ হুদহুদ প্রকাশন
    মুদ্রিত মূল্যঃ ৬০ টাকা।

    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    mahfuzasreya1507:

    #বিষয়বস্তুঃ

    ড. আলী তানতাবী রচিত ‘হে আমার মেয়ে’ বইটি খুবই ছোট। কিন্তু এর ভিতরে প্রতিটা বাক্য, প্রতিটা শব্দ, প্রতিটা বর্ণই হীরার চাইতেও অধিক মূল্যবান।

    জীবন সায়াহ্নে দাঁড়িয়ে আপন মেয়ের প্রতি একজন বয়োবৃদ্ধ পিতার হৃদয় নিংড়ানো কথামালায় সজ্জিত এ বইয়ের মূল্যবান উপদেশগুলো প্রতিটি মেয়ের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

    #পর্যালোচনাঃ

    ইসলাম নারী জাতিকে যে সম্মান ও মর্যাদা দান করেছে তা অন্য কোনো ধর্ম দিতে পারেনি। এমনকি দেয়ার চেষ্টাও করেনি। অন্যান্য ধর্মে পর্দা থেকে উম্মুক্ত করে নারীদেরকে করেছে কলুষিত, অধিকার থেকে করেছে বঞ্চিত আর যৌতুক-পণ্য হিসেবে ব্যবহার করে করেছে লাঞ্ছিত। পক্ষান্তরে ইসলাম নারীকে পর্দার মাধ্যমে সুরক্ষিত করেছে ঝিনুকে লুকায়িত মুক্তার ন্যায় মহামূল্যবান রত্নে। কিন্তু পশ্চিমা সংস্কৃতির চর্চা করে বর্তমানে নারী-পুরুষ অবাধে মেলামেশায় পর্দার উম্মোচন তো হচ্ছেই, তেমনি উচ্চহারে বেড়েছে ধর্ষণ।

    #প্রিয়_উক্তিঃ

    ★ “হে আমার মেয়ে! তোমার সম্মান তোমার হাতেই রেখে দিলাম এবং তোমার ইজ্জত-আব্রু ও মর্যাদা রক্ষার দায়িত্ব তোমার উপরই ছেড়ে দিলাম। সুতরাং তোমার বোনদেরকে উপদেশ দাও। বিপদগামীদের সংশোধন করো এবং সুপথে ফিরিয়ে আনো।”

    ★★ “হে আমার মেয়ে! তুমি তোমার বোনদেরকে বলো, আমি তোমাদেরকে যে উপদেশ দিচ্ছি তার বিনিময়ে আমি কিছুই চাইনা। শুধু তোমাদেরকে অধঃপতনের হাত থেকে রক্ষা করতে চাই, তোমাদের কল্যাণ চাই, পবিত্র জীবনের সন্ধান দিতে চাই।”

    ★★★ “হে আমার মেয়ে! জেনে রেখো! তোমার হাতেই সংশোধনের চাবিকাঠি। আমাদের হাতে নয়। তুমি চাইলে নিজেকে, তোমার বোনদেরকে এবং সমগ্র জাতিকে সংশোধন করতে পারো। তোমার প্রতি আল্লাহর পক্ষ থেকে শান্তি ও রহমত বর্ষিত হোক।”

    #পাঠ_প্রতিক্রিয়াঃ

    নারী-পুরুষ উভয়ের জন্যই পর্দা করা ফরজ। সমস্ত মুমিন মুসলমানকেই তার দৃষ্টিকে অবনত রাখতে বলা হয়েছে। মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর জন্মের পূর্বে আরব ছিল কন্যাসন্তানের জন্য অভিশাপ স্বরূপ।

    নারীদের আত্মমর্যাদা, অধিকার, সম্মান রক্ষা করতে গিয়ে কত যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে ইসলাম ও জাহিলিয়াত যুগে তার কোনো ইয়ত্তা নেই। অথচ, বর্তমান যুগ আইয়ামে জাহিলিয়াত এর চেয়েও ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণের উপায় সঠিকভাবে পর্দা করে, নিজের ইজ্জত-আব্রু রক্ষা করা।

    #মন্তব্যঃ

    পশ্চিমা সংস্কৃতির মূল উদ্দেশ্যই হলো ইসলামকে ধ্বংস করা আর এর সবচেয়ে কার্যকর পদ্ধতি হচ্ছে মুসলিম নারীদেরকে বেপর্দায় আবিষ্কৃত করা। এসব সমস্যা থেকে বের হয়ে নারী জাতিকে মুক্ত করার পরামর্শ দিয়েছেন লেখক। নিজেকে সুরক্ষিত রাখার পাশাপাশি অন্যকে পর্দার প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করে তাদেরকে ইসলামের ছায়ায় এনে জীবনপথ গড়ার জন্য আহ্বান করতে শিক্ষা রয়েছে এ বইটিতে। বইয়ের নাম ‘হে আমার মেয়ে’ হলেও, বইয়ের উপদেশ মেয়েদের জন্য হলেও প্রতিটি মুসলিম নারী-পুরুষেরই এ বইটি পড়া উচিত। যাতে একজন নারী তার মা, মেয়ে, বোনকে সাবধান করতে পারে। তেমনি একজন পুরুষ তার মেয়ে, স্ত্রী, মা কিংবা বোনকে পর্দায় রাখতে পারে।

    4 out of 4 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    ফররুখ শিয়ার:

    ⭕বইয়ের নাম : হে আমার মেয়ে
    ⭕লেখক : ড. আলী তানতাবী রহ.
    ⭕অনুবাদক : মাওলানা মুশাহিদ দেওয়ান
    ⭕প্রকাশক : হুদহুদ প্রকাশন
    ⭕মুদ্রিত মূল্য :৬০ টাকা

    ⭕বই সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনা:
    বইটি হলো ‘জীবন সায়াহ্নে দাঁড়িয়ে আপন মেয়ের প্রতি একজন বয়োবৃদ্ধ পিতার হৃদয় নিংড়ানো কথামালা।’ একজন পিতা জীবনের অন্তিম মুহূর্তে এসে তাঁর মেয়েকে উপদেশ দিচ্ছেন, তাঁর কল্যাণ কামনা করছেন, তাঁকে সমাজের বাস্তবতা শিক্ষা দিচ্ছেন। মেয়ের প্রতি পিতার সেই কথাগুলোই ‘হে আমার মেয়ে’ নামক বই আকারে প্রকাশিত হয়েছে।

    ⭕বইটিতে যা আছে:
    বইটিতে তুলে ধরা হয়েছে মেয়ের প্রতি একজন পিতার শেষ উপদেশমালা। নিজের মেয়েকে বললেও তাঁর এই উপদেশগুলো শুধু নিজের মেয়ের জন্যই নয়, বরং দুনিয়ার সকল মেয়ের জন্যই।
    পিতা তাঁর মেয়েকে পুরুষদের চাহিদা, পর্দার গুরুত্ব, মুসলিম মেয়েদের ঘর থেকে বের করার পশ্চিমা ষড়যন্ত্র, পশ্চিমা বিশ্বে নারীদের পশুর মতো জীবনযাপন, নিজের সতিত্ব, ইজ্জত, মর্যাদা টিকিয়ে রাখার চেষ্টা ইত্যাদি নিয়ে তাঁর মেয়েকে অনেক জরুরী উপদেশ দিয়েছেন, যা বর্তমান সময়ের সকল মেয়ের জন্যই জানা উচিত।

    ⭕পাঠপ্রতিক্রিয়া:
    ছোট্ট একটা বই।অথচ বইয়ের উপদেশ গুলো খুবই সুন্দর ও সময়োপযোগী ছিল। হৃদয়ে ধাক্কা দেয়। সময়ের ভয়ংকর চেহারা উন্মোচন করে দেয়।
    বইয়ের প্রচ্ছদ, বাঁধাই, পৃষ্ঠার মান, অনুবাদের মান মাশাআল্লাহ সুন্দর ছিল। ভিতরে রঙিন পৃষ্ঠা এবং সুন্দর সাজে সজ্জিত।
    বইটি আমার কাছে খুবই সুন্দর এবং গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছে।

    ⭕বইটি কেন পড়া উচিত:
    বইটিতে এমন সকল বিষয় তুলে ধরা হয়েছে, যা জানা এবং মেনে চলা বর্তমান সময়ের মেয়েদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। এজন্য সকল মেয়েদের বইটি পড়া উচিত। এমনকি পুরুষদেরও পড়া উচিত, নিজের মা, বোন, স্ত্রী, মেয়ের নিরাপত্তার জন্য, সঠিক তরবিয়তের জন্য, সুন্দর এবং সুস্থ জীবনযাপনের জন্য।

    ⭕বইয়ের অসাধারণ দুইটি কথা:
    ১.হে আমার মেয়ে!পুরুষ যখন কোন যুবতী মহিলার দিকে দৃষ্টিদেয় তখন সে মহিলাটিকে বস্ত্রহীন অবস্থায় কল্পনা করে। আল্লাহর শপথ!
    এ ছাড়া সে অন্য কিছু চিন্তা করে না। তোমাকে যদি কেউ বলে, সে তোমার উত্তমচরিত্রে মুগ্ধ, তোমার আচার-ব্যবহরে আকৃষ্ট এবং সে কেবল তোমার সাথে সাধারণ একজন বন্ধুর মতই আচরণ করে এবং সে হিসাবেই তোমার সাথে কথা বলতে চায় তাহলে তুমি তা বিশ্বাস করো না। আল্লাহর শপথ! সে মিথ্যুক।

    ২.হে আমার মেয়ে!যুবকেরা তোমাদের আড়ালে যে সমস্ত কথা বলে তা যদি তোমরা শুনতে, তাহলে এক ভীষণ ভীতিকর বিষয় জানতে পারতে। কোন যুবক তোমার সাথে যে কথাই বলুক, যতই হাসুক, যত নরম কণ্ঠেই বলুক ও যত কোমল শব্দই ব্যবহার করুক, সেটি তার আসল চেহারা নয়; বরং সেটি তার অসৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের ভূমিকা ও ফাঁদ ব্যতীত অন্য কিছু নয়। সুকৌশলে সে যতই তোমার সামনে তা গোপন রাখুক।আল্লাহর শপথ! এ ছাড়া তার উদ্দেশ্য অন্য কিছু নয়।

    4 out of 4 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    Azmin Akther Eva:

    বই- হে আমার মেয়ে
    মূল- ড. আলী তানতাবী
    অনূদিত- মাওলানা মুশাহিদ দেওয়ান
    Hudhudprokashon

    ‘জীবন সায়াহ্নে দাঁড়িয়ে আপন মেয়ের প্রতি একজন বয়োবৃদ্ধ পিতার হৃদয় নিংড়ানো কথামালা।’ বইটি যেমন সুন্দর তেমনি পড়তে গিয়ে প্রতিটি পৃষ্ঠায় গন্ধ নিয়েছি নতুন বইয়ের!! নতুন বইয়ের গন্ধ এমনিতেই আমার খুব ভালো লাগে । বইটিতে আছে মেয়ের প্রতি বাবার দেওয়া কিছু উপদেশ! উপদেশগুলো সেই একজন মেয়ের জন্য না , আমাদের মত হাজারো মেয়ের জন্য ।

    ❏ বইটিতে যা আছে:-
    ———————————–
    বাবার কিছু উপদেশ নিচে তুলে ধরা হলো,
    হে আমার মেয়ে! পুরুষ যখন কোন যুবতী মহিলার দিকে দৃষ্টি দেয় তখন সে মহিলাটিকে বস্ত্রহীন অবস্থায় কল্পনা করে।
    হে আমার মেয়ে! এ ছাড়া সে অন্য কিছু চিন্তা করে না। তোমাকে যদি কেউ বলে, সে তোমার উত্তম চরিত্রে মুগ্ধ, তোমার আচার-ব্যবহারে আকৃষ্ট এবং সে কেবল তোমার সাথে সাধারণ একজন বন্ধুর মতই আচরণ করে এবং সে হিসাবেই তোমার সাথে কথা বলতে চায় তাহলে তুমি তা বিশ্বাস করো না। আল্লাহর শপথ! সে মিথ্যুক।

    হে আমার মেয়ে! যুবকেরা তোমাদের আড়ালে যে সমস্ত কথা বলে তা যদি তোমরা শুনতে, তাহলে এক ভীষণ ভীতিকর বিষয় জানতে পারতে। কোন যুবক তোমার সাথে যে কথাই বলুক, যতই হাসুক, যত নরম কণ্ঠেই বলুক ও যত কোমল শব্দই ব্যবহার করুক, সেটি তার আসল চেহারা নয়; বরং সেটি তার অসৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের ভূমিকা ও ফাঁদ ব্যতীত অন্য কিছু নয়। সুকৌশলে সে যতই তোমার সামনে তা গোপন রাখুক। আল্লাহর শপথ! এ ছাড়া তার উদ্দেশ্য অন্য কিছু নয়।

    ❏ বইটি কেন অন্যদের পড়তে উৎসাহিত করবেন?
    —————————————————————————
    বইটিতে বলা আছে,,হে আমার মেয়ে! তোমার সম্মান তোমার হাতেই রেখে দিলাম এবং তোমার ইজ্জত-আভ্রু ও মর্যাদা রক্ষার দায়িত্ব তোমার উপরই ছেড়ে দিলাম। সুতরাং তোমার বোনদেরকে উপদেশ দাও, বিপথগামীদেরকে সংশোধন কর এবং সুপথে ফিরিয়ে আন।
    তোমার পথহারা বোনদেরকে এ সব কথা বলে উপদেশ দাও, তাদেরকে মর্মান্তিক করুণ পরিণতির কথা শুনাও। ইউরোপ-আমেরিকার যুবতীদের পথ ধরা থেকে তোমার ঈমানদার বোনদেরকে সতর্ক কর এবং রোগে আক্রান্ত হওয়ার পূর্বেই তাদের মধ্যে প্রতিষেধক রোপন কর!!

    ❏ ভালোলাগা:-
    ————————-
    উপদেশ গুলো সুন্দর ছিল। বইয়ের সাজসজ্জা ও মাশাল্লাহ সুন্দর ছিল। ছোট্ট একটা বই। ভিতরে রঙিন পৃষ্ঠা এবং সুন্দর সাজে সজ্জিত। রঙিন পৃষ্ঠা হওয়ায় পৃষ্ঠার গন্ধ দারুণ। বইয়ের পরিসর ছোট হলেও প্রয়োজনীয় কথাগুলো দিয়ে বইটি লেখা।

    ❏ কঠিন কিছু কথা:-
    ——————————-
    পর্দা করতে তোমার যদি লজ্জা লাগে তবে পুরুষদের খারাপ ও লোলুপ দৃষ্টি যখন তোমার সস্তা দেহের উপর পড়ে , তখন কোথায় থাকে তোমার লজ্জা , কোথায় থাকে আত্মমর্যাদাবোধ!!
    পরিষ্কার বলেছে তারা:
    ইসলাম ধ্বংস করার সবচেয়ে কার্যকর উপায় হলো, মুসলিম নারীদের বেপর্দা ঘর থেকে বের করা। হে নারী তুমি এদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছো , একবার ভেবেছো কি?!!

    ❏ শেষ কথা:-
    ————————
    আত্মমর্যাদা সুরক্ষা দেয় হিজাব
    যার ওপর একজন সুস্থ সবল পুরুষের মননশীলতা তৈরি; যে পুরুষ চায়না , তার স্ত্রী ও বোনের দিকে কুদৃষ্টিতে দুষ্টু তীর এসে পড়ুক!!

    8 out of 9 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    mahiratasnim150:

    “জীবন সায়াহ্নে দাড়িয়ে আপন মেয়ের প্রতি বয়োবৃদ্ধ পিতার হৃদয় নিংড়ানো কথামালা!”
    কে সেই পিতা?
    সেই পিতা হলেন, শাইখ আলী আল তানতাবী। মিশরের প্রখ্যাত আলিম ও দাঈ।
    মেয়ের প্রতি তারই উপদেশমালা হিসেবে রচিত হয়েছে “হে আমার মেয়ে” বইটি।
    .
    |বই নিয়ে কথাঃ| বইটিতে লেখক মেয়েকে কেন্দ্রবিন্দুতে রাখলেও মূলত অভিনব পন্থায় গোটা নারীজাতিকে উদ্দেশ্য করে উপদেশনামা বানিয়েছেন। এককথায়, এই বইটি মেয়েদের জীবনের পথচলার সুস্পষ্ট দিকনির্দেশিকা। লেখক বিভিন্ন আঙ্গিকে নিজের লম্বা সফরের জীবনদর্শনের অভিজ্ঞতাকে দরদমাখা আকুলতায় মিশ্রিত করে বানিয়েছেন মেয়েদের জীবনছক!

    হৃদয়ের প্রলুব্ধতায় মেয়েদের জন্য বানিয়েছেন ‘উপদেশনামা’! তাদের উপদেশ দিয়েছেন, পর্দা করার জন্য, সম্মান রক্ষার জন্য, পশ্চিমার রঙ আষ্টেপৃষ্টে জড়িয়ে নিজেকে ভোগের পণ্য না বানানোর জন্য, বিয়ে বহির্ভূত সম্পর্কে না জড়ানোর জন্য। এইসব সাধারণ কথাগুলোকেই তিনি চিত্রিত করেছেন অসাধারণ ভাবে। উপদেশের সাথে যুগপৎ নসীহত! কিভাবে স্বামীর প্রিয়ভাজন হওয়া যায়, নফস নিয়ন্ত্রণের কৌশল কিংবা সবকিছুর ব্যালেন্সিংয়ের উপায় হিসেবে দিয়েছেন কিছু সমাধানবার্তা।
    .
    |সমালোচনা ও পরামর্শঃ| মাঝে মাঝে আমার ইচ্ছে হয়, এই বইটি লিফলেটের মতো সব মেয়েদেরকে বিলিয়ে দিই! কারণ, জন্মসূত্রে মুসলিম হলেও, অধিকাংশ পরিবার কিংবা বহির্জগৎ, কোথাও আমাদের দ্বীনী জীবনযাপনের প্রশিক্ষণ বা ধারণা কোনোটাই দেওয়া হয় না।
    এই বইটি আমাদের সিলেবাসের সেই অসূর্যম্পশ্যা অংশটি যা আমাদের শিখা হয়নি। তাই বইটি অবশ্যপাঠ্য বইয়ের লিস্টে রাখা উচিত।
    .
    বইয়ের কলেবর নগণ্য, তাই এই বইটিকে আমি বই কম, ম্যাগাজিনের মতোই বেশীই পড়েছি। অনুবাদের ভাষা ও প্রাঞ্জল। বইয়ের প্রচ্ছদ আর প্রচ্ছদের উপর লেখা কথাটা বই পড়ার আগ্রহটা আরও বাড়িয়ে দেয়।
    বইয়ের রঙিন ছবি দৃষ্টিনন্দিত হলেও, অনেক পাঠকই তা পছন্দ করেননা।
    .
    |পাঠ প্রতিক্রিয়াঃ| মাত্র ১৬ পৃষ্ঠার বই। কিন্তু এর ভেতরকার কথামালার ধাঁচ আর উপভোগ্য উপস্থাপন বইটিকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে।
    নিজে একজন মেয়ে হিসেবেই হয়তোবা প্রত্যেকটা কথার মর্মার্থ হৃদয় দিয়ে উপলব্ধি করতে পেরেছি। লেখক যেন পিতার আসনে বসে চোখে আঙুল দিয়ে ভুল ধরিয়ে দিয়েছেন।নিজের বিবেকের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছি শতবার, প্রতুত্তরে পেয়েছি কিছু সুন্দর সমাধান। প্রকৃতপক্ষে, এই বইটির প্রত্যেকটা পৃষ্ঠাই অমূল্য সম্পদ।
    অসাধারণ এই বইটি যারা এখনো পড়েননি, তারা অনেক কিছুই মিস করছেন।
    যেহেতু বইটার দাম কিংবা কলেবর দুটোই কম, সুতরাং বইটি সংগ্রহ করাও সহজ ব্যাপার। তাই, নিজদের ভুলে ভরা জীবনে সঠিক দিকনির্দেশনা পাওয়ার জন্য হলেও, বইটিকে একবার হাতে নিন। হয়তো দোদুল্যমান জীবনে পেয়ে যেতে পারেন একটুখানি আলোর দিশা।

    7 out of 7 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top