মেন্যু
orientalismer prothom path

ওরিয়েন্টালিজমের প্রথম পাঠ

পৃষ্ঠা : 80, কভার : পেপার ব্যাক
ভূমিকা ও ভাষান্তর: কামরুল হাসান নকীব ‘ওরিয়েন্টালিজমের প্রথম পাঠ’ বইটি কনে পড়বেন? পৃথিবীতে পশ্চিমের সাম্রাজ্য ও ক্ষমতার বলয়কে মজবুত করার একটি প্রকল্প হলো প্রাচ্যতত্ত্ব ওরিয়েন্টালিজম। সারা পৃথিবীজুড়ে মুসলিম-অমুসলিম সকলেই এই তত্ত্বের মাধ্যমে... আরো পড়ুন

Out of stock

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

1 রিভিউ এবং রেটিং - ওরিয়েন্টালিজমের প্রথম পাঠ

5.0
Based on 1 review
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    ফারহানা আকতার:

    পৃথিবীতে পশ্চিমা সাম্রাজ্য কীভাবে তাদের চিন্তা ভাবনা জনসাধারণের মনে গেঁথে দিয়েছে, কীভাবে তারা ইসলাম, আরবি সাহিত্য ও সংস্কৃতির বিকৃতি ঘটিয়ে পৃথিবীতে রাজত্ব করছে তার বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে এই গ্রন্থে। বইটি লিখেছেন সিরিয়ায় জন্ম নেওয়া মুস্তফা সিবাঈ। মহামূল্যবান গ্রন্থটি অনুবাদের কাজ হাতে নিয়েছেন মুভমেন্ট পাবলিকেশন্স। আলহামদুলিল্লাহ

    ★লেখক পরিচিতি–
    —————————-
    মুস্তফা সিবাঈ ১৯১৫ সালে সিরিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি যে পরিবারে জন্মান সে পরিবারে বহুশত বছরের জ্ঞানচর্চা ও বিদ্যোৎসাহিতার ঐতিহ্য সুবিদিত। তাঁর বাবার মতো তিনিও সাম্রাজ্যেরবাদিতার বিরোধিতা করেছেন এরজন্য তাকে অনেকবার কারাবরণ করতে হয়েছে। ১৯৩৩ সালে তিনি মিশরে গমন করে সাম্রাজ্যবাদী শক্তি ব্রিটিশ দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যোগদান করেন। ড. মুস্তফা সিবাঈকে মুসলিম ব্রাদারহুডের প্রতিষ্ঠাতা মনে করা হয়। তিনি সামনে থেকে বিভিন্ন যুদ্ধের নেতৃত্ব দিয়েছেন। ফিলিস্তিনের হয়ে ইসরায়েলের বিপক্ষে যুদ্ধ করেন।তাঁর রচিত গ্রন্থের সংখ্যা বিপুল। ১৯৬৪ সালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

    ★পাঠ_সংক্ষেপ–
    ————————-
    একজন মুসলিম হিসেবে আপনি কি পরিধান করবেন, কার সাথে বন্ধুত্ব করবেন, কীভাবে জীবন-যাপন করবেন তা ইসলাম বলে দিয়েছে। বর্তমানে এই দায়িত্ব অনেকটা কাঁধে তুলে নিয়েছে পশ্চিমা সাম্রাজ্য। যারা ইসলামকে বিকৃত করে রাজত্ব করতে চায় মানুষের হৃদয়ে। যদিও সত্যের কাছে সকল মিথ্যা এসে দুমড়ে মুচড়ে ধ্বংস হয়ে যায় তার সকল অপশক্তি নিয়ে।
    ওরিয়েন্টালিজম অর্থ প্রাচ্যবিদ্যা। এই সঙ্গায় যারা প্রাচ্যের বিপক্ষে কাজ করছেন ও যারা প্রাচ্য সম্পর্কে নিখাদ বস্তুনিষ্ঠ কাজ করছেন তাদের উভয়কেই বোঝানো হয়েছে। পশ্চিমাদের মূল লক্ষ্য ইসলামকে বিকৃত করে জনসাধারণের কাছে ইসলামের জনপ্রিয়তা হ্রাস করা। মুসলিমরা যেন তাদের ঐতিহ্য, সংস্কৃতিকে দাফন করে পশ্চিমাদের নোংরা সংস্কৃতির প্রতি ঝুঁকে পড়ে তারই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বছরের পর বছর। আজ তারা এই অপচেষ্টায় সফলও হয়েছে বটে। কিন্তু পারে নি ইসলামকে মানুষের হৃদয় থেকে মুছে দিতে।
    প্রাচ্যতত্ত্বের উদ্দেশ্য পাঁচটিটি। যথা—
    ১.ধর্মীয় কার্যকারণ
    ২.ঔপনিবেশিক বা সাম্রাজ্যবাদী কার্যকারণ
    ৩.বানিজ্যিক কার্যকারণ
    ৪. রাজনৈতিক কার্যকারণ
    ৫. জ্ঞানতাত্ত্বিক কার্যকারণ
    যারা প্রাচ্যতত্ত্ব নিয়ে গবেষণা করেছেন তাদের অধিকাংশ ইসলাম, আরবি সাহিত্য ও ইসলামি সভ্যতা-সংস্কৃতির বিকৃত করার কাজে মনোনিবেশ করেছে। কম সংখ্যকই ইসলামকে জানার অভিপ্রায়ে প্রাচ্যতত্ত্ব নিয়ে কাজ করেছেন। তাদের উদ্দেশ্য সৎ।
    এই প্রাচ্যতত্ত্বের লক্ষ্য তিনটি। যথা–
    ১.অশুদ্ধ বা বিকৃত জ্ঞানচর্চামূলক লক্ষ্য
    ২. ধর্মীয় ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য
    ৩.নিখাদ জ্ঞানচর্চামূলক লক্ষ্য

    ★ বইটি কেন পাঠ করবেন–
    ——————————————
    ♣ ইসলামকে নিয়ে পশ্চিমাদের নোংরা চক্রান্ত সম্পর্কে সাধারণ মানুষ সচেতন হতে
    পারবে।
    ♣ মানুষের মনে ইসলাম নিয়ে যে ভীতি সৃষ্টি করা হয়েছে বা হচ্ছে তার সুস্পষ্ট ধারনা
    পাওয়া।
    ♣ ইসলাম ও মুসলিমদের প্রতি কয়েকজন বিখ্যাত ব্যক্তির বিদ্বেষী মনোভাব সম্পর্কে ধারনা লাভ।

    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top