মেন্যু


কবরপূজারি কাফের

প্রকাশনী : হুদহুদ প্রকাশন

আল্লাহর সাথে কাউকে কোনভাবে শরীক করা হচ্ছে শিরক, তা সেই ব্যক্তি জীবিত হোক বা মৃত; তা জেনে করা হোক বা না জেনে। কান্ডজ্ঞানসম্পন্ন কোন ব্যক্তি আপন সৃষ্টিকর্তাকে ছেড়ে নিজের মতোই কোন এক সৃষ্টির সামনে মাথানত করতে পারে না। কিন্তু আমাদের দেশে অনেক স্থানেই মানুষ জড়িয়ে পড়েছে কবরপূজার সাথে। লাল সালু দিয়ে সাজানো এই কবরগুলোই যেন হয়ে যাচ্ছে তাদের মসজিদ আর কবরের মৃত ব্যক্তিগুলো তাদের প্রার্থনার কেন্দ্রবিন্দু।
“কবরপূজারি কাফের” বইটিতে কবর পূজার ভয়াবহ পরিণাম তুলে ধরা হয়েছে, আশা করি বইটি পড়লে আমরা এই ধরনের শিরকের ভয়াবহতা থেকে নিজেদের ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের রক্ষা করতে পারবো।

পরিমাণ

160  280 (43% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
জিলহজ্জ স্পেশাল গ্যাজেটস
- ১৪৯৯+ টাকার অর্ডারে সারাদেশে ফ্রি শিপিং!

2 রিভিউ এবং রেটিং - কবরপূজারি কাফের

5.0
Based on 2 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    #কিছু_কথাঃ
    কবর পূজা, মজার পূজা, পীর পূজা, পীরের নামে মানত করা, কবরে সিজদা করা, পীরকে সিজদা করা, বিদঅাত ইত্যাদি সমাজে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে। মাজার ব্যাবসাগুলো রমরমা অবস্থা। বিশেষ করে গ্রাম্য অঞ্চলে এগুলো বেশি চোখে পড়ে। এখন শহরেও দেখা যায়। মানুষ পুন্যের নামে অজান্তে শিরক, কুফর, বিদঅাতে লিপ্ত হচ্ছে অথচ জানে না। কাজগুলো সওয়াবের অাশায় করা হয় বলে তওবাও করে না। শিরকের ভয়াবহতা সম্পর্কে অাল্লাহ

    সুবহানাহু ওয়া তাআ’লা বলেন,
    নিশ্চয় আল্লাহ তাঁর সাথে শরীক করাকে ক্ষমা করেন না। তিনি ক্ষমা করেন এ ছাড়া অন্যান্য পাপ, যার জন্য তিনি চান। আর যে আল্লাহর সাথে শরীক করে সে অবশ্যই মহাপাপ রচনা করে। (সূরা নিসা, অায়াতঃ ৪৮)

    এত ভয়ংকর কথা বলার পড়ও শিরকে লিপ্ত হই। কারন অামরা জানিই না কোনটি শিরক। এই সমস্যা থেকে রক্ষা পওয়ার জন্য এগিয়ে এসেছেন অারবজাহানের বিশিষ্ট দাঈ শায়খ ড. মুহাম্মাদ ইবনে অাবদুর রহমান অারিফী।

    #বইটির_বিষয়বস্তুঃ
    বইটিতে শিরকের বিষয়গুলো পর্যায়ক্রমে তুলে ধরেছেন। নিচে বিষয়গুলোর কিছু ধারণা দেয়া হলোঃ
    ১। শিরকের শুরুর ইতিহাস,
    ২। শিরকের কারণসমূহ,
    ৩।শিরক কীভাবে হয়,
    ৪। মাজার যেভাবে সৃষ্টি,
    ৫। গোমরাহী শিরকের দিকে যেভাবে নেয়,
    ৬। অাল্লাহর উপর ইমান অানয়ন,
    ৭। যেসব করানে ইমান নষ্ট হয়ে যায়,
    ৮।বিদঅাতের অালোচনা।
    লেখক বর্তমান প্রেক্ষাপটের উপর ভিত্তি করে বিষয়গুলোর নির্মোহ বিশ্লেষণ করেছেন। বইটা বাংলা ভাষা-ভাষী পাঠকের জন্য অনুবাদ করেছেন হুদহুদ প্রকাশন। বইটি অামাদের শিরকের বেড়াজাল থেকে বের করে অানতে সাহায্য করবে।

    #আমার_ভাবনাঃ
    বইটি শিরকের বিষয়গুলো জানার জন্য বইটি এককথায় অসাধারন। যারা শিরকের সাথে জড়িত না তাদেরও পড়া দরকার।

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    :

    কবর পূজা, মজার পূজা, পীর পূজা, পীরের নামে মানত করা, কবরে সিজদা করা, পীরকে সিজদা করা, বিদঅাত ইত্যাদি সমাজে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে। মাজার ব্যাবসাগুলো রমরমা অবস্থা। বিশেষ করে গ্রাম্য অঞ্চলে এগুলো বেশি চোখে পড়ে। এখন শহরেও দেখা যায়। মানুষ পুন্যের নামে অজান্তে শিরক, কুফর, বিদঅাতে লিপ্ত হচ্ছে অথচ জানে না। কাজগুলো সওয়াবের অাসায় করা হয় বলে তওবাও করে না। শিরকের ভয়াবহতা সম্পর্কে অাল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তাআ’লা বলেন,
    নিশ্চয় আল্লাহ তাঁর সাথে শরীক করাকে ক্ষমা করেন না। তিনি ক্ষমা করেন এ ছাড়া অন্যান্য পাপ, যার জন্য তিনি চান। আর যে আল্লাহর সাথে শরীক করে সে অবশ্যই মহাপাপ রচনা করে।
    (সূরা নিসা, অায়াতঃ ৪৮)

    এত ভয়ংকর কথা বলার পড়ও শিরকে লিপ্ত হই। কারন অামরা জানিই না কোনটি শিরক। এই সমস্যা থেকে রক্ষা পওয়ার জন্য এগিয়ে এসেছেন অারবজাহানের বিশিষ্ট দাই শায়খ ড. মুহাম্মাদ ইবনে অাবদুর রহমান অারিফী।

    #বইটির_বিষয়বস্তুঃ
    বইটিতে শিরকের বিষয়গুলো পর্যায়ক্রমে তুলে ধরেছেন। নিচে বিষয়গুলোর কিছু ধারণা দেয়া হলোঃ
    ১। শিরকের শুরুর ইতিহাস,
    ২। শিরকের কারনসমূহ,
    ৩।শিরক কীভাবে হয়,
    ৪। মাজার যেভাবে সৃষ্টি,
    ৫। গোমরাহী শিরকের দিকে যেভাবে নেয়,
    ৬। অাল্লাহর উপর ইমান অানয়ন,
    ৭। যেসব করানে ইমান নষ্ট হয়ে যায়,
    ৮।বিদঅাতের অালোচনা।
    লেখক বর্তমান প্রেক্ষাপটের উপর ভিত্তি করে বিষয়গুলোর নির্মোহ বিশ্লেষণ করেছেন। বইটা বাংলা ভাষা-ভাষী পাঠকের জন্য অনুবাদ করেছেন হুদহুদ প্রকাশন। বইটি অামাদের শিরকের বেড়াজাল থেকে বের করে অানতে সাহায্য করব। শিড়কের বিষয়গুলো জানার জন্য বইটি এককথায় অসাধারন।

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top