মেন্যু
upomar shoilpikotay mugdhomoy quran

উপমার শৈল্পিকতায় মুগ্ধময় কুরআন

প্রকাশনী : বুকিশ পাবলিশার
অনুবাদ: NAK বাংলা টিম পৃষ্ঠা ২২৪ কভার: পেপার ব্যাক আল-কুর’আনের প্রজ্ঞাময় পবিত্র জীবনব্যবস্থার সাথে তার সাহিত্য শৈলিও যে মু’জিযার অন্তর্ভুক্ত সেকথা কতোজনই বা জানে! বাংলাভাষায় আলঙ্কারিক কুর’আনের সাহিত্যশৈলির উপর কাজ নেই বললেই চলে।... আরো পড়ুন
পরিমাণ

200 

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

3 রিভিউ এবং রেটিং - উপমার শৈল্পিকতায় মুগ্ধময় কুরআন

5.0
Based on 3 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    Moktadir Siyam:

    মাশাআল্লাহ কুরআন নিয়ে একটি বিশ্লেষণধর্মী বই।
    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    Montasir Mamun:

    উপমার শৈল্পিকতায় মুগ্ধময় কুরআন
    লেখক : নোমান আলী খান
    ভাষান্তরঃ নোমান আলী খান বাংলা টিম
    প্রকাশনী : Bookish Publisher
    গাইয়ের দাম ২০০ (নির্ধারিত)
    পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ২২৪

    বইটি কাদের জন্য?
    যারা আল কুরআন পড়েন ভক্তি সহকারে কিন্তু ভালোবাসা এখনো অর্জন করতে পারেননি; এক কথায় তাদের জন্য এই বই। যারা ব্যাখ্যা পড়া শুরু করতে চান, তাফসীর পড়ার চিন্তা করছেন, তারা এই বইটি দিয়ে শুরু করবেন

    কি কি অসাধারন বিষয় আছে এই বইতে?
    আল কুরআন যে ভাষার দিক থেকে তৎকালীন আরব ভাষাবিদ, কবিদের কীভাবে হারিয়ে দিয়েছিল তা যারা ভালভাবে উপলব্ধি করতে পারেন না তাদের জন্য রয়েছে অবাক বিস্ময়। এই বই পড়ে আপনি বার বার রুমাল খুজবেন চোখ মোছার জন্য।
    মানুষ যেমন ভালবাসার মানুষের সঙ্গ ছাড়তে চায় না তেমনি আপনি এই বইটি শেষ করার আগে উঠতে চাইবেন না ও পরে আল কুরআনের প্রতি ভালোবাসা জন্মানোর কারনে তাদের ছাড়তে চাইবেন না।

    সারমর্মঃ
    স্বল্প সূচনায় প্রকাশক আল কুরআনের শৈল্পিক উৎকর্ষতা, উপমার বিশ্লেষন, সৌন্দর্যের আধার এমন বই প্রকাশ করতে পেরে আল্লাহর শুকরিয়া জ্ঞাপন করেছেন। কয়েকজন পাঠকের মন্তব জুড়ে দেয়া হয়েছে একটা পাতায়। বইটির অনুবাদ করা নোমান আলী খান বাংলা টিম এর একটা সংক্ষিপ্ত বর্ননা আছে। তারা কি করে, কীভাবে করে, কেন এই কাজ করে ইত্যাদি। এরপরই লেখক নোমান আলী খান সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত রুপে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়েছে পাঠকদের। তাঁর জীবনের গুরুত্বপূর্ন কিছু তথ্য দেয়া আছে। আরবী ব্যাকরন ও অলংকার, উপমা ইত্যাদির কিছু তাত্ত্বিক বিষয় শুরুতে আনা হয়েছে যেন বইয়ের পরের মূল অংশ বোঝার সময় এই ব্যকরনগত বিষয়গুলো কিছুটা জানা যায়।

    মূল অংশে ১০ টি অসাধারন বর্ননা দেখতে পাওয়া যায়। আল কুরআনের বিভিন্ন জায়গা থেকে আয়াত নিয়ে সেগুলোর অন্তর্নিহিত ব্যাখ্যা, বিশ্লেষন সাবলীলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। শুধুমাত্র শাব্দিক অনুবাদে যে অনেক কিছুই হারিয়ে যায় তা বোঝানো হয়েছে। আল কুরআনের শাব্দিক অনুবাদে হয়তো তাঁর মানে কিছুটা বোঝা যায় কিন্তু অলৌকিকত্ব বুঝে আসে না। এজন্য ব্যাখ্যা ও আরবী ভাষার জ্ঞান থাকা দরকার বা সেই জ্ঞান নিজের ভাষায় জানা দরকার।

    জীবনকে কখনও শস্য/ফসল এর সাথে, হৃদয়কে পাথরের সাথে, মানুষকে কুকুরের সাথে, আল কুরআন ও হেদায়াতকে বৃষ্টির সাথে, হৃদয়ে থাকা হেদায়াত নূরের সাথে তুলনা করা হয়েছে। এই সব তুলনা যে কতটা যৌক্তিক, শৈল্পিক তা পড়তে পড়তে সহজের বুঝে আসবে, মন বিগলিত হবে, চোখ থেকে পানি ঝরবে, মাথা এমনিতেই সিজদায় লুটিয়ে পড়বে।

    শেষে বায়্যিনাহ টিভি কি ও তাদের কাজ কি এগুলো কথা ও লিঙ্ক এর মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে।

    অল্প কথায় মন্তব্যঃ আল কুরআনকে অনেকেই অর্থের ব্যাখা করে থাকেন। এভাবে শাব্দিক ব্যাখ্যায় শব্দের বিশ্লেষণ, তাত্তিক আলোচনাই হয়; এমন ব্যাখ্যা ভক্তি আনতে পারে কিন্তু ভালবাসা আনা কঠিন হয়। এই বইটি কুর আনের প্রতি ভালোবাসা এনে দিয়েছে, সাথে ভক্তি তো আছেই।

    বইয়ের কাগজের মান, প্রচ্ছদ, বাইন্ডিং সবই ভাল। নির্ধারিত দাম হওয়ায় দামাদামি করার ঝামেলাও নাই।

    রেটিং ১০/১০

    6 out of 6 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    mahiratasnim150:

    সারি সারি বইয়ে আমরা সজ্জিত করে রাখি, শেলফের প্রতিটি তাক।ওগুলো পড়ে বিশ্লেষণ করি। বিচিত্র শৈল্পিক কারুকাজে নিজেকে খুঁজে ফিরি। কোনো কবির সাহিত্যের মান নিয়ে প্রশংসায় পঞ্চমুখ হই, আবার কারো’র উপস্থাপনে যারপরনাই অসন্তুষ্ট।
    কিন্তু সব সাহিত্যকলার ঊর্ধ্বে যেই ঐশীগ্রন্থ, তার নিখুঁত শৈল্পিকতা সম্পর্কে আমরা ক’জন-ই বা জানি?
    .
    নিঃসন্দেহে আল-কুরআন এক সুনিপুণ-প্রজ্ঞাময় জীবনব্যবস্থার উৎস। যুগে-যুগে কুরআনের মুজিযা প্রমাণিত হয়েছে বারংবার। কিন্তু এর বাইরে কুরআনের অন্য বিশেষণের কথা আমাদের অনেকেরই অজানা।
    কুরআনের চমৎকার সাহিত্যশৈলীও তার অলৌকিকত্বের উল্লেখযোগ্য অংশ।
    এই অজানা উপলব্ধির কারণে আজ কুরআনকে আমরা মনে করি নীরস-নির্জীব। কুরআনের গভীরতা অন্তরে অনুভব করতে পারি না বলে, কুরআন পড়ে মজা পাইনা।
    .
    বাংলা ভাষায় কুরআনের সাহিত্যশৈলীকে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরার কার্যক্রম নেই বললেই চলে। অথচ এই বিষয়ে বড় পরিসরে জানা কুরআন মূল্যায়নের চৌম্বকীয় অংশের মধ্যে পড়ে।
    এজন্যই উক্ত বিষয়লব্ধ জ্ঞান আহরণে আমরা অনেকাংশেই বিদেশী আলেম-স্কলারদের উপর নির্ভরশীল।
    উস্তাদ নোমান আলী খান, যিনি স্বপ্ন দেখেন কুরআন দিয়ে বিশ্বজয়ের তারই বয়ানে উঠে আসে আলোচ্য বিষয় টি। তারই লেকচার অনুসারে মলাটবদ্ধ হয়েছে “উপমার শৈল্পিকতায় মুগ্ধময় কুরআন”
    উস্তাদের পরিচয় নিয়ে ভূমিকার কিছুই নেই। পশ্চিমের সবচেয়ে প্রভাবশালী স্কলারদের মধ্যে যে নামটা উঠে আসে, তিনিই উস্তাদ নোমান আলী খান।
    .
    |বইয়ের কথাঃ|
    কুরআনের আলংকারিক সৌন্দর্য প্রস্ফুটিত হয়েছে এই বইয়ের ভাঁজে ভাঁজে। উস্তাদের ১০টি লেকচারে মলাটবদ্ধ হয়েছে এই বইটি, যার প্রত্যেকটি আপনার অন্তরকে ক্রমেই মোহাবিষ্ট করে তুলবে। কুরআনের প্রত্যেকটা আয়াত নিয়ে নতুন করে ভাবতে ইচ্ছে করবে, উপমার শৈল্পিকতায় হিদায়াহ খুঁজতে ইচ্ছে করবে।
    কুরআনের শব্দচয়ন কতটা সৃজনশীল,ভাষা কতটা মনোমুগ্ধকর এবং অর্থ কতটা যৌক্তিক হতে পারে তা’ই উস্তাদ নোমান আলী খানের চিন্তাভাবনা ও আলোচনার বিষয়।
    .
    কুরআন নাযিলের পর তৎকালীন বিশ্বব্যপী বিস্তারকারী আরব সাহিত্য হয়ে যায় বিস্মৃত। কাফির-মুশরিকরা চ্যালেঞ্জ করতে এসে বিমূঢ় হয়ে যেতো। দিনরাত চিন্তা করে করে কুরআনের শৈলীতে একটা হরফ ও লিখতে পারতো না। অথচ তখনকার সময়ে আরব সাহিত্য আর কবিদের টেক্কা দেওয়ার মতো কেউই ছিলোনা। তারা বলতো, এ তো কোনো মানুষের সৃষ্টিকর্ম হতে পারেনা!
    এতো সুন্দর ভাষাশৈলী, এতো গভীর ভাবার্থ আর উপমার ঐশী অলংকরণে এই গ্রন্থ মানুষের মস্তিষ্কের ধারণক্ষমতার বাইরে।
    যিনি এই কুরআনের মালিক তিনি এমন সব উপমায় এই গ্রন্থের কথাগুলো উপস্থাপন করেছেন, যেন কেউ একবার আঁচ পেলেই এর ভেতরকার মণিমুক্তার চাকচিক্য আন্দাজ করতে পারে। প্রথম পাঠেই যেন মন থেকে ভালোবেসে ফেলে। আর ভালোবাসার জিনিসগুলোকে তো মনুষ্যকূল শর্তহীন ভাবে মেনে নেয়।
    .
    যে সত্তা ভাষা সৃষ্টি করেছেন, তার ভাষা সাহিত্য কতটা অন্তর্ভেদী, তা জানাটা আমাদের কুরআনের প্রতি ভালোবাসার তীব্রতা জাগাতে অনন্য ভূমিকা রাখে। উপমা-রূপকে অলংকৃত কুরআনের অভ্রভেদী বয়ানে হিদায়াহ’র সরলীকরণ বর্নিত হয়েছে বইটিতে। এসব শৈল্পিকতায় মুমিনরা পায় সফেদ সত্যের প্রভাতী কিরণ, আর উপমার কালো হরফে’র তেজদীপ্ত ভাস্মরে অবিশ্বাসের দেয়ালে গেঁথে দেয় বিশ্বাসের কথামালা।
    .
    |বইয়ের ইতিবাচক/নেতিবাচক দিকঃ|
    কোনো নেতিবাচকতা চোখে পড়েনি। বইয়ের বাইন্ডিং,পৃষ্ঠা কোয়ালিটি সবকিছুই উন্নতমানের প্রচ্ছদ নিয়েও কোনো অভিযোগ নেই; ভালো লেগেছে।
    .
    |পাঠ্যানুভূতিঃ| অসাধারণ একটা বই। ভাবনাগুলোকে ৩৬০° এংগেলে ঘুরিয়ে দিয়েছে। কুরআনের মুগ্ধময় শৈলীতে রবের সাথের গভীর কথোপকথনের সাধ জেগেছে। কতই না সুন্দর আমার রবের বাণী!
    ভাষাশিল্পের উপভোগ্যতায় সত্য আর শুভ্রতা অন্বেষণ করতে আপনিও কিনে ফেলুন বইটা। কুরআন সম্পর্কে জানুন, বুঝুন। রবের অনবদ্য রচনার প্রশংসায় ‘সুবহানাল্লাহ’ বলে উঠুন আরও একটিবার।
    7 out of 7 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top