মেন্যু
alimer morjada

আলিমদের মর্যাদা

পৃষ্ঠা : 88, কভার : পেপার ব্যাক
আইএসবিএন : 9789849685449
একটা সময় ছিল যখন আলিমরা শিক্ষার সঙ্গে দীক্ষাও গ্রহণ করতেন। হাতেকলমে তা বাস্তবায়নের অনুশীলন করতেন। তাঁদের উসতাজরা যখন তাঁদের ব্যাপারে স্পষ্টভাবে সত্যায়ন করতেন, তখনই কেবল তাঁদের আলিম হিসেবে গণ্য করা... আরো পড়ুন
পরিমাণ

89  120 (26% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

2 রিভিউ এবং রেটিং - আলিমদের মর্যাদা

5.0
Based on 2 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    Md.Hasibur Rahman Zaman:

    masaallh
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    মো জসিম উদ্দীন:

    নিশ্চয়ই বান্দাদের মধ্য থেকে আল্লাহকে প্রকৃত ভয় করে জ্ঞানীরা।’ [আল-কুরআন]

    একজন আলিম। ইলমের সোপান বেয়ে যিনি ইলমে নববি অর্জন করেছেন। তাঁর ইলম শিখার সাথে সাথে সেই ইলমের মূল দীক্ষা অর্জনে হয়তো চেষ্টা করেন কিংবা অনেকেই করেন না। আমাদের পূর্বসূরি আলিমগণ সে যুগের শাস্ত্রজ্ঞ আলিমগণের সান্নিধ্যে থেকে অনির্দিষ্টকাল সাধনা করে প্রথমে মৌলিক বিষয়াদি জ্ঞানার্জন করেন। সেই অর্জিত জ্ঞানকে আমলেও পরিণত করেন। কারণ, পূর্বসূরি আলিমগণ আমলবিহীন ইলমকে ইলম হিসেবে গণ্য করতেন না। মূলত একজন আলিমের গুণাগুণ ও বৈশিষ্ট্য তো আমলহীন হওয়ার কথা আদৌও চিন্তা করা যায়?!

    হজরত আনাস ইবনে মালিক রা.-এর ভাষ্য ; রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, “জমিনে আলিমগণের উদাহরণ আকাশের তারকারাজির মতো। যা দ্বারা জলে-স্থলে পথ পদর্শিত হয়। যখন তারকারাজির আলো শেষ হয়ে যায় তখন মুসাফিরের বিপথগামী হওয়ার আশঙ্কা হয়।

    বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমার ধারণা, কিছু কিছু আলিমগণের কারণে গোটা আলিম জাতি আজ হতাশার ছায়ায় আচ্ছাদিত। যার ফলে স্থলের সাধারণ জনগণ তাদেরকে নিয়ে ঠাট্টাবিদ্রুপ ইত্যাদি ট্রল নিয়েই ব্যতিব্যস্ত। অথচ একজন আলিম তার নৈতিক দায়িত্ব কী? তার সামাজিক জীবনে সাধারণ লোকদের সাথে কিরুপ আচরণ ব্যবহার তা ভুলে বসেছে। যার ফলশ্রুতিতে আজ আলিম জাতি ব্যাপক লাঞ্ছনার অধঃমুখে…।

    পূর্বসূরি আকাবিরদের মতো ইলম শিক্ষার সাথে দীক্ষার অভাবে আজ আমাদের দীন ইসলাম তাদের কারণেই অপমানিত হচ্ছে। অপমানিত হচ্ছে বর্তমান হক আলিমে সমাজ। অথচ হকপন্থী আলিমগণ জাতির অভিভাবক ও পথপ্রদর্শক, তাদের গুণ ও বৈশিষ্ট্য হবে সালাফদের গুণ ও বৈশিষ্ট্যের সমতুল্য। অথচ আজ মাদরাসার চার দেয়াল হতে ওয়াজের মাঠ- আজ সেই দীক্ষার অভাবে মৌলিক মর্যাদা হারাতে বসছে।

    একটি বর্ণনা শুনুন,

    আবদুর রহমান ইবনে জায়েদ ইবনে জাবির রহ. বলেন, আমি হজরত মাকহুল রহ. কে বলতে শুনেছি,
    “ততক্ষণ পযন্ত কিয়ামত সংঘটিত হবে না, যতক্ষণ তাদের উলামাদের অবস্থান মৃত গাধা পচার দুর্গন্ধ থেকেও বেশি দুর্গন্ধযুক্ত না হবে।”
    আজ কিছু আলিমদের অবস্থা সেই মৃত গাধা পচার দুর্গন্ধ থেকেও কম না!। কিয়ামতও সন্নিকটে আর আলিমগণের এ করুণ অবস্থাও খুবই সন্নিকটে…।

    একজন আলিম ইলমে নববি অর্জন করার পর তার জন্য কী কী বৈশিষ্ট্যসমূহ জরুরি তা এই বই পড়লেই অনুধাবন করতে পারবেন। ইনশাআল্লাহ।

    বইটি কলেবরে ছোট হলেও একজন নবীন আলিম বা প্রবীণ আলিম কিংবা ধরুন তালিবুল ইলম সবার জন্যই রয়েছে রাহনুমায়ি ও পথনির্দেশনা; যা অবলম্বন করলে এ পথের পথিকরা পেতে পারে প্রকৃকত মানজিলে মাকসুদের সন্ধান।

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top