মেন্যু
১০০০ টাকার পণ্য কিনলে সারা দেশে ডেলিভারি একদম ফ্রি।

তুরস্কের স্মৃতি

ইতিহাস ও ভ্রমণপ্রিয়দের ভালো লাগার মতো অসাধারণ ঐতিহাসিক সফরনামা ‘তুরস্কের স্মৃতি’। তুরস্ক দেশটাকে ধর্মীয়, সামাজিক, চারিত্রিক, ইলমি ও ঐতিহাসিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখতে হলে আপনাকে বইটি পড়তে হবে।

অনুবাদক: মানসূর আহমাদ
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ১১২

পরিমাণ

88.00  160.00 (45% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

1 রিভিউ এবং রেটিং - তুরস্কের স্মৃতি

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5
    Rated 5 out of 5

    :

    গত শতাব্দীর খ্যাতনামা আলেম সাইয়িদ আবুল হাসান আলী নদভীর আলেপ্পো ও তুরস্ক সফরের স্মৃতিকথা নিয়ে রচিত। অন্যান্য সফরনামার সাথে এ বইয়ের পার্থক্য হল এতে শুধু ভ্রমণকাহিনী কিংবা প্রাকৃতিক রূপবৈচিত্র্য নিয়েই আলোচনা হয়নি, উপরন্তু স্থানীয় লোকদের জীবনাচার, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় আচার ব্যবস্থা নিয়েও চিত্তাকর্ষক আলোচনা স্থান পেয়েছে।
    লেখক ১৯৫৪ সালে সিরিয়া ও তুরস্ক সফরে যান। লেখকের মধ্যপ্রাচ্য সফরের মূল উদ্দেশ্য ছিল দ্বীনকে পুনরুজ্জীবিত করা, তাবলীগের দাওয়াত দেয়া ও স্থানীয় খ্যতনামা আলেম-উলামাদের মধ্যে সুসম্পর্ক স্থাপন।
    ১৯৫০ সালে লেখকের লেখা মুসলিমদের পতনে বিশ্ব কী হারাল?’ বইটি প্রকাশিত হলে তা সম্পূর্ণ আরববিশ্বে আলোড়ন তুলে এবং লেখককে আরববিশ্বে পরিচিতি এনে দেয়। তাই চারবছর পর যখন লেখক তুরস্ক ঘুরতে আসেন তখন চারিদিকে লেখকের অনেক শুভানুধ্যায়ী ও ভক্ত ছিলেন। তথাপি এই সফরেও শুরুতে লেখককে বেশ কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়। তারপর এক সময় বিপদ কেটে যায় এবং লেখক তুরস্কের বিভিন্ন সফরে ঘুরে বেড়ান ও ঐতিহাসিক স্থান ও সমকালীন বিভিন্ন আলেমদের সাথে সাক্ষাত করে সফরকে বর্ণিল করে তুলেন।

    যে কারণে এ বই ভাল লেগেছেঃ
    ১। বইয়ের শুরুতে লেখকের আলেপ্পো সফরের বর্ণনা এসেছে। আলেপ্পোর ইলমি সমাজে লেখকের মর্যাদা ও সেখানের মসজিদে সমবেত জনতার সামনে লেখকের ওয়াজ অত্যন্ত হৃদয়গ্রাহী ছিল। আহ, সেই আলেপ্পোর এখন কত খারাপ অবস্থা!
    ২। আলেপ্পো থেকে তুরস্কে যাওয়ার পথে এবং তুরস্কে যাওয়ার পর সেখানকার সাধারণ মুসলিমদের দ্বীনি অবস্থা ও ধর্মের প্রতি তাদের আবেগ অনুভূতি লেখকের কলমে উঠে এসেছে সুনিপুণভাবে।
    ৩। তুরস্কের বিভিন্ন স্থানের ধর্মহীনতা ও আধুনিকতার নামে অশ্লীলতার প্রসার ও এর ফলে হওয়া সামাজিক কুফলও লেখক বর্ণনা করেছেন দরদের সাথে।
    ৪। তুরস্কের ঐতিহাসিক বিভিন্ন স্থান পরিদর্শনকালে লেখকের ঐতিহাসিক বিবরণ বইকে করেছে সমৃদ্ধ।
    ৫। সবচেয়ে ভাল লেগেছে সফরের সময় বিভিন্ন স্থাপনা বা অভিজ্ঞতার কথা লেখার বেলায় লেখক কুরআনের আয়াতের আলোকে প্রাপ্ত শিক্ষাও বর্ণনা করে উন্নত রুচিবোধ এবং নিজের ইলমি যোগ্যতার পরিচয় রেখেছেন। এ থেকে একজন মুসলিম সফরের সময় কেমন মানসিকতা বা চিন্তাভাবনা করবে তার রূপরেখা পাওয়া যায়।
    ৬। বইটির অনুবাদ, ফুটনোট, সম্পাদনা, পেজ কোয়ালিটি ও দাম সবকিছুই ছিল উন্নত মানের।

    Was this review helpful to you?