মেন্যু
Placeholder

তাইসিরুল ফিকহিল মুয়াসসার (আরবী)

প্রকাশনী : দারুল কলম

পৃষ্ঠা: ২৫০

পরিমাণ

100 

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
- ১৪৯৯+ টাকার অর্ডারে সারাদেশে ফ্রি শিপিং!

1 রিভিউ এবং রেটিং - তাইসিরুল ফিকহিল মুয়াসসার (আরবী)

5.0
Based on 1 review
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    ফিকহ শিক্ষার গুরুত্বঃ—

    একজন মুসলমান হিসেবে ফিকাহ শাস্ত্র অধ্যয়নের কত প্রয়োজন— তা আমরা কমবেশি সকলেই জানি। তবে জানলে কী হবে— অধ্যয়ন তো কেউ করতে চায় না। মুসলমানদের প্রায় অধিকাংশই এমন। তারা মনে করে, এত কষ্ট করে এসব শিখার দরকারটা কী? কোনো প্রয়োজন হলে হুজুররা তো আছেনই!

    এটা তাদের ব্যক্তিগত ভাবনা হলেও মূলত এটি একটি শয়তানের ধোঁকা বৈ কিছুই নয়। শয়তান তাদের অন্তরে খুব সুক্ষ্মভাবে এই ভাবনাটা ঢুকিয়ে দিয়েছে। যাতে করে অধিকাংশ মুসলমানেরই শরীয়তের বিধিবিধান সম্মন্ধে ধারণা না থাকে। এতে করে শয়তানের কাজ সহজই হয়ে যায়। কারণ, একজন আলেমকে শয়তান যে পরিমান ভয় পায়— একশোজন আবেদকেও অতটা ভয় সে পায় না। আর তাই সে চায় যেন মানুষ আলেমই না হতে পারে। (আলেমের মূল সংজ্ঞা হলো— যে ইলম চর্চা করে তাকেই আলেম বলা হয়। বাংলাদেশের প্রায় অনেকেরই এই ভুল ধারণাটা রয়েছে, দাওরায়ে হাদীস শেষ করলেই বোধহয় আলেম হওয়া যায়। না হলে না। এটা সম্পূর্ণ একটা ভুল ধারণা। আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে যাবতীয় ভুল-ভ্রান্তি থেকে রক্ষা করুন।)

    বই সম্মন্ধেঃ—

    ফিকহের ভাষা মূলত আরবি। কিন্তু— আফসোসের বিষয় হচ্ছে, আমরা অনেকেই আরবি ভাষা পারি না। অথচ, আমাদের ইসলামের যাবতীয় বিধিবিধান কিম্বা আরও যা যা আছে— সব এই আরবিতেই রচিত। কুরআন ও হাদিসও এর ব্যতিক্রম নয়। অতএব, একজন মুসলমান হিসেবে আমাদের আরবি ভাষাটা শিক্ষা করাও অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

    এই কিতাবটি ফিকাহ শাস্ত্রের প্রাথমিক পর্যায়ের একটি আরবি কিতাব। এর মূল রচয়িতা হলেন, “আল্লাম শফিকুর রহমান নাদাবী”। তার কিতাবটির নাম মূলত ‘আল ফিকহুল মুয়াসসার’। আর এটিকে একটু সহজকরণ ও অনুশীলন যুক্ত করেছেন আমাদের “আদীব হুজুর হাফি.”। অতঃপর তিনি এর নাম দিয়েছেন ‘তাইসীরুল ফিকহিল মুয়াসসার’।

    যা আছে বইটিতেঃ—

    এতে রয়েছে ‘শব্দার্থ ব্যবস্থা’— মানে প্রতি পৃষ্ঠার নিচে উক্ত পৃষ্ঠায় আগত কিছু নতুন ও কঠিন শব্দগুলোর বাংলা অর্থ দেওয়া হয়েছে। যাতে করে তালিবে ইলম পড়তে গিয়ে হোঁচট না খায়।

    প্রতি পাঠের শেষে রয়েছে প্রশ্নমালা— যার মাধ্যমে তালিবে ইলমকে ঝালিয়ে নেওয়া যায়।

    এছাড়া বেশ কিছু মাসআলাকে এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। কারণ, যেহেতু এটি ফিকহের প্রথম পর্যায়ের একটি কিতাব সেহেতু ছোটরাও এই কিতাবের দরসে অংশগ্রহণ করে। ফলে হিতে বিপরীত হওয়ার আশংকাই বেশি থাকে। আর তাছাড়াও পরবর্তীতে তারা এই বিষয়ে ভালোভাবেই জানতে পারবে। তাই লেখক সেগুলো এড়িয়ে গিয়েছেন।

    আমার ব্যক্তিগত অভিমতঃ—

    এ কিতাবটি পড়ে আমি আল্লার রহমতে বেশ উপকৃত হয়েছি। ফিকাহ শাস্ত্র আমার কাছে একটু কষ্টসাধ্য মনে হলেও দ্বীনের খাতিরে তা অধ্যয়ন করার চেষ্টা করছি। আর যেহেতু আরবি ভাষা শিখছি তাহলে এগুলোও আমার আরবিতেই পড়া উচিত। এসব সাতপাঁচ ভেবেই তারপর শুরু করেছিলাম কিতাবটি। আল্লাহর রহমতে লেখকের সহজাত উপস্থাপনের জন্য আমার অত একটা কষ্ট মনে হয়নি।

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top