মেন্যু
১০০০ টাকার পণ্য কিনলে সারা দেশে ডেলিভারি একদম ফ্রি।

সন্তান স্বপ্নের পরিচর্যা

একটি সন্তানকে শুধু খাইয়ে-পরিয়ে বড় করলেই দায়িত্ব শেষ হয় না। পোষা প্রাণীর ক্ষেত্রে এটা যথেষ্ঠ হতে পারে, কিন্তু মানব-সন্তানের জন্য এতটুকুই যথেষ্ট নয়। একটি শিশুকে আদর-যত্ন-ভালোবাসা দিয়ে লালন-পালন করতে হয়। সমাজে তার স্থান সম্পর্কে ধারণা দিতে হয়। সাফল্য লাভের উপায়গুলো শিখিয়ে দিতে হয়। তার দায়িত্ব-কর্তব্য সম্পর্কে তাকে সচেতন করে গড়ে তুলতে হয়। প্রতিটি শিশুকেই এ বিষয়গুলো শিক্ষা দেওয়া প্রয়োজন; তবে মুসলিম শিশুদের জন্য এর প্রয়োজনীয়তা আরও অনেক বেশি, অনেক…। আমাদের এ বইটি আমাদের সন্তান প্রতিপালন ও পরিচর্যা নিয়ে। লিখেছেন মির্জা ইয়াওয়ার বেগ। দুনিয়াকে তিনি ব্যবসায়ীর নির্মোহ চোখে দেখেছেন, ধর্মের নির্ভুল দণ্ডে ব্যবচ্ছেদ করেছেন। অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন, উপদেশ দিয়েছেন। কখনও কঠিনভাবে; কখনও কোমলভাবে। উভয়টাই আমাদের কল্যাণের জন্য—সেই জীবন ও এই জীবনের।

পরিমাণ

136.00  195.00 (30% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

2 রিভিউ এবং রেটিং - সন্তান স্বপ্নের পরিচর্যা

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5
    Rated 5 out of 5

    :

    বইঃ সন্তান : স্বপ্নের পরিচর্যা
    লেখকঃ মির্জা ইয়াওয়ার বেইগ
    ভাষান্তরঃ জিম তানভীর, মোদাসসের বিল্লাহ তিশাদ, সানজিদা শারমিন
    পৃষ্ঠা সংখ্যাঃ ৯৬
    প্রকাশনীঃসিয়ান পাবলিকেশন

    গতানুগতিক প্যারেন্টিং বইয়ের চাইতে একটু ভিন্ন ধর্মী মনে হয়েছে বইটি। কিছু বাস্তবতার কথা লেখক খুব স্পস্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন। বুদ্ধিবৃত্তিক অনেক খোরাক পেয়েছি বইটি থেকে। সন্তান পালন যে আসলেই কঠিন কাজ, শুধু খাওয়ানো পড়ানোটাই প্যারেন্টিং না এটা ভালভাবে মনের মধ্যে গেথে গেছে বইটি পড়ে।

    ইসলামের ধারক ও বাহক হিসাবে এক একজন সন্তানকে গড়ে তোলার পথ দেখিয়েছেন লেখক। একটি পরিবারের সদস্য হওয়ার সাথে সাথে ঐ সন্তান একটি ইসলামী সমাজের সদস্য, মুসলিম উম্মাহ এর একজন এক্টিভ মেম্বার, গুরুত্বপূর্ন তাঁর অবস্থান। ইসলামকে একটি পূর্নাংগ জীবন বিধান হিসাবে জানা, মানা, ও প্রতিষ্ঠাকামী করে গড়ে তুলতে হবে তাঁকে।

    সন্তানকে সাহস দিতে হবে, সাবলম্বি করে তুলতে হবে, ঝুকি নিতে পারার মত ক্যাপাবল করে তুলতে হবে।

    সন্তান বেসিক তৈরি করতে তাঁকে আল্লাহর সাথে সম্পর্ক কে ভালভাবে বুঝাতে হবে। ভালোবাসা ও ভয়ের এক সংমিশ্রন সহকারে আল্লাহর সাথে তাকে পরিচয়য় করিয়ে দিতে হবে। নবী মুহাম্মাদ (স) কে বানাতে হবে তাঁর আদর্শ।

    লেখক মূল কয়েকটি গুন সন্তানের মধ্যে আনায়নের চেষ্টায় রত হতে বলেছেন ও কিছু দিক নির্দেশনা দিয়েছেন। মানবতার প্রতি অবদান রাখার জন্য সন্তানকে তৈরি করার দিকে উতসাহ দান হলো বইয়ের শেষ অধ্যায়। বেশ আবেগ ও উপদেশ সহকারে লেখক বইটি লিখেছেন

    # রেটিংঃ ৯/১০

    Was this review helpful to you?
  2. 4 out of 5
    Rated 4 out of 5

    :

    অন্য যে কোনো বিষয়ে মানুষের আগ্রহ/চিন্তা থাক বা না থাক, নিজের সন্তানের ব্যাপারে চিন্তা প্রত্যেক বাবা-মা মাত্রই থাকে। নিজে মানুষ হিসেবে যেমনই হন না ক্যানো, প্রত্যেক বাবা-মা ই নিশ্চয়ই স্বপ্ন দেখেন তাঁদের সন্তানকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার। এই বইটা সেদিক থেকে সকল বাবা-মা অথবা হবু বাবা-মা র জন্য একটি সংক্ষিপ্ত দিকনির্দেশনা মাত্র!

    মুসলিম বিশ্বে ‘শিশু প্রতিপালন’ বিষয়ে কাজ করতে গিয়ে সন্তান পালনের ব্যাপারে তরুণ বাবা-মায়ের যেসব প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন লেখক, সেগুলোর উত্তরের একটা সংকলন হচ্ছে লেখকের ‘Raising a Muslim Child’ বইটা যার বাংলা অনুবাদ এই বই।

    ‘আপনার জীবনের অনুকরণীয় আদর্শ কে? আপনাদের কতজনের কাছে আপনার আদর্শ ব্যক্তিত্ব হলেন আপনার বাবা কিংবা মা?’ – এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে লেখক দেখেছেন ৯৫% মানুষের অদর্শ ব্যক্তিত্ব তাদের বাবা-মা নন! অথচ সন্তান প্রতিপালনে সবচেয়ে বেশি আত্মত্যাগ করে থাকেন বাবা-মা। বিষয়টা দুঃখজনক হলেও সত্যি, যার দায়ভার বাবা-মা কখনোই এড়াতে পারেন না।

    লেখক এই বইতে সন্তান পালনের ব্যাপারে নির্দেশনা দিয়েছেন মূলত পাঁচটি পয়েন্টের ভিত্তিতে – ইসলামের ধারক ও বাহক হিসেবে সন্তানের নিজের পরিচয়, আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের সাথে সন্তানের পরিচয় ও সম্পর্ক, আর শেষে আল্লাহর অফুরন্ত ভান্ডারের সন্ধান এবং মানবতার প্রতি অবদান রাখা।
    তবে ‘আল্লাহ-রাসূলের সাথে পরিচয় ও সম্পর্ক’ – এই বিষয়ে লেখক আলোচনা করেছেন একটু বিস্তারিতভাবেই, যা পড়তে পড়তে হঠাৎ হঠাৎ বিষয়ের সাথে অপ্রাসঙ্গিক লাগলেও লেখক আবার মূল বিষয়ে ফিরিয়ে এনেছেন পাঠককে।

    শেষে যা বলতেই হয়, সন্তানকে শুধু খাইয়ে-পরিয়ে বড় করলেই দায়িত্ব শেষ হয় না।এটা পোষা প্রাণীর জন্য যথেষ্ট হতে পারে,কিন্তু মানব-সন্তানের জন্য না।
    সন্তান মাত্রই তার অধিকার আছে নিজের বাবা-মা কে আদর্শ হিসেবে পাওয়ার। আর শিশুরা যেহেতু অনুকরণপ্রিয়, তাই বাবা-মা চান বা না চান, শিশুরা তাদের দেখে শিখতে শিখতেই বড় হয়। আর আপনি বাবা/মা হিসেবে কেমন আদর্শ হতে চান, তা সম্পূর্ণ আপনার ওপরই নির্ভর করছে।

    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?