মেন্যু
১০০০ টাকার পণ্য কিনলে সারা দেশে ডেলিভারি একদম ফ্রি।

সন্ধান

প্রকাশনী : সমর্পণ প্রকাশন

সম্পাদনা: সমর্পণ টিম
মোট পৃষ্ঠা : ১৪৪

গল্প-উপন্যাসে এমন কিছু চরিত্র থাকে, যেগুলো অজান্তেই দাগ কেটে চায় পাঠকের মানসপটে। নাড়িয়ে দেয় চিন্তার জগৎকে। পাঠককে নতুন করে ভাবাতে বাধ্য করে। সন্ধানীও তেমন একটি চরিত্র। তবে এটি গল্প-উপন্যাসে বর্ণিত নায়িকার মতো কোনো চরিত্র নয়। এই চরিত্র প্রতিনিধিত্ব করেছে সত্যান্বেষী এক নারীর। যে নারী সেক্যুলার শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে এবং সনাতন পরিবারে জন্ম নেওয়ার পরেও গতানুগতিক ধারায় পরিচালিত করেনি নিজেকে। আর আট-দশটা সনাতন ধর্মাবলম্বীর মতো চোখ বন্ধ করেই মেনে নেয়নি সনাতন ধর্মের প্রচলিত রীতি-নীতিকে। আশ্রয় নেয়নি মূর্তিপুজো নামক সনাতন পৌত্তলিকতার। সে খুঁজে বেড়িয়েছে সত্যকে। সন্ধান করেছে মুক্তির পথ। কল্যাণের পথ।
এ পথে সে বাঁধার সম্মুখীন হয়েছে বহুবার। হাসি-ঠাট্টার শিকার হতে হয়েছে তাকে, শুনতে হয়েছে নিকটাত্মীয়ের গালমন্দ, সইতে হয়েছে বন্ধু-বান্ধবদের তাচ্ছিল্য, তবুও সে হাল ছাড়েনি। সত্যকে খুঁজে নেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেছে সে।
কিন্তু শেষ পর্যন্ত সন্ধানী কি সত্যকে খুঁজে পেয়েছিল?
সনাতন ধর্মের পৌত্তলিক রীতিনীতি ছেড়ে দিয়ে সত্য ধর্মের দিকে ফিরে আসতে পেরেছিল?
পেরেছিল কি সংশয়ের আঁধার কাটিয়ে ওঠে সত্যের আলোয় অবগাহন করতে?
জানতে হলে পড়ুন “সন্ধান” বইটি।

পরিমাণ

152.00  217.00 (30% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

5 রিভিউ এবং রেটিং - সন্ধান

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    আলহামদুলিল্লাহি ওয়াস সালাতু ওয়াস সালামু ‘আলা রাসূলিল্লাহ।

    আসমান যমীন পরিপূর্ণকারী সমস্ত প্রশংসা ও কৃতজ্ঞতা শুধু আল্লাহর। ভোরের শিশির আর অবিরাম বৃষ্টির মত রহমত ঝরে পড়ুক আমার রাসূলের উপর।

    কথা বলা খেলনা তো মনে হয় আমরা সবাইই দেখেছি। না দেখলেও অ্যান্ড্রয়েড ফোনের যামানায় “টকিং টম” তো অন্তত সবার দেখা আছে বলে মনে হয়। আচ্ছা, কথা বলা পুতুল বা মোবাইল অ্যাপ তো দেখেছেন, কিন্তু কথা বলা বই কি দেখেছেন কখনো? ছোট্ট একটা বই নিয়ে কথা বলবো আজ, যে বইটি কথা বলতে পারে, আপনাকে দিয়ে কথা বলিয়েও নিতে পারে। কি ঝরঝরে তার লেখা, কি সহজ অথচ কত আকর্ষণীয় তার বর্ণনাভঙ্গী!

    বলছিলাম জনপ্রিয় ফেসবুক পেইজ @হুজুর হয়ে-র দ্বিতীয় বই “সন্ধান” এর কথা। আমার ফেসবুক লাইফে এর চেয়ে ভালো কোন গল্প আমি পড়িনি, এটা আমি নির্দ্বিধায় বলতে পারি। এমনকি অনলাইনের বাইরেও অনেক গল্প পড়েছি আমি, মনের মধ্যে আসন গেড়ে বসার মত যে কয়টা পেয়েছি, সেগুলোর মধ্যেও সন্ধান আমার কাছে এক নাম্বারে থাকবে। এখন এতে কারো খটকা লাগতে পারে অনেকের। রিভিউ যখন দিতে বসেছিই, তখন মোটামুটি ভেঙেচুরেই এর কারণ বলবো ইনশাআল্লাহ। চিন্তার কারণ নেই!

    বইটা নিয়ে লিখতে বসে আমার উপর আবেগ ভর করে বসছে। এখন যদি আবেগের ভেলায় চড়ে বসি, তবে এই রিভিউ “যদি শেষ না হতো” মুডে চলে যাবে! অতএব, আবেগের ভেলায় চড়ার আকর্ষণকে কষ্টেসৃষ্টে সরিয়ে রেখে লিখছি, পাঠক। পড়বেন কিন্তু মাস্ট!

    সন্ধানের কাহিনী সংক্ষেপে বলি: সন্ধানী সেন। হিন্দু ঘরের মেয়ে। কিন্তু নামের চূড়ান্ত সার্থকতা দিয়ে সে তার যাপিত জীবনের আঁকেবাঁকেই খুঁজে বেড়াতে থাকে সত্যকে। এটা দেখে, ওটা দেখে, যাচাই বাছাই করে, প্রশ্ন, তর্ক, বিতর্ক, ভাবনা, লেখালেখি চালিয়ে যায় একের পর এক। সত্যের এই সন্ধান চলেছে গল্পের প্রথম থেকে একেবারে শেষ পর্যন্ত, যার শেষ হয় সন্ধানীর ট্র্যাজিক মৃত্যুতে। সত্যের প্রতি তার এই তীব্র ভালোবাসা আর একনিষ্ঠতা তার সন্ধানকে দেয় এক অনুপম সুষমা, যার মধ্যে দিয়ে তার মৃত্যু হয়ে ওঠে অন্যরকম এক সুন্দর।

    তো এই হচ্ছে সংক্ষেপে কাহিনী। অনেকেই হয়তো স্পেশালিটি বুঝতে পারছেন না। তাদের জন্য এই কলাম। কেন সন্ধানীর চরিত্র আমার এতো বেশি ভালো লেগেছে, কেন এই বইটিকে আমি কথা বলা আর কথা বলানো বই বললাম, কেন আর কিভাবে সন্ধান আমার অন্তর জয় করে নিয়েছে, এই সবকিছু পাঠক, আপনাদের বলবো অল্প কিছু পয়েন্টে। ফোকাস প্লিজ!

    ১। সত্যযাত্রা: এ এক অনির্বচনীয় অনুভূতি! পৃথিবীতে মানুষের সফরের তো শেষ নেই, কিন্তু সত্যের পথে যে সফর, যে যাত্রা তার চেয়ে অপরূপ কিছু কি আর আছে? নেই, স্রেফ নেই! একটা মানুষ কতখানি মানুষ হয়ে উঠলে সত্যের খোঁজে সে তার মন-দিল, সূকুন সব উৎসর্গ করে দেয়, সেটা বোঝানোর ভাষা আমি অন্তত জানি না। এটা বলার বিষয় নয়। অনুভবের বিষয়। এই টপিকের উপর হোক সেটা সত্য ঘটনা, অথবা গল্পকথা – সেটা সুন্দরের অনুপম এক আঁকর হয়ে উঠবেই উঠবে।

    ২। প্লট নির্মাণ: গল্পের প্লট হচ্ছে তার দেহসত্ত্বা। ওটা যে লেখক যত সুন্দর করে বানাতে পারে, তার গল্প পাঠকের সাথে তত বেশি সম্পর্ক বানাতে পারে। সন্ধানের লেখক বা লেখকবৃন্দ এতো নিপুণ প্লট বানিয়েছেন গল্পের আর সেইসাথে মেইন প্লটের ভেতরে যেরকম সাবলীলতায় বিভিন্ন সাবপ্লট জায়গা করে নিয়েছে, প্রত্যেকটা প্লট যেভাবে একের সাথে আরেক জুড়ে আছে, সেটা আসলে গল্প না পড়লে বোঝা মুশকিল!

    ৩। কাহিনীর প্রাঞ্জলতা: আমি সাস্টের ছাত্র। বইয়ে গল্প শুরু হয় সন্ধানীর ভার্সিটি লাইফ থেকে। এই সারাটাক্ষণ আমার কেবলই মনে হচ্ছিল এই সবকিছু যেন সাস্টের সবুজ প্রাঙ্গনে, তার একাডেমিক বিল্ডিং এর মধ্যে ঘটা। এতোটাই সাবলীল আর প্রাণবন্ত ভঙ্গীতে পুরোটা গল্প একের পর এক ধাপ ধরে ধরে এগিয়ে গেছে যে, আমার খালি মনে হয়েছে যেন চোখের সামনে ঘটছে সবকিছু। সবুজ সরণিকে মনে হয়েছে সাস্টের ঘাসে ঢাকা কোন আড্ডাখানা, বিভিন্ন প্রোগ্রাম আর ফেস্টের বর্ণনায় সাস্টের প্রোগ্রাম যেন জীবন্ত হয়ে উঠেছে, অডিটরিয়ামে স্বাধীনতা দিবসের বক্তৃতা যেন আমি নিজের কানেই শুনছি, তাও আবার সাস্টের মিনি অডিতে বসে! আশ্চর্য, কি আশ্চর্য! এতোটা জীবন্ত বর্ণনাভঙ্গী!

    ৪। চরিত্র চিত্রণ: এই পয়েন্টে ব্যাখ্যা করবো না, স্রেফ উদাহরণ দিয়ে যাবো। কারণ ইশারাই কাফি! একুশের প্রোগ্রামে সন্ধানীর অডিটরিয়ামে যাওয়া, সেখানে উপস্থাপিকা বান্ধবীর পীড়াপীড়িতে বক্তৃতা দেওয়া, বক্তৃতা শেষে তুমুল করতালি, বন্ধুদের কংগ্রাচুলেশন, সবুজ সরণিতে নাস্তিক সিনিয়র জুনিয়র আর সমবয়সীদের সাথে তুমুল তর্ক চালিয়ে যাওয়া, বাড়িতে মায়ের সাথে তার কথা, হলে কিংবা বাসায় বান্ধবীর সাথে আলাপ আলোচনা – কোনটা ছেড়ে কোনটা বলি! এমনকি, এই মূহুর্তে, যখন স্রেফ উদাহরণ টানছি তখন লেখার সাথে সাথে প্রত্যেকটা দৃশ্য যেন আমার চোখে ভেসে ভেসে উঠছে। এই পুরো যাত্রায় সন্ধানীর ঠিক পাশেই নিজেকে আবিষ্কার করেছি আমি, এক অদৃশ্য সত্ত্বার মত সারাক্ষণ নীরবে তাকে দেখে গেছি! শুধু যে মূল চরিত্র হিসেবে সন্ধানীকেই এতোটা বাস্তব লেগেছে, তা নয়। বরং পার্শ্ব চরিত্রগুলোও একইভাবে উজ্জ্বল, বাস্তব আর প্রাণবন্ত হয়েছিল গল্পের যেখানেই তারা আসুক না কেন।

    ৫। ঠিক যেন গল্প নয়: গল্প হলেও ঠিক যেন গল্প নয় “সন্ধান”। সন্ধান নাস্তিকদের জবাবি বা ভুল ধারণার খন্ডন টাইপ কোন বই নয়। গল্পের স্রোতে এসেছে বহু কথা, কিন্তু বাস্তবতার সাথে তার এতো মিল যে গল্প বলে মনেই হয় না। মনে হয় যেন সত্যিকারের কারো ঘটনা পড়ছি। সাজিদ, আরজু, ফারিস বা ডাবল স্ট্যান্ডার্ডের মত বইগুলোতে দেখবেন সেন্ট্রাল ক্যারেক্টার তুখোড়, অপ্রতিদ্বন্দ্বী। এ নিয়ে অবশ্য আপত্তির কিছু নেই, ওই ধারার গল্পের দাবিই ওটা। ওখানে লেখক যা বলতে চান সেটা তার কেন্দ্রীয় চরিত্রের মুখ দিয়ে বলিয়ে নেন। কিন্তু আমাদের এই বইয়ে সন্ধানী তুখোড় হলেও অপ্রতিদ্বন্দ্বী নয়। বাস্তবে আমাদের সাথে যেভাবে ঘটে, যেভাবে প্রতিপক্ষের থোঁতা মুখ আমরা চাইলেই ভোঁতা করে দিতে পারি না, যেভাবে আমাদের এক আঘাতেই শত্রুবধ হয়ে যায় না, এই গল্পেও সেটা হয় নি। সন্ধানী এখানে খালি জেতেনি, হেরেছেও। কিন্তু হেরে যাবার পর যেভাবে সে ফিরে এসেছে, যেভাবে খুব, খুব সাধারণ জিনিসের মধ্যে যে খুঁজে ফিরেছে অসাধারণকে, যেভাবে সে সহজ জীবনের মধ্যেই সন্ধান করেছে এক মহাসত্যের, সেটা বাস্তবতার সাথে এতোটাই রিলেট করতে পেরেছে যে এই গল্প ঠিক গল্প থাকে নি। হয়ে উঠেছে গল্পের চেয়েও আরো একটুখানি বেশি!

    ৬। সাহিত্যমান: নিশ্চিত, পাঠক বিরক্ত হয়ে গেছেন। কি রে বাবা, বললো অল্প লিখবে। এখন দেখি লিখতেই আছে,লিখতেই আছে! মাফ চাই, দু’আও চাই। তাই খালি এটুকু বলি, এতোক্ষণ যা বললাম তাতে সাহিত্যমান ঠিক কতটুকু হতে পারে বলে আপনার ধারণা? আমি বলবো না, আপনি সেটা পড়েই যাচাই করে নেবেন। ঠিকাছে?

    আর হ্যাঁ, বইয়ের রিভিউ যেহেতু তাই নেগেটিভ কিছুও বলতে হয়। বইটা এতো বেশি ভালো যে অল্পসময়ে শেষ হয়ে যাবে। খুব খারাপ, খুব! শেষটায় পাঠকের মন খারাপ করে দেওয়ার মত নৃশংস কাজও করতে কসুর করেন নি গুমনাম লেখক। ব্যাপক খারাপ! আর প্রচ্ছদটা এতোটা স্নিগ্ধ যে মন ভালো হয়ে যেতে চায়, এটাও খারাপ হইসে। দুঃখিত, আর নেগেটিভ কিছু বলতে পারলাম না!

    ওহ হ্যাঁ! এই বই আমাকে মনে করিয়ে দিয়েছিল সেই একাকী সত্যসন্ধানীর কথা। যাইদ বিন আমর বিন নুফাইল। যিনি ছিলেন একাই এক উম্মাহ, ঠিক যেমনটা ছিলেন আমাদের পিতা! সন্ধানীও তাঁদের মতোই পথ চিনে নিতে ভুল করেনি! সন্ধানী চিনে নিয়েছে সত্যিকার সনাতনকে, ফিরে গেছে আসল সনাতনের পথে।

    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
  2. 5 out of 5

    :

    “সন্ধান” is a series of stories of someone called সন্ধানী (literal translation: Seeker) who has a lot of questions about faith and is always seeking answers.

    Shortly after taking the photo of my mid-review, I finished reading the book, so here are my afterthoughts:

    Along with the main character, I, too, got to learn about several debated or interesting topics and much more about ourselves as human beings on this journey towards the truth.
    I can’t thank them enough, the author(s) and all the people related to the project to bring this book to publication and consequently, to us, the readers.

    I have not rated a book 5 out of 5 stars in a long while. If I could, I would give it a 6 out of 5, if only for the brilliantly clever and wise way the themes and stories were organized.

    I do have mixed feelings about the ending, but I really do hope the stories continue.

    Was this review helpful to you?
  3. 5 out of 5

    :

    শেষ হয়েও হলো না শেষ। সন্ধানীর যাত্রা আপনাকে আলোকিত করবে।
    Was this review helpful to you?
  4. 5 out of 5

    :

    বিসমিল্লাহ্‌।। কি বলবো জানি না।। তবুও বলতে চাই।। একটা কথা নিশ্চিত, বইটা পড়ার শুরুতে কখনোই ভাবিনি পড়া শেষে আমার মুখ জুড়ে হাঁসির বদলে, চোখ ভরা অশ্রু থাকবে, আর অন্তরটা পূর্ণ হয়েও হাহাকার করবে। এই বইটার কিছু প্রবন্ধ হয়তো অনেকের পক্ষেই বুঝতে বেশ কষ্টকর মনে হতে পারে, তবুও সেগুলো বুঝে নিয়ে আগাতে পারলে আশা করি সবাই কিছুটা হলেও নতুন সত্যের সন্ধান পাবেন। ইনশা’ আল্লাহ্‌।। আমি আশাই করিনি যে আমি নিজে এত কিছু জানতে পারবো, বুঝতে পারবো, নিজের মনের লুকায়িত অসংখ্য প্রশ্নের উত্তরের সন্ধান এখানে মিলবে। ভেবেছিলাম আরেকজনকে সত্যের সন্ধান করতে দেখে নিজের মনের সত্যটা আরও মজবুত হবে, কিন্তু আরও সত্যের সামনাসামনি এসে দাঁড়িয়ে আমার অন্তরের সত্যটা আরও পরিশুদ্ধ হবে ভাবতেই পারিনি।
    “সন্ধানী” চরিত্রটির কথা বলে শেষ করা যাবে না। একটা বাক্যে বলতে গেলে, আমার প্রিয় একটি চরিত্রে পরিণত হয়েছে সন্ধানী, যার বা যাদের সাথে আমি বন্ধুত্ব করতে চাই আর তাদেরই মত আমিও সত্যের সন্ধানে জীবন কাটাতে চাই।
    বইটি পড়ে বহু কিছু উপলব্ধি করতে পেরেছি। আলহামদুলিল্লাহ্‌।।
    মাশা’আল্লাহ… এমন একটি বই আমাদের সামনে আনার জন্য লেখক ও প্রকাশকদের আল্লাহ্‌ দুনিয়া ও আখিরাতে কল্যাণ দান করুন। জাযাকুমুল্লাহু খাইরান।।
    আল্লাহ্‌ আমাদের সকলকেই সত্যের সন্ধান দান করুন আর সত্য পথে চলার তাওফিক দান করুন। আমীন।।
    Was this review helpful to you?
  5. 5 out of 5

    :

    অসাধারন বই। একজন অবিশ্বাসীর বিশ্বাসের পথে যাত্রা। তুখোড় যুক্তিবোধ আর স্রোতে গা না ভাসিয়ে দেয়ার মত মানসিকতা। এ দুইয়ে মিলে ‘সন্ধানী’ চরিত্র হয়ে উঠেছে সত্যিকারেই একজন সত্য সন্ধানী। আর গল্পের শেষ অংশটুকুর কথা নাই বলি। নিজে পড়লেই বুঝবেন। হয়ত চোখে কোনে পানিও চলে আসতে পারে। Highly recommended book.
    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?