মেন্যু
sohi vabe quran shikkha tajweed

সহিহভাবে কুরআন শিক্ষা তাজওইদ

সম্পাদক : আবদুল্লাহ আল মাসউদ
পৃথিবীর সবচে শ্রেষ্ঠ গ্রন্থ হলো পবিত্র কুরআনুল কারীম। আর এই গ্রন্থ সহিহ ও শুদ্ধভাবে পড়ার মাধ্যম হলো তাজওইদ সম্পর্কে অবগত থাকা। এটি মূলত ইলমুল কিরাতের সাথে সম্পর্কিত। এই শাস্ত্রের সাথে... আরো পড়ুন
পরিমাণ

107  147 (27% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

3 রিভিউ এবং রেটিং - সহিহভাবে কুরআন শিক্ষা তাজওইদ

4.7
Based on 3 reviews
5 star
66%
4 star
33%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
Showing 2 of 3 reviews (5 star). See all 3 reviews
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    reaz0313:

    #ওয়াফিলাইফ_পাঠকের_ভাল_লাগা_জুন_২০২০
    #পাঠ_প্রতিক্রিয়া

    সহিহভাব

    তাজওইদ।
    কুরআনের শিক্ষার্থীদের কাছে অতি পরিচিত একটা শব্দ। শব্দই শুধু নয়, এটা ইলমের এমন এক প্রতিষ্ঠিত শাস্ত্র যা সরাসরি কুরআনুল কারীমের সাথে সম্পর্কিত। গুরুত্বের বিবেচনায় ‘তাজওইদ’কে কুরআনের চাবি বললেও অত্যুক্তি হবে না।

    মূলত তাজওইদ এমন এক শাস্ত্র যা কুরআন মাজীদ বিশুদ্ধভাবে তিলাওয়াত করার প্রক্রিয়া ও এ সংক্রান্ত যাবতীয় বিধানাবলি নিয়ে সম্যকভাবে আলোচনা করে। বলা যায়, তাজওইদের জ্ঞান ব্যতীত কুরআন মাজীদ শুদ্ধভাবে তিলাওয়াত করা অসম্ভব। এদিক দিয়ে বিবেচনা করলে এ শাস্ত্রকে কুরআন পাঠের ব্যাকরণও বলা যেতে পারে।

    কুরআন বিশুদ্ধভাবে তিলাওয়াত না করলে এর হক্ব আদায় করা হয় না। আর কুরআনের হক্ব আদায় করতে না পারলে এ তিলাওয়াত থেকে ফায়দা লাভ করার চিন্তা শুধুই দুরাশা। কারণ, অশুদ্ধ তিলাওয়াতে কখনোই কুরআনের নূর ক্বলবকে আলোকিত করবে না। তাই কুরআন শুদ্ধভাবে তিলাওয়াতের নিমিত্তে ‘তাজওইদ’ এর জ্ঞান অর্জন প্রত্যেক মুসলিমের জন্যই অপরিহার্য। আর সে জরুরতকে সামনে রেখেই অত্যন্ত সরল ভাষায় রচিত হয়েছে “সহিহভাবে কুরআন শিক্ষা: তাজওইদ” বইটি।

    বইটিতে যা আছে____________
    বইটিকে মোট ১৪ টি অধ্যায়ে ভাগ করে তাজওইদের নানা বিষয়বস্তুকে ক্রমান্বয়ে তুলে ধরা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ের আলোচনায় প্রথম ৫ টি অধ্যায়ে তাজওইদের একেবারে প্রাথমিক স্তরের আলোচনা করা হয়েছে। যাতে রয়েছে-
    তাজওইদের পরিচয়,
    তিলাওয়াতের প্রকারভেদ,
    আল-ইস্তিয়াজাহ,
    আল-বাসমালাহ ইত্যাদির পরিচয় ও বিধিবিধান।

    দ্বিতীয় পর্যায়ের আলোচনায় ৬ষ্ঠ থেকে ১৩শ অধ্যায়ে স্থান পেয়েছে তাজওইদের মৌলিক বিষয়গুলো; যেখানে পর্যায়ক্রমিকভাবে আলোচিত হয়েছে-
    মাখরাজ,
    সিফাত,
    নূন সাকিন,
    তানওইন,
    তাফখিম,
    তারকিক,
    ওয়াকফ,
    ইবতিদা ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো।

    তৃতীয় পর্যায়ে শুধু একটি অধ্যায়ে অর্থাৎ ১৪শ অধ্যায়ে কুরআন মাজীদে ব্যবহৃত ওয়াকফ চিহ্নসমূহের বিবরণ দেয়া আছে।

    কেন পড়া উচিত____________
    তাজওইদের মতো একটি জটিল বিষয়কে সহজ ভাষায়, বোধগম্য পদ্ধতিতে এবং যথেষ্ট সরলীকরণ করে লেখিকা উপস্থাপন করেছেন এ বইতে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে এখানে যেমন অনেক খুঁটিনাটি আলোচনা বাদ দেয়া হয়েছে, তেমনি বোঝার সুবিধার জন্য আলোচনার মাঝে উপযুক্ত স্থানে টেবিল, চার্ট ও চিত্র সন্নিবেশিত হয়েছে । উপরন্তু সহজে দৃষ্টিগোচর করার জন্য এবং গুরুত্ব বোঝাবার জন্য পুরো বইতেই হরফগুলোতে লাল কালি ব্যবহার করা হয়েছে- যা উপস্থাপন দক্ষতাকে বাড়িয়েছে বহুগুণ। প্রতিটি অধ্যায়ের শেষে শিখনফল যাচাইয়ের নিমিত্তে উল্লেখ করা হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্নও।

    আরো কিছু কথা____________
    সংক্ষিপ্ত কলেবরের এ বইটি মূলত প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের জন্যই রচিত। আর সে কারণেই এতে বিস্তারিত কোন আলোচনা স্থান পায়নি। তবে এক্ষেত্রে একটি বিষয় লক্ষণীয়- বইটি নিজে নিজে পড়ে তাজওইদ শেখার জন্য নয়। বইটির প্রাথমিক পর্যায়ের আলোচনাগুলো অর্থাৎ প্রথম ৫ টি অধ্যায় নিজে পড়ে বোঝা সম্ভব হলেও বাদবাকি অধ্যায়গুলো ভালোভাবে বুঝতে হলে অবশ্যই কোন উস্তাযের শরণাপন্ন হতে হবে। কারণ, তাজওইদ নিজে নিজে পড়ার মতো কোন শাস্ত্র নয়। যেহেতু ইলমের এই শাখায় উচ্চারণ ও উচ্চারণ স্থান ইত্যাদি ব্যাপার অতি গুরুত্বের সাথে আলোচিত হয়, তাই প্রত্যেক সচেতন শিক্ষার্থীরই উচিত হবে একজন যোগ্য উস্তাযের কাছে এ বইটি থেকে নিয়মিত তা’লিম নেয়া। তবেই তাজওইদের পূর্ণ শিখনফল অর্জিত হবে ইনশা আল্লাহ।

    কুরআনের ইলম অর্জনের একেবারে শুরুর ধাপ হিসেবে সবারই তাজওইদের জ্ঞান থাকাটা অপরিহার্য। তাই, তাজওইদের প্রাথমিক জ্ঞানলাভের জন্য যেকোনো সাধারণ শিক্ষার্থীরই উচিত বইটি সংগ্রহে রাখা।

    7 out of 7 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    শাফায়াত:

    আলহামদুলিল্লাহ। বইটি ভালো এবং সহজবোধ্য। অযথা কথার ফুলঝুরি নেই।
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top