মেন্যু
sohi vabe quran shikkha tajweed

সহিহভাবে কুরআন শিক্ষা তাজওইদ

সম্পাদক : আবদুল্লাহ আল মাসউদ
পৃথিবীর সবচে শ্রেষ্ঠ গ্রন্থ হলো পবিত্র কুরআনুল কারীম। আর এই গ্রন্থ সহিহ ও শুদ্ধভাবে পড়ার মাধ্যম হলো তাজওইদ সম্পর্কে অবগত থাকা। এটি মূলত ইলমুল কিরাতের সাথে সম্পর্কিত। এই শাস্ত্রের সাথে... আরো পড়ুন
পরিমাণ

109  147 (26% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

3 রিভিউ এবং রেটিং - সহিহভাবে কুরআন শিক্ষা তাজওইদ

4.7
Based on 3 reviews
5 star
66%
4 star
33%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
Showing 1 of 3 reviews (4 star). See all 3 reviews
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 4 out of 5

    বৃষ্টি জলি:

    ??? পবিত্র আল-কোরআন পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ কিতাব। আল- কোরান পাঠে আমরা বুঝতে পারি আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালা আনহু আমাদের কি আদেশ করেছেন আর কি নিষেধ করেছেন। মোটকথা হলো, প্রত্যেক মুসলমানের জীবনের চলার পথে গাইড লাইন স্বরূপ। বাংলা অর্থ সহ আল কোরআন পড়তে পারাটা জরুরী কেননা বাংলা অর্থ ছাড়া আরবি ভাষা বুঝা আমাদের জন্য কঠিন (যারা আরবি জানি না তাদের জন্য) । কোরআন মাজিদ সহিহ শুদ্ধভাবে না পড়তে পারাটা লজ্জা এবং গুণাহ। আর শুদ্ধভাব পড়তে পারলে প্রতিটা হারফের জন্য নেকি বরাদ্দ করে দিয়েছেন আল্লাহ সুবাহানাহু তায়ালা আনহু। আল-কোরআন পাঠে মনে এক অনাবিল প্রশান্তির বাতাস বয়ে যায়।তাই সামর্থ্যানুযায়ী শুদ্ধভাবে আরবী পড়তে পারাটা প্রত্যেক মুসলিম ও মুসলিমার জন্য ফরজে আইন।

    ? এই বইটি আমার মতো জেনারেল লাইনে পড়ুয়াদের জন্য খুবই উপকারী একটি বই।আমার ইখফার হারফগুলো ঠিক মতো উচ্চারণ হতো না লেখিকার অনলাইন এ ক্লাস গুলো করে এবং বইটি পড়ে আমার এই ভুল গুলো ধরা পরে। এছাড়াও আরো অনেক ভুল গুলো শুধরানোর চেষ্টায় আছি। বইটিতে আরবি প্রতিটি হারফ এর উচ্চারণ মুখের কোন দিক থেকে করতে হবে, কোন হারফ কতটা ভিতর থেকে উচ্চারণ হবে সব কিছু চিত্র একে খুব সুন্দর করে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।এছাড়াও সব গুলো অধ্যায়েরই বর্ননা খুব সুন্দর, সাবলীল ভাবে বুঝিয়ে বলা হয়েছে। বইটি বারো (১২)টি অধ্যায়ে বিভক্ত।

    ♻️ অধ্যায় গুলোর নাম ও কিছু উল্লেখযোগ্য পয়েন্ট নিম্নে সংক্ষেপে দেয়া হলো :

    ? ১. তাজওইদ এর পরিচয়, হুকুম ও উদ্দেশ্য-
    এই অধ্যায়ের শুরুতে অভিধানিক অর্থ, পারিভাষিক অর্থ, হুকুম, উদ্দেশ্য, ফায়েদা, উদ্ভাবক এবং শেষে অনুশীলন পয়েন্ট করে পর্যায়ক্রোমে বর্ণনা করা হয়েছে।আমি কয়েকটা লাইন উল্লেখ করছি। তাজওইদের অর্থ “আত-তাহসিন”। অর্থাৎ কোন কিছু শুদ্ধ ও সুন্দর করা। কুরআনের প্রতিটি হারফকে তার যথাযথ হক আদায় করে মাখরাজ ও সিফাত ঠিক রেখে সঠিক এ শুদ্ধ নিয়মে উচ্চারণ করা হলো এর পারিভাষিক অর্থ। আর বাকি গুলি সুন্দর করে বলা আছে পড়লে বুঝতে পারবেন।

    ? ২. লাহান ও এর প্রকারসমূহ-
    এই অধ্যায়ে লাহান, এর প্রকার ও হুকুম নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। তিলাওয়াতের সঠিক নিয়ম কানুন ভঙ্গ করে তিলাওয়াত করা হলো লাহান এর পারিভাষিক অর্থ। লাহান দুই প্রকার :
    # লাহান জালি- স্পষ্ট ভুল
    # লাহান খাফি- অস্পষ্ট ভুল
    এগুলোর বর্ননা এবং শেষে অনুশীলন তো আছেই।

    ? ৩. তিলাওয়াতের প্রকারভেদ-
    এই অধ্যায়ে তিলাওয়াতের ৩টি প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।তিলাওয়াতের সুস্পষ্ট ধারণা পাবেন এখানে। এবং যথারীতি শেষে অনুশীলন পার্ট তো আছেই।

    ? ৪. আল-ইস্তিয়াজা এর পরিচয় ও বিধিবিধান-
    আল-ইস্তিয়াজা এর পারিভাষিক অর্থ হচ্ছে আউযুবিল্লাহি মিনাশ শাইত্বনির রাজীম পড়ার মাধ্যমে শয়তানের সমস্ত অনিষ্ট থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করা। সূরা নাহলের ৯৮ নং আয়াতে আল্লাহ তাআলা বলেছেন,
    “যখন তুমি কোরান পাঠ করবে তখন অভিশপ্ত শয়তান হতে আশ্রয় প্রার্থনা করবে”। এরপর এখানে এর বিধি মালা সম্পর্কে আলোচনার করা হয়েছে।

    ? ৫. আল-বাসমালাহ এর পরিচয় ও বিধিবিধান-
    আল-বাসমালা এর অভিধানিক অর্থ হচ্ছে বিসমিল্লাহ বলা। এখানে বিসমিল্লাহ কোথায় পড়া ওয়াজিব এবং কোথায় পরিহার করলে গুণা হবে এবং অন্যান্য নিয়ম কানুন সম্পর্কে বলা হয়েছে।

    ? ৬. মাখরাজের বিবরণ ও প্রকারসমূহ-
    তাজওইদ এ মাখরাজ বলে বুঝানো হয় হারফ উচ্চারণ হওয়ার স্থান। এখানে মাখরাজ এর বিভিন্ন প্রকার সম্পর্কে বিস্তর আলোচনা করা হয়েছে। মুখের ভিতর কোথা থেকে কিভাবে কোন মাখরাজ উচ্চারণ হবে তা খুব চমৎকার করে লেখা আছে।

    ? ৭. সিফাতের বিবরণ-
    সিফাত অর্থ হচ্ছে হারফ সমূহের বৈশিষ্ট্য। সিফাত এর বিভিন্ন প্রকারভেদ সম্পর্কে খুব সহজ করে বিস্তারিত বলা আছে এখানে। কোন সিফাত এর কি কি বৈশিষ্ট্য, কিভাবে উচ্চারণ করতে হবে সব সহজ করে লেখা আছে।

    ? ৮. নুন সাকিন ও তানওইন এবং মিম সাকিন এর বিবরণ-
    নুন সাকিন হল যার মাঝে কোনো হারাকাত থাকে না। আর তানওইন দুই জবর, দুই জের, দুই পেশকে বলে। নুন সাকিন ও তানওইন এর হুকুম ও পরিচয় সম্পর্কে গুছিয়ে সুন্দর করে ব্যাখ্যা করা আছে।

    ? ৯. তাফখিম ও তারকিক এর বিবরণ-
    তাফখিম অর্থ ভারি করে উচ্চারণ করা আর তারকিক অর্থ পাতলা করে উচ্চারণ করা। এদের প্রকার ভেদ ও তিলাওয়াতের সময় কখন কোনটা হবে তার বিস্তারিত বর্ণনা দেয়া আছে।

    ? ১০. মাদ এর পরিচয় ও প্রকারভেদ-
    মাদের হারাফ (ى-و-ا) আসলে সে হারাফকে নির্দিষ্ট পরিমাণ টেনে পড়াকে মাদ বলে। মাদের বিভিন্ন প্রকারভেদ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। (মাদ আমার কাছে একটু কঠিন মনে হয়েছে)। কিন্তু অনেক সহজ করেই বলা আছে বইটিতে। অনেকেই খুব সহজেই বুঝে যাবেন।

    ? ১১. ওয়াকফ এবং ইবতিদা এর বিবরণ-
    ওয়াকফ অর্থ থেমে যাওয়া। আর ইবতিদা অর্থ
    হলো ওয়াকফের পর আবার শুরু করা, কোথা থেকে শুরু করলে ঠিক হবে আবার কোথা থেকে শুরু করলে আয়াতের অর্থ বদলে যাবে তা বুঝানো হয়েছে। এ সম্পর্কে বিস্তারিত বলা আছে। আমি শুধু সংক্ষিপ্ত করে বললাম। বাকিটা পড়লে বুঝতে পারবেন ইনশাআল্লাহ।

    ? ১২. ওয়াকফ এর চিহ্নসমূহ এর বিবরণ-
    কোরান তিলাওয়াত করার সময়ে কোথায় অবশ্যই থামতে হবে, কোথায় না থামলেও চলবে আর কোথায় কোনো ক্রোমেই থামা যাবে না সব কিছু চিহ্ন সহ সহজ করে বুঝিয়ে দেয়া আছে।

    ⏳ মাএ ৬৩ পৃষ্ঠার এই ছোট্ট বইটি আল কোরআন শুদ্ধ ভাবে তিলাওয়াতের জন্য খুবই উপকারী। বইটির মূল্যও তুলনামূলক ভাবে অনেক কম। বইটিতে সহজ, সরল বাক্য প্রয়োগ করায় আমার মতো জেনারেল লাইন এ পড়ুয়াদের জন্য বুঝতে সহজ হবে ইনশাআল্লাহ।

    আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালা আনহু আমাদের সকলকে কোরআন সহিহ, শুদ্ধ ভাবে তিলাওয়াতের তওফিক দান করুন। আমিন।

    5 out of 5 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top