মেন্যু
salahuddin ayubi

সালাহউদ্দীন আইয়ুবী

পৃষ্ঠা : 168, কভার : পেপার ব্যাক

আমাদের চারপাশে ইসলামের বিধিবিধান মেনে চলার চেষ্টা করেন এমন অনেক মুসলিম রয়েছেন, কিন্তু মুসলিম হিসেবে যে স্বকীয়তা বা নিজস্ব পরিচয় রয়েছে তা অধিকাংশের মাঝে অনুপস্থিত। রকস্টার বা ফুটবল খেলোয়াড়ের সাথে একজন গড়পড়তা মুসলিমের যতটা সাদৃশ্য দেখা যায় ততটা একজন সাহাবীর সাথে দেখা যায় না। এই যুগের যুবকেরা দ্বীনের পূণর্জগারণকারীদের সম্পর্কে যতটা না জানে তার চেয়ে অনেক বেশী জানে নেশাগ্রস্থ, নির্লজ্জ, অর্থলোভী খেলোয়াড়দের সম্পর্কে।
সালাহ-উদ্দীন আয়ুবী রহ. এমনি এক কালজয়ী ব্যক্তিত্ব, মুসলিম অমুসলিম নির্বিশেষে সবার ইতিহাসের পাতায় লিপিবদ্ধ আছেন এক মহাবীর হয়ে। অথচ তাঁর নাম আমাদের শিক্ষিত যুবক যুবতীরা জানে না।
তাঁর জন্মের সময়কালটা যেন আমাদের মতই ছিল, সালতানাতের বহিরাগত শত্রুদের বে-দখল, অভ্যন্তরীণ শত্রুদের চক্রান্ত, সমাজে নেশা-বেহায়পনা ছয়লাভ..কী ছিল না? এমন পরিস্থিতে উনি মনস্তাত্ত্বিকভাবে পঙ্গু হয়ে পড়া জাতিকে টেনে তুলেন, জয় করেন দীর্ঘদিন ইয়াহুদীদের হাতে দখল থাকা জেরুজালেম, পবিত্র করেন নবিদের শহর শাম।
তাই এবার সেই মহান নেতার ঈমানদীপ্ত জীবনী জানা যাক। 

অনুবাদ : আশিক আরমান নিলয়
সম্পাদনা : সাজিদ ইসলাম

পরিমাণ

155  242 (36% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
- ৪৯৯+ টাকার অর্ডারে একটি প্রিমিয়াম বুকমার্ক ফ্রি!

- ৬৯৯+ টাকার অর্ডারে একটি একটি আমল চেকলিস্ট ফ্রি!

- ৮৯৯+ টাকার অর্ডারে একটি বই ফ্রি!

- ১,১৯৯+ টাকার অর্ডারে একটি আতর ফ্রি!

- ১৪৯৯+ টাকার অর্ডারে সারাদেশে ফ্রি শিপিং!

প্রসাধনী

2 রিভিউ এবং রেটিং - সালাহউদ্দীন আইয়ুবী

4.5
Based on 2 reviews
5 star
50%
4 star
50%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    লেখক পরিচিতি

    মিশরের প্রখ্যাত জ্ঞানালয় আল-আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র শাইখ আব্দুল্লাহ নাসিহ উলওয়ান (রহ.)। শাইখ জন্মগ্রহণ করেন ১৯২৮ ঈসায়ী সনে, বর্তমান রক্তস্নাত স্টেট সিরিয়ার দামাস্কাসে। পিএইচডি পরবর্তী তিনি সৌদি আরবের কিং আব্দুল আযীয বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত হন। শাইখ সুনিপুণ সাধনায় রচনা করেন প্রায় ত্রিশটিরও অধিক কিতাব। যেগুলো একাধিক ভাষায় অনূদিত হয়েছে। তাঁর বিখ্যাত কিতাবসমূহের মধ্যে রয়েছে ‘তারবিয়াত আল আওলাদ ফিল ইসলাম, আত-তাকাফুল আল ইজতিমায়ি ফিল ইসলাম, ফাযায়িল আস-সিয়াম ওয়া আহকামুহ, হুকুম আততামিন ফিল ইসলাম….. ইত্যাদি’। এই মহান আলেম মৃত্যুবরণ করেন ২৯ আগস্ট ১৯৮৭।

    প্রাসঙ্গিক কথা

    শাইখ আব্দুল্লাহ নাসিহ উলওয়ান কিতাবখানা উৎসর্গ করেছেন মুসলিম উম্মাহর মায়েদের প্রতি। লিখে দিয়েছেন, ‘তারা যেন অন্তত আর একজন সালাহউদ্দীন আইয়ুবীর জন্ম দিতে পারে।’ হ্যাঁ, কোনো মুসলিম ভূখণ্ডের ওপর জুলুমিয়্যাতের বার্তা পেলে যাঁর আকাঙ্ক্ষা করি, যাঁর হুবহু অথবা কাছাকাছি ফটোকপি আমরা আশা করি। যিনি এই জাঁদরেল যুগের ত্রাস থেকে আমাদের রক্ষা করতে পারবেন বলে আমাদের ধারণা।

    বহুগুণে গুণান্বিত সফল যোদ্ধা ও সংস্কারক সুলতান সালাহউদ্দীন আইয়ুবীর জীবনালেখ্যটি শাইখ আব্দুল্লাহ নাসিহ উলওয়ান (রহ.) মলাটবদ্ধ করেন সত্তরের দশকে। মূলত এটি একটি সালাহউদ্দীন আইয়ুবীর কৃতিত্বপূর্ণ জীবনের ফ্লো-চার্ট। কিতাবখানা ভাষান্তর করে বাঙালি পাঠকের হাতে তুলে দেন প্রতিশ্রুতিশীল অনুবাদক আশিক আরমান নিলয়।

    কিতাবখানার আলোচ্যবিষয়

    কিতাবখানা সালাহউদ্দীন আইয়ুবীর (রহ.) জীবনী। বারোটি অধ্যায়ে ভাগ করে তাঁর জীবনের নানাধিক আলোচনা করা হয়েছে। পাশাপাশি রয়েছে অল্পবিস্তর ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ ও বিজয়ের কারণ অনুসন্ধানের মতো ফিরিস্তি।

    আমার অনুভূতি

    প্রিয় সালাহউদ্দীন আইয়ুবীর জীবনী নিয়ে অধ্যয়ন করা আমার জন্য প্রথম কিতাব এটি। কিতাবখানার সহজবোধ্যতা এবং ভাষান্তরে অনুবাদকের মুন্সিয়ানা আমাকে পুলকিত করেছে। কিতাবখানার মান, আলোচ্যসূচী, প্রচ্ছদ, উৎসর্গপত্র প্রতিটি দারুণ।

    কিতাবখানা কেন পড়বেন:

    ১. পড়তে ধৈর্যচ্যুতি হবে না।
    ২. অনুবাদকের মুন্সিয়ানা ভালো হওয়ায় অনুবাদ বেশ সাবলীল ও সহজবোধ্য হয়েছে, ফলে পড়ার সময় কিতাবখানা টেনে নিতে পারে।
    ৩. ক্রুসেডারদের বিরুদ্ধে সালাহউদ্দীন আইয়ুবী বিজয় কেন হয়েছে, আর এখন আমরা কেন ব্যর্থ হচ্ছি- এ বিষয়ে ধারণা পাবেন।
    ৪. সর্বশেষ বলবো, কিতাবখানা এমন এক ব্যক্তিকে নিয়ে যিনি শত শত বছর ধরে আমাদের আইডল। যাকে পড়া ও জানা আমার, আপনার, সকলের উচিত।

    3 out of 4 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 4 out of 5

    :

    সবচেয়ে প্রথমে প্রশংসা করতে হয় বইটির প্রচ্ছদের। অসাধারণ প্রচ্ছদ। বাধাই, কাগজের কোয়ালিটি, তথ্যবহুল ফুটনোট প্রত্যেকটি ব্যাপারেই ছিল যত্নের ছোঁয়া। যেকাউকে উপহার দেয়ার জন্যে চমৎকার বই।

    অনুবাদ ছিল চমৎকার। মূল বইতে লেখক মাঝে মাঝে বিভিন্ন কবির কাব্য এনেছিলেন। সেসব কবিতার লাইনের ভাবানুবাদ এত্ত সুন্দর হয়েছে যা চমকে যাওয়ার মত। বিশেষত আরবী কোন বইয়ের ইংরেজী অনুবাদ থেকে বাংলায় অনুবাদ করার পরেও অনুবাদক ছন্দমিলের ব্যাপারে এত সাযুজ্য বজায় রাখা হয়েছে যে অবাক হতে হয়। অনুবাদকের ভাষাজ্ঞানের মুন্সিয়ানার তারিফ করতেই হচ্ছে।

    বইয়ের প্রথম অর্ধেক পড়ে হতাশ হয়েছি। সালাহউদ্দিন আইয়ুবি (রহ) এর জীবনী অত্যন্ত দ্রুতলয়ে এগিয়েছে। অতি সংক্ষিপ্ত আকারে বাহুল্য পরিহার করে সালাহউদ্দিন আইয়ুবি (রহ) এর জীবনীর মূল সারাংশটুকু তুলে আনা হয়েছে। মানে, এ বইয়ে ধারাবাহিকভাবে সালাহউদ্দিন (রহ) এর জীবনী আলোচনা করা হয় নি। বরং, সালাহউদ্দিনের জীবন থেকে শিক্ষা নিয়ে কীভাবে বায়তুল আকসাকে ইহুদিবাদের করালগ্রাস থেকে মুক্ত করা যায়- সেটিই ছিল এ বইয়ের মূল উপজীব্য বিষয়।

    এ বইয়ের প্রাণ হল বইয়ের দ্বিতীয়াংশ। এখানে লেখক সালাহউদ্দিন আইয়ুবির বিজয়ের কারণগুলো তুলে এনেছেন সংক্ষিপ্ত কলেবরে, পয়েন্ট বাই পয়েন্ট।

    মূল বইটি প্রকাশ হয়েছিল ১৯৭৪ সালে।তখন আরব-ইসরাইল যুদ্ধ চলছিল। লেখক বর্তমান মুসলিমদের পরাজয়ের কারণ ও বিজয়ের প্রভাবকগুলো আলোচনা করেছেন।

    এছাড়া সালাহউদ্দিন আইয়ুবির চারিত্রিক গুণাবলী, সংস্কার কাজসমূহ ও সমালোচনার জবাবও লেখক এ বইয়ে সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন।

    11 out of 11 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top