মেন্যু
quranic dua

কুরআনিক দুআ

পৃষ্ঠা : 168, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : 1st Published, 2020
আইএসবিএন : 978-984-8254-91-2
অনুবাদঃ আলী আহমাদ মাবরুর মহাপ্রতিপালক মনিব তাঁর সৃষ্ট বান্দাদের অনন্ত জীবনে জান্নাতে নিতে চান। তিনি জানেন- বান্দা ভুল করে, অপরাধ করে; আর তিনি অপেক্ষা করেন ক্ষমা আর দয়া নিয়ে। তিনি চান-... আরো পড়ুন
পরিমাণ

185 

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

4 রিভিউ এবং রেটিং - কুরআনিক দুআ

5.0
Based on 4 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    ফারজানা খান:

    অসাধারণ একটি বই….ইসলামিক স্কলার ইয়াসির ক্বাদির আলোচনা সবসমই বিশাল এবং নির্ভরযোগ্য..এই বই এ শুধু কুরআনের দুয়া সংকোলন করা হয়নি বরং কখন,কোন অবস্থায় নবী রাসুলগন মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে দুয়া করেছেন সেটা জানতে পারি….অনুবাদকও সহজ সাবলিল ভাষায় বইটি অনুবাদ করায় বইটি পড়ে অনেক ভাল লাগল..আল্লাহতালার কাছে আল্লাহতায়ালা আর রাসুল (সাঃ) এর শেখানো দুয়া দিয়ে চাওয়াই সর্বোত্তম.
    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    তাপসী আকতার:

    পৃথিবীতে প্রথম ইবাদত কি?
    যখন নামাজ পড়ার বিধান জারি হয়নি।জাকাত, হজ্জ, রোজা রাখার বিধানও তখন প্রবর্তিত হয়নি।
    হযরত আদম (আ), হযরত হাওয়া (আ) আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লা কাছ থেকে কোন ইবাদতের বাণী নিয়ে পৃথিবীতে এসেছিলেন?

    দুয়া। মানুষের প্রথম ও প্রাথমিক ইবাদত।
    ইবলিশ শয়তানের সাথে হযরত আদম (আ) এর মূল পার্থক্য হলো— ইবলিশ আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লার হুকুম অমান্য করে অনুতপ্ত হয়নি, আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লার কাছে দুয়া চেয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেনি বরং অহংকার, গর্ববোধে অবাধ্য হয়েছিল। অপরদিকে, হযরত আদম (আ) ইবলিশ শয়তানের চেয়ে শ্রেষ্ঠতর এবং উত্তম কারণ, তিনি আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লার কাছে থেকে নির্দেশনা পাওয়া মাত্র অহংকারে না ভুগে অনুতপ্ত আত্মা নিয়ে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লার শেখানো দুয়া পাঠের মাধ্যমে ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন।

    দুয়া বিশ্বাসীদের হাতিয়ার।আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লা বান্দার দুয়া কখনোই ফিরিয়ে দেন না,বরং সাথেসাথে কবুল করে নেন। তিনি থাকেন বান্দার খুব নিকটে। কিন্তু সঠিক সময়ে সঠিক দুয়াটি না জানায় আমরা অনেক সময় যথাযথভাবে হাত তুলতে পারি না। কিভাবে দুয়া করলে দুয়া কবুলের সম্ভাবনা বেড়ে যায়, তা নিয়েও আমরা অন্ধকারে থাকি।এই বিষয়গুলো চমৎকার ভাবে লিপিবদ্ধ করা আছে বইটিতে।

    দুয়ার জন্য এই বইয়ের বিশেষত্ব কি? বিশেষত্ব হলো গতানুগতিক দুয়ার বইয়ের মতো একগাদা দুয়ার লিস্ট দিয়ে শুধুমাত্র দুয়ার উপকারীতাগুলোর বর্ণনা এখানে নেই। আছে দুয়ার প্রেক্ষাপট,দুয়ার অর্থ, কখন কোন দুয়া করতে হবে সাথে দুয়া নিয়ে বিশদ আলোচনা। যেখানে আপনি নতুন কিছু দুয়া শিখার পাশাপাশি জানা দুয়া গুলোকে আবারও নতুন করে আবিষ্কার করতে পারবেন।দুয়া আর দুয়ার ফলাফল বিষয়ে আস্থাও আগের তুলনায় বেড়ে যাবে।

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    Farjana Sultana:

    খুব ভাল লেগেছে বইটি পড়ে। নতুন ভাবে অনেক কিছু জেনেছি আবার জানা তথ্যকে গভীর ভাবে ভাবতে শেখায় বইটি।
    আল্লাহপাক বইটির সাথে যুক্ত সকলকে উত্তম প্রতিদান দান করুন।
    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    shamim.fuad:

    সংগ্রহ করতে একটু দেরী হয়েছে কিন্তু বাসায় নিতেই পড়ার জন্য সকলের কাড়াকাড়ি।
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top