মেন্যু
productive muslim

প্রোডাক্টিভ মুসলিম

পৃষ্ঠা : 256, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : 1st Published, 2020
আইএসবিএন : 9789848254547
‘প্রোডাক্টিভ মুসলিম’ একটি আত্মোন্নয়নমূলক বই। বইটির পাতায় পাতায় মুখর হয়ে উঠেছে—আত্ম-জাগরণ, আত্মনির্মাণ ও আত্মবিকাশের বিভিন্ন দিক নিয়ে জীবনঘনিষ্ট আলোচনার আসর। এতে আছে স্রষ্টার দেওয়া অমূল্য উপহার—আমাদের মেধা সময় ও শক্তিকে কাজে... আরো পড়ুন
পরিমাণ

280 

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

15 রিভিউ এবং রেটিং - প্রোডাক্টিভ মুসলিম

4.9
Based on 15 reviews
5 star
86%
4 star
13%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    সাদ মোহাম্মদ জাকারিয়া:

    মুসলিম হিসেবে দৈনন্দিন জীবনে যে আমাদের রুটিন করে কাজ করা দরকার সেটা এই বইটি পরলে চমৎকার উপায় পাবেন। আর মজার ব্যাপার হলো বইটি একবার পরলে আবার পড়তে মনে চাইবে। আরো একটি কথা উপহার দেওয়ার জন্য পছন্দনীয় একটি বই। মাহশাহ্-আল্লাহ!
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    উম্মে আয়মুন:

    সত্যিই অসাধারণ একটা বই।আসলেই প্রোডাক্টিভিটি কি তা এই বইটি পড়ে বুঝেছি।
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 4 out of 5

    ayeeshahruh:

    ব‌ইটির যে বিশেষ দুইটি দিক আমাকে মুগ্ধ করেছে তা হলো-

    ১. প্রতিটি কর্মপদ্ধতি ইসলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে তুলে ধরা; হাদিস ও কুরআনের রেফারেন্স যুক্ত করা। এই কুর‌আন-হাদিসের আয়াতগুলো অধিকাংশ‌ই পরিচিত ছিল বটে, কিন্তু এগুলো আমাদের প্রতিদিনের রুটিনের সাথে এতোটা সম্পৃক্ততা রাখে- তা আমি নতুনভাবে অনুভব করতে পেরেছি।

    ২. একেকটা অধ্যায় শেষে একটা করে রোডম্যাপ এঁকে দেওয়া। এই চিত্রগুলো সম্পূর্ণ অধ্যায়ের সারসংক্ষেপ হিশেবে দারুণভাবে কাজ করে! ফলে, চাইলেই এক নজরে ম্যাপটা দেখে পদ্ধতিটা মনে করে ফেলা যায়। তাছাড়াও বিভিন্ন ছক, প্ল্যানার-জাতীয় ডায়াগ্রামগুলো আকর্ষণীয় এবং উপকারী।

    ব‌ইটির প্রচ্ছদের প্যাটার্ন এবং পৃষ্ঠসজ্জাও প্রাসঙ্গিক ও চমৎকার, মা শা আল্লাহ্। বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রতিটি মুসলিমের জন্য‌ই ব‌ইটি পড়া এবং অনুশীলন করার একান্ত দাবি রাখে।

    তবে, অনুবাদের শব্দচয়ন কিছুটা সাবলীল হলে ব‌ইটা আর‌ও উপভোগ্য হতে পারতো। কিছু কিছু জায়গায় অপ্রয়োজনীয় কঠিন বর্ণনা এড়িয়ে গেলে যেকোনো সাধারণ পাঠকের কাছেও ব‌ইটি সহজেই বোধগম্য হয়ে উঠবে বলে আশা করছি।

    0 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    ayeeshahruh:

    জাতি হিশেবে কেন‌ই বা আমরা আজ এতোটা অবহেলিত, এতোটা মজলুম? এর মৌলিক একটা উত্তর হতে পারে- ইসলামকে দৈনন্দিন জীবনে প্রতিটি কর্মে প্রায়োগিক করে না তোলা।

    এসবের‌ই সমাধান স্বরুপ প্রোডাক্টিভ মুসলিম নামের অসাধারণ অনুবাদ গ্রন্থটিতে একজন মুসলিমের সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সম্পূর্ণ সময়টাকে ইসলামের প্রোডাক্টিভ গন্ডির ভেতরে বেঁধে ফেলার দারুণ উপায় ধাপে ধাপে বর্ণনা করা হয়েছে। প্রোডাক্টিভিটি বা উৎপাদনশীলতা বিষয়টা কেমন, ইসলামের সাথে প্রোডাক্টিভিটির সম্পর্ক, আত্মিক-শারীরিক-মানসিক এমনকি সামাজিক জীবনে এর ভূমিকা, জীবনের লক্ষ্যের সাথে প্রোডাক্টিভিটির সংযুক্তি, রমাদানে প্রোডাক্টিভ থাকার উপায়- কিছুই যেন বাদ যায়নি ব‌ইটিতে। এর যে বিশেষ দুইটি দিক আমাকে মুগ্ধ করেছে তা হলো-

    ১. প্রতিটি কর্মপদ্ধতি ইসলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে তুলে ধরা; হাদিস ও কুরআনের রেফারেন্স যুক্ত করা। এই কুর‌আন-হাদিসের আয়াতগুলো অধিকাংশ‌ই পরিচিত ছিল বটে, কিন্তু এগুলো আমাদের প্রতিদিনের রুটিনের সাথে এতোটা সম্পৃক্ততা রাখে- তা আমি নতুনভাবে অনুভব করতে পেরেছি।

    ২. একেকটা অধ্যায় শেষে একটা করে রোডম্যাপ এঁকে দেওয়া। এই চিত্রগুলো সম্পূর্ণ অধ্যায়ের সারসংক্ষেপ হিশেবে দারুণভাবে কাজ করে! ফলে, চাইলেই এক নজরে ম্যাপটা দেখে পদ্ধতিটা মনে করে ফেলা যায়। তাছাড়াও বিভিন্ন ছক, প্ল্যানার-জাতীয় ডায়াগ্রামগুলো আকর্ষণীয় এবং উপকারী।

    ব‌ইটির প্রচ্ছদের প্যাটার্ন এবং পৃষ্ঠসজ্জাও প্রাসঙ্গিক ও চমৎকার, মা শা আল্লাহ্। বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রতিটি মুসলিমের জন্য‌ই ব‌ইটি পড়া এবং অনুশীলন করার একান্ত দাবি রাখে।

    তবে, অনুবাদের শব্দচয়ন কিছুটা সাবলীল হলে ব‌ইটা আর‌ও উপভোগ্য হতে পারতো। কিছু কিছু জায়গায় অপ্রয়োজনীয় কঠিন বর্ণনা এড়িয়ে গেলে যেকোনো সাধারণ পাঠকের কাছেও ব‌ইটি সহজেই বোধগম্য হয়ে উঠবে বলে আশা করছি।

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    hasan.md7110:

    বর্তমান বিশ্বে মুসলিমদের এত শোচনীয় অবস্থা কেন?কেন দেশে দেশে মুসলিমরা মার খাচ্ছে?কেন মুসলিমদের হাত ধরে যুগান্তকারী কোনো আবিষ্কার বের হয়ে আসছে না?কেন মুসলিমরা এতটা পিছিয়ে আছে?

    এই প্রশ্নগুলোর উত্তরে হাদিসে বলা হয়েছে,এর কারণ হলো মুসলিমদের দ্বীন থেকে সরে যাওয়া।দ্বীনে ফিরে না আসা পর্যন্ত আল্লাহ এই অপমান থেকে মুক্তি দিবেন না।[আবু দাউদ–৩৪৬২]

    গত একশো বছর ধরে মুসলিমদের দ্বীন থেকে সরানোর কাজটা খুব সচেতনভাবে করা হয়েছে বুদ্ধিবৃত্তিক আগ্রাসনের মাধ্যমে,আর হতভাগা মুসলিমরা সেই ফাঁদে পা দিয়ে দ্বীন ও দুনিয়া দু’টোই হারিয়েছে।

    ধর্ম মানুষের প্রোডাক্টিভিটি নষ্ট করে,সমাজ ও রাষ্ট্রকে পিছিয়ে দেয়— এই অজুহাতে পাশ্চাত্য সভ্যতায় রাষ্ট্র ও সমাজ থেকে ধর্মকে আলাদা করে ফেলা হয়।ধর্মকে বানিয়ে ফেলা হয়েছে নিয়মতান্ত্রিক উদযাপনের বস্তু,মানুষকে বানিয়ে ফেলা হয়েছে আবেগহীন রোবট।অনেকটা যান্ত্রিক জীবন-যাপন করা পাশ্চাত্যের লোকেদের এই উত্তরোত্তর বাহ্যিক সাফল্য দেখে আমরাও তাদের নীতি অনুসরণ করতে শুরু করলাম,ক্ষেত্রবিশেষে তা আমাদের উপর চাপিয়ে দেওয়া হলো।এভাবে সচেতনতার সাথে ইসলামকে প্রচলিত ধর্মবিশ্বাসের ন্যায় দুনিয়া থেকে আলাদা করে তা কেবলই আধ্যাত্মিকতার বিষয় বানিয়ে ফেলা হলো।

    সম্ভবত পাশ্চাত্যের দ্বারা প্রভাবিত হয়েই আমাদের বাবা-মায়েরা আমাদের সবক দেন,ধর্ম-কর্ম একেবারে পড়াশোনা শেষ করে,চাকরিজীবনে প্রবেশ করে তারপরে করো।অবসরে গিয়ে পেনশনের টাকায় হজ্জ করে একেবারে ভালো হয়ে যাবা।এমনি করে আমাদের সারাটা জীবন পার করে শেষে যখন মালাকুল মউত এসে হাজির,দেখা যায় অর্জনের ঝুলিটা আসলে শূন্য।

    ঠিক এই জায়গাটাতেই ‘প্রোডাক্টিভ মুসলিম’ বইটির সফলতা।বইটিতে লেখক দেখিয়েছেন কীভাবে আখিরাতের জন্য নিজের ঝুলিটা পূর্ণ করেও পার্থিব জীবনে সর্বোচ্চ সফলতা অর্জন করা যায়।

    বইটি নয়টি অধ্যায়ে বিভক্ত।প্রথম ও দ্বিতীয় অধ্যায়ে প্রোডাক্টিভিটিকে সম্পূর্ণ ভিন্ন আঙ্গিকে সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে এবং প্রোডাক্টিভিটির সাথে ইসলামের সংশ্লিষ্টতা বিশ্লেষণ করা হয়েছে।অধ্যায় দুটি প্রোডাক্টিভিটি সম্পর্কে আপনার চিরায়ত ভাবনা বদলে দিয়ে নতুন করে ভাবতে বাধ্য করবে।
    পরের পাঁচটি অধ্যায়ে আমরা কীভাবে দৈনন্দিন জীবনে শারীরিক,মানসিক(আধ্যাত্মিক),সামাজিক দিক দিয়ে প্রোডাক্টিভ হয়ে উঠতে পারি সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।এই বইটির সবচেয়ে ইন্টারেস্টিং অধ্যায় হলো ‘স্পিরিচুয়াল প্রোডাক্টিভিটি’।
    গতানুগতিক প্রোডাক্টিভিটি সংক্রান্ত বইয়ে সাধারণত আধ্যাত্মিকতা তথা মানসিক দিকটা প্রায় এড়িয়ে যাওয়া হয়।এই বইটির বিশেষত্ব এখানেই।আখিরাতে বিশ্বাস,তাকওয়া,বারাকাহ,তাওয়াক্কুল,শোকর,সবর,ইহসান,দুআ এবং সালাতের মতো বিষয়গুলো যে একজন মুসলিমের জীবনে প্রোডাক্টিভ হতে কতখানি সহায়ক এবং প্রোডাক্টিভিটির উপর এর প্রভাব কতটা শক্তিশালী তা লেখক এই অধ্যায়ে বেশ সুন্দর ও সাবলীলভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন।সর্বশেষ দুটি অধ্যায়ের একটিতে আলোচনা করা হয়েছে রমাদানে প্রোডাক্টিভিটি নিয়ে এবং অপরটিতে আলোচনা করা হয়েছে মৃত্যু পরবর্তী প্রোডাক্টিভিটি নিয়ে।

    সব মিলিয়ে বইটি এযাবৎকালে লেখা আত্মোন্নয়নমূলক সেরা বইগুলোর একটি।একজন সচেতন মুসলিম হিসেবে আপনি যদি ক্রমাগত আত্মোন্নয়নের মাধ্যমে উম্মাহর বৃহত্তর কল্যাণে আত্মনিয়োগ করতে গিয়ে ইহকালীন ও পরকালীন জীবনের মধ্যে সমন্বয় করতে অন্ধকারে হাতড়ে বেড়ান,তবে আপনাকে নক্ষত্রের মতোই পথ দেখাবে এই বইটি।

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top