মেন্যু
১০০০ টাকার পণ্য কিনলে সারা দেশে ডেলিভারি একদম ফ্রি।

অশ্রুসাগর (হার্ডকভার)

অনুবাদ: মুফতি তারেকুজ্জামান
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ২৪৮

প্রতিটি ভোর নিয়ে আসে নতুন আলো। করে দেয় আমাদের নতুন কিছু পাথেয় জোগাড় করে নেওয়ার সুযোগ। এ সুযোগ কেউ কাজে লাগায়, ফলে সে ধন্য হয়। আর কেউবা বরাবরই বিমুখ থাকে, চলে উল্টো পথে আর নিমজ্জিত হয় পাপের সাগরে। কেউ আবার গুনাহের কর্দমা লেপে নেয় সর্বাঙ্গে। ময়লার আবরণে দেহমন সব কদর্য হয়ে পড়ে। এমন মানুষগুলো প্রভুর কাছে থেকে দূরে সরে যায়।

কিন্তু তারা সংশোধিত হতে চাইলে প্রভু কি তাদের দূরে সরিয়ে দেন? উত্তরটা আমাদের ভালোভাবেই জানা। না, মহান রব তাদের দূরে সরিয়ে দেন না। বরং যারা আপন চোখ থেকে প্রবাহিত করে অশ্রুধারা, তাওবা করে ফিরে আসে মহান প্রভুর কাছে, তারাই তো সেসব মানুষ, যারা মহান প্রভুর নৈকট্যশীল বান্দায় রূপান্তরিত হয়। কারণ, তারা যে প্রভুর কাছে সুপথ পেতে বইয়ে দিয়েছে অশ্রুসাগর, অনুশোচনার সাগরে হাবুডুবু খেয়ে চেয়েছে তারা ক্ষমা ও করুণা…

ইমাম ইবনুল জাওজি রহ. পাপের কদর্যতা তুলে ধরে, পাপাচারের নর্দমা থেকে দূরে থাকার প্রেরণা জুগিয়ে তাঁর হৃদয়ের নিবেদন পেশ করেছেন যে গ্রন্থটিতে, যাতে তিনি তুলে এনেছেন তপ্ত অশ্রুধারা বয়ে দেওয়া এমন কিছু মানুষের কথা, যারা একসময় পাপাচারে লিপ্ত ছিলেন, পরবর্তী সময়ে তাওবার পথ ধরে আলোকিত জীবন লাভে ধন্য হয়েছেন, হয়েছেন মহান প্রতিপালকের নৈকট্যশীল ও প্রিয়তম বান্দাদের অন্তর্গত; সেসব নিবেদন ও আখ্যানে রচিত অনবদ্য গ্রন্থটির নাম—‘بحر الدموع’।

এ গ্রন্থের পূর্ণাঙ্গ অনুবাদ ‘অশ্রুসাগর’। গ্রন্থটি গুনাহে নিমজ্জিত নিরাশ বান্দাদের জন্য হবে আশার আলো, দিগভ্রান্ত পথিকদের জন্য হবে পথের দিশা, আর দ্বীনের রাজপথে চলতে ইচ্ছুক ভাইদের জন্য হবে শ্রেষ্ঠ পাথেয়।

পরিমাণ

226.00  324.00 (30% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

1 রিভিউ এবং রেটিং - অশ্রুসাগর (হার্ডকভার)

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5
    Rated 5 out of 5

    :

    ➤বই ও লেখক পরিচিতিঃ–
    ▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔
    দুনিয়ার ফিকে আনন্দ আর প্রাচুর্যের মোহে সকাল থেকে সন্ধ্যাঅব্দী যেন এক যান্ত্রিক জীবনের চক্রে ঘুরছি আমরা । কোনো বোধ নেই, নেই কোনো অনুভূতি । যেন আসলাম, ঘুরলাম আর চলে গেলাম । এটাই কি জীবন (!) ? উদ্দেশ্যহীন এমন যাপিত জীবনে ধাক্কা দেয়ার মতো যে বইগুলো রয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে- “অশ্রুসাগর” । 
    বইটির মূল লেখক ইমাম ইবনুল জাওজি রহ. । তিনি ছিলেন একজন বিজ্ঞ ও প্রসিদ্ধ মুহাদ্দিস । তালিম, তাজকিয়া ও তাসনিফের মাধ্যমে আমাদেরকে দিয়ে গেছেন অসংখ্য মূল্যবান উপহার । সেসব উপহারেরই সেরা একটি হলো “অশ্রুসাগর” । বইটি অনুবাদ ও সম্পাদনা করেছেন, মুফতি তারেকুজ্জামান । বিশ্বস্ত অনুবাদকদের মধ্যে তিনি অন্যতম একজন । তার অনুবাকৃত প্রতিটি গ্রন্থই-ই যেকোনো শ্রেনির পাঠকদের কাছে সুখপাঠ্য । এ বইতেও সেই প্রাঞ্জলতার ব্যতিক্রম হয়নি । বাংলা ভাষী পাঠকদের জন্য “বাহরুদ দুমু” বইটিকে “অশ্রুসাগর” নামে নিয়ে এসেছে “রুহামা পাবলিকেশন” । 
    .
    ➤বইটি কেন পড়বেন ?
    ▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔
    অন্তরকে বিগলিত করতে, মনকে আখিরাতমুখী করতে, ঈমানে দৃঢ়তা বজায় রাখতে এবং আমলে স্পৃহা বাড়ানোর উপদেশমূলক হৃদয়গ্রাহীসব আলোচনার মাঝে ডুব দিতে বইটি আপনাকে পড়তে হবে ।
    .
    ➤বইটিতে যা আছে এবং যা শিখতে পারবেনঃ–
    ▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔
    বক্ষ্যমাণ এ বইটিতে রয়েছে ছোট-বড় মোট ৩২ টি পরিচ্ছেদ । এ পরিচ্ছেদগুলোতে আলোচিত হয়েছে জীবন ঘনিষ্ঠ সব আলোচনা । নববী আদর্শে দরদমাখা ও হৃদয়গ্রাহী কথামালার উজ্জ্বল পদরেখা অঙ্কিত হয়েছে বইটিতে । বইটিতে আল্লাহর রহমতের প্রশস্ততা এবং শাস্তির সতর্কবার্তা-গুলো অত্যন্ত চমৎকার ভাবে উঠে এসেছে । দুনিয়াকে আস্তাকুঁড়ে কিভাবে ছুড়ে ফেলতে হয়, তা শেখানো হয়েছে । কিয়ামুল লাইলের প্রতি অনুপ্রানিত করা হয়েছে । নববী আদর্শে যাপিত মনীষীদের জীবনের অন্তিম মুহূর্তের বর্ননাগুলো তুলে ধরা হয়েছে । ওলীদের কারামত ও জীবনঘনিষ্ঠ কিছু গল্প রয়েছে । ইসতিগফার, আখিরাতের প্রস্তুতি, চোখের হিফাজত,সুদের ভয়াবহতা,হারামের পরিনতি, গীবত, চোগলখোরি,নামাজত্যাগের ভয়াবহতা সহ অাত্নোন্নয়নমূলক অনেকগুলো বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে । মূল্যবান অসিয়ত, যুবকদের জন্য পরামর্শ সহ আত্নশুদ্ধির অনেক পথ বাতলে দেয়া হয়েছে । যাদের অন্তর শক্ত হয়ে গেছে, ভোগবিলাস ও উদাসীনতায় যারা মত্ত হয়ে থাকে প্রতিক্ষণ, তাদের জন্য অসাধারণ একটি রিমাইন্ডার এই বইটি । 
    দ্বীনের পথে সফল হতে হলে, গত হয়ে যাওয়া দ্বীনের পথের সত্যিকারের পথিকদের পথচলা অনুসরন করতে হয় । এ বইয়ে লেখক সে চেষ্টাটাও করেছেন । হাসান বসরি রহ. , মালিক বিন দিনার রহ. , আবু হানিফা রহ. , সালমান ফারসি রহ. ,দাউদ তায়ি রহ.- সহ আরো অনেক নেককারদের নম্রতা, ভদ্রতা, দ্বীনদারিতা ও দুনিয়াবিমুখতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত তুলে ধরেছেন । 
    .
    ➤বইয়ের ভাল লাগা ও খারাপ লাগাঃ–
    ▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔­▔▔▔▔
    প্রথমেই বলেছিলাম, বইয়ের অনুবাদ প্রাঞ্জল । সরল অনুবাদ বইটিকে আরো সুখপাঠ্য করে তুলেছে । বইটি হার্ডকভার হওয়ায় পড়তে খুবই ভাল লেগেছে । বইয়ের পৃষ্ঠাসজ্জা এবং নির্ভুল বানান যেকোনো পাঠককে মুগ্ধ করবে । প্রচ্ছদও চমৎকার । তবে তিক্ত সত্য হচ্ছে, বইয়ে কিছু জাল হাদিস, লোকশ্রুত ঘটনা এবং বাতিল বর্ননা রয়েছে । তবে আশার বানী হচ্ছে, পাঠকরা যাতে সেসব বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করতে পারে এজন্য অনুবাদক সেসব বিচ্যুতি ও হাদীসের সনদগত মান টীকায় সংক্ষিপ্ত আকারে উল্লেখ করেছেন । সার্বিক বিবেচনায় বইটি সত্যিই অনন্য ও অসাধারন । বইটি পড়া শেষে পাঠকরা সেটা উপলব্ধি করতে পারবে । 

    ➤শেষ কথাঃ–
    ▔▔▔▔▔▔▔▔▔▔
    পরিশেষে, শয়তানের ওয়াসওয়াসা, অন্তরের প্রবৃত্তি আর উদাসীনতাকে নিয়ে যারা বসবাস করছেন, তারা গা ঝাড়া দিয়ে উঠুন । সব পিছুটানের আগাছা উপড়ে ফেলুন । বইটা হাতে নিয়ে পড়তে বসুন । দোদুল্যমান জীবনে এনে দেবে এক পশলা বৃষ্টির ছোঁয়া । মৃত অন্তরকে জীবিত করে তুলতে এবং অশ্রুশূন্য চোখকে আল্লাহর ভয়ে অশ্রুসাগর করার ক্ষেত্রে এ বইটির বিকল্প খুব কমই রয়েছে । তবে একটা কথা কি, একটা বই কখনোই আপনাকে পরিবর্তন করতে পারবে না যতক্ষন না আপনার অন্তরে সত্যিকার তড়প সৃষ্টি হয়,, গুনাহ্ ছেড়ে আলোর পথে পথ চলতে আগ্রহী না হয় । মহান রব আপনার অন্তরের অবস্থা দেখে হিদায়াতের আসবাব তৈরি করে দেবেন । আর সে আসবাবের সরোবরে অবগাহন করেই খোঁজ পেয়ে যাবেন, হিদায়াতের রাজপথ । খুঁজে পাবেন, জীবনে পথচলার পাথেয় । আর যদি পড়ার জন্যই পড়া হয়, অবসর সময কাটানোর জন্য পড়া হয় তবে এমন বই হাজারটা পড়লেও জীবনে তা কোনো প্রভাব ফেলবে না ।

    বইয়ের পৃষ্ঠা সংখ্যা—২৪৮ । 
    প্রচ্ছদ মূল্য—৩২৪ টাকা । 
    Was this review helpful to you?