মেন্যু
onliner adobketa

অনলাইনের আদবকেতা

প্রকাশনী : ইলহাম ILHAM
বিষয় : আদব, আখলাক
পৃষ্ঠা : 88, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : 1st Published, 2021
সোশ্যাল মিডিয়াকে ঘিরে আমাদের নানান জল্পনা-কল্পনা–সবটার উত্তর মিলবে বইটিতে। পাবেন করণীয়-বর্জনীয় সংক্রান্ত কিছু দিকনির্দেশনা। অনলাইনে আমরা কোন ধরনের আচরণ করি, সেসব আদৌ করা উচিত কি না, যদি উচিত না হয়,... আরো পড়ুন
পরিমাণ

114  150 (24% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

2 রিভিউ এবং রেটিং - অনলাইনের আদবকেতা

5.0
Based on 2 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    সিরাজাম:

    “ফেইসবুক, ম্যাসেঞ্জার, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ, ভাইবার” প্রভৃতি জিনিসগুলো সমন্বয়ে আমাদের অনলাইন। প্রত্যেকেরই প্রত্যেকটা সাইটে পদচারণা। কাজ থাকুক বা না থাকুক। তবে বহুল প্রচলিত অনলাইন সাইট হলো ফেইসবুক। এখন তো দেখা যায় জন্মের পর পরই একটা শিশুর জন্য তার বাবা-মা একটা ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট নয়তো আলাদা একটা পেইজ খুলে দিয়েছে। ফেইসবুক আমাদের জীবনের সাথে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে।

    চব্বিশ ঘন্টা সময়ের প্রায় আঠারো ঘন্টাই আমরা কোনো না কোনোভাবে অনলাইন সাইটগুলোতে কাটায়। আচ্ছা, এতো এতো সময় আমরা কীভাবে কাটাই, কেনো কাটাই, বেনিফিট কী পাচ্ছি- এগুলো কী কখনো ভেবে দেখেছি!

    “অনলাইনের আদবকেতা” শিরোনাম দেখেই হয়তো কেউ ভাবছেন- এ্যাহ! অনলাইনে আবার আদব দেখাবো কাকে? প্রত্যেকটা মানুষের প্রত্যেকটা মুহূর্ত, প্রত্যেকটা কাজ লিপিবদ্ধ হচ্ছে। তাহলে অনলাইনে কাটানো এই আঠারো ঘন্টা সময় কী হিসাবের বাহিরে! অবশ্যই নয়।

    অনলাইনের পুরোটা সময় কীভাবে আমাদের জন্য উপকারী হবে! অনলাইনে কাটানো সময়গুলোতে আমাদের করণীয় কী আর বর্জনীয় কী! কীভাবে অনলাইনে থাকার সময়টা নেহায়েতই আমার টাইমপাস হবে না বরং আমার শিক্ষার একটা মাধ্যম হবে, যেকোনো ইস্যু থেকে কীভাবে নিজেকে দূরে রাখবো, আর কথা বললেও সেটা কখন, ফেইসবুকে পারসোনাল লাইফের কতটুকু শেয়ার করবো, কাদের সাথে শেয়ার করবো, কাকে আমার লিস্টে রাখবো, আর কাকে বলবো টাটা বাই বাই- আদ্যোপান্ত জানতে পারবেন বইটি পাঠের মাধ্যমে।

    বইটি পাঠের পর আপনি নিজের ফেইসবুক আইডিটাকে শুধুই মামুলি একটা আইডি মনে না করে বরং এই আইডি দিয়ে ভালো কিছু করে যাওয়ার জন্যও দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হবেন। আর এটা না করলেও, নিজের আইডিতে অনৈতিক, অশালীন, অনৈসলামিক কিছু থাকলে সেটা নিয়ে হলেও কিছুটা ভাবতে বাধ্য হবেন। ইন শা আল্লাহ!

    বইটি অনুবাদকৃত। কিন্তু আপনার মনেই হবে না এটা অনুবাদ। ভাষা ব্যবহার খুবই সহজ, সাবলীল। অনলাইন জিনিসটা অনেক পরে আসলেও, ইসলাম চির-উন্নত। ইসলামের বিধান অপরিবর্তনীয়। আর তাইতো আমরা কুরআন, সুন্নাহর আলোকে- অনলাইনে আমাদের করণীয়, বর্জনীয় বিষয়গুলো দেখতে পাই। সুবহানাল্লাহ! যারা জানে আর মানে তাদের জীবনটাকে ইসলাম কতটা সহজ, সুন্দর আর নির্ভার করে দিয়েছে- এই বইটা পড়লে তা কিছুটা হলেও অনুভব করতে পারবেন, ইন শা আল্লাহ!

    বইটাতো সকলের পড়া উচিত। ফেইসবুক ব্যবহার করবেন না, ফেইসবুক কেনো ত্যাগ করা উচিত এসব নয়, বরং অনলাইনে কাটানো সময়টাকে কীভাবে অর্থবহ করে তোলা যায় সেটাই আলোচনা করা হয়েছে এই বইয়ে ১৫ টি অধ্যায়ের মাধ্যমে। আমি পড়েছি, প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনাগুলো আন্ডারলাইন করে রেখেছি। খুবই ভালো লেগেছে আমার কাছে আলহামদুলিল্লাহ! এবং খুবই ইফেক্টিভ। আপনারাও পড়ে নিতে পারেন।

    এবং পড়া শেষে নিজের ফেইসবুক একাউন্ট নতুন করে সাজানোর জন্য উদ্যমী হবেন। আর তখনই আমরা নির্ভার হয়ে বলতে পারবো- হ্যাপি ফেইসবুকিং। ইন শা আল্লাহ!

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    Azmin Akther Eva:

    চমৎকার একটি বই
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top