মেন্যু
obisshasi kathgoray

অবিশ্বাসী কাঠগড়ায়

পৃষ্ঠা : 328, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : New Edition, 2022
ব্লগের যুগ পেরিয়ে আমরা ঢুকলাম ফেসবুক যুগে, এরপর এলো বইয়ের যুগ। নাস্তিকদের জবাব দিয়ে লেখাগুলো কাগজের পাতায় উঠে এলো, মলাটবদ্ধ অবস্থায় ঘরে ঘরে পৌঁছে গেল। দেখা যায় এই বইগুলোর সিংহভাগেই... আরো পড়ুন
পরিমাণ

370  500 (26% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

6 রিভিউ এবং রেটিং - অবিশ্বাসী কাঠগড়ায়

5.0
Based on 6 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    এহছানুল হক সোহান:

    হুমায়ুন আজাদ মানে, মিথ্যের বুলেটে সত্য আবেগ জলাঞ্জলি দেওয়ার ব্যর্থ প্রচেষ্টা। এটি ডা. রাফান আহমেদের বই “অবিশ্বাসী কাঠগড়ায়” একেবারে শেষ লাইন।
    স্বীয় প্রবৃত্তিপ্রবণের অনুসারি অধ্যাপক ড. হুমায়ুন আজাদের “আমার অবিশ্বাস” গ্রন্থের অপনোদন মূলত “অবিশ্বাসী কাঠগড়ায়।”অবিশ্বাসের ভাইরাসে আক্রান্ত, ছলছাতুরির আশ্রয় নিয়ে যারা গড়েছেন মিথ্যের প্রাসাদ সেইসব কথিত মুক্তমনা-বিজ্ঞানমনস্ক-যুক্তির পসরা সাজিয়ে যারা বিজ্ঞানের দোহাই দিয়ে, মুক্তবুদ্ধির চর্চার নাম করে, যুক্তির নামে কুযুক্তি দিয়ে ভাঙতে চেয়েছেন বিশ্বাসীর স্বচ্ছ দেয়াল, প্রমাণ করতে চেয়েছেন ধর্ম-বিশ্বাস প্রগতির অন্তরায়, দাঁড় করিয়েছেন ধর্ম ও বিজ্ঞান সাংঘর্ষিক দেখাতে তাদের এহেন ভ্রান্ত মতবাদকে ডা. রাফান আহমেদ মুর্হুমুহু শব্দের তীর নিক্ষেপ করেছেন বাঘা বাঘা সব নাস্তিক-বিজ্ঞানী ও দার্শনিকদের পিয়ার রিভিউড পেপার, টেনেছেন পশ্চিমা অ্যাকাডেমিকদের রেফারেন্স, কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন অবিশ্বাসকে।
    নিরপেক্ষ স্থানে দাঁড়িয়ে, মননশীল পাঠকের কাছে বইটি সুখপাঠ্য হবে।
    যুক্তি, দর্শন, ইতিহাস, বিজ্ঞান, ধর্মতত্ত্বের আলোকে ২৭৩ পেজের বইটি লেখক ছয়টি অধ্যায়ে বইটি সাজিছেন। ১. অবিশ্বাসীর বিশ্বাস, ২.বিশ্বাসের সাতকাহন, ৩.ধর্ম নিয়ে যত কথা, ৪.ওপারে, ৫.অবিশ্বাসের ভাইরাস, ৬.আমার বিশ্বাস।

    বইটি বেশ সাবলীল মনে হয়েছে। আল্লাহ লেখকের লেখায় বারাকাহ ঢেলে দিক। আমিন।

    [সত্য এসেছে এবং মিথ্যা বিলুপ্ত হয়েছে। নিশ্চয়ই মিথ্যা বিলুপ্ত হওয়ারই ছিল]~বনী-ইসরাঈল-৮১।

    14 out of 14 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    আফসানা আঁখি:

    দারুণ একটা বই
    7 out of 8 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    asifmahmudcste:

    এথেইজম বলতে যারা মুক্তমনা ব্লগ আর থেইজম বলতে আরিফ আজাদ বোঝেন, তাদের একটু হাত পা ছোঁড়া উচিত। বাংলায় এসব নিয়ে একাডেমিক বই নেই বলে অনেককে খুব চেঁচামেচি করতে দেখা যায়, অথচ এই বইটা সামনেই ছিলো।

    নাস্তিকদের আর্গুমেন্ট আয়িশার (রা) এর বয়স না কিংবা নবীজীর (স) যুদ্ধ না। তাদের আর্গুমেন্ট শুধু মানুষ বানর থেকে এসেছে, এটুকু না। ইটস মোর দ্যান দ্যাট। এনলাইটেনমেন্টের পর থেকে নাস্তিকতা আস্তে আস্তে মেইনস্ট্রীমে আসতে থাকে, এর আগে নাস্তিকতাকে একটা রোগ মনে করা হতো। বিজ্ঞানের উৎকর্ষের সাথে সাথে স্রষ্টার অস্তিত্ব নিয়ে নানাবিধ আলোচনা হতে থাকে। “দর্শন, বিজ্ঞান ও ধর্ম” ডকট্রিন অনেক বেশি গুরুত্ব পেতে থাকে একাডেমিয়াতে। বিতর্ক চলে, চলতেই থাকে।

    একাডেমিয়ায় আলোচনাগুলো, বিতর্কগুলো চলমান আছে৷ কিন্তু, সেগুলো আ’ম মানুষদের জন্য উপযোগী না। আ’মরা দর্শন জানে না, আ’মরা বিজ্ঞান বোঝে না, আ’মরা ক্রিটিকাল থিংকিং এর জন্য উপযোগী না। এজন্যই আ’মদের জন্য উপযোগী বই লেখা জরুরী। যেই কাজটা আরিফ আজাদ করেছেন। কিন্তু, সবাই তো আ’ম না। এই দেশে ইন্টেলেকচুয়াল কমিউনিটি আছে, যারা ক্রিটিকাল থিংকিং পছন্দ করে। দর্শন, বিজ্ঞান এবং ধর্মের একাডেমিক আলাপ জানে ও বোঝে। তাদের জন্যও তো বাংলায় বই আসা দরকার।

    সেই প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করেই বোধহয় লেখক এই বইটি লিখেছেন। পিওর একাডেমিক বই। এখানে আস্তিক-নাস্তিক বিতর্কের দার্শনিক ও বৈজ্ঞানিক সবগুলো সেক্টর নিয়েই আলোচনা এসেছে। বাদ দেয়া হয়নি কোনো একাডেমিক আর্গুমেন্ট- সেটা এথেইস্টিক হোক বা থেইস্টিক।

    তবে ইন্টেরেস্টিং হচ্ছে এই বইটা বাংলাদেশের প্রখ্যাত নাস্তিক হুমায়ুন আজাদের ‘আমার অবিশ্বাস’ গ্রন্থের অপনোদনে লেখা। হুমায়ুন আজাদকে আমার মিডিওকোর নাস্তিক মনে হয়। একাডেমিক জ্ঞান খুবই কম। অপ্রতুল তথ্য আর ফ্যালাসির কারণে তার রচিত আমার অবিশ্বাস গ্রন্থকে ভালোই মার দিয়েছেন এই লেখক। সবচেয়ে চমৎকার লেগেছে যেটি তা হচ্ছে- আজাদ সাহেবের আর্গুমেন্টের বিপরীতে লেখক মোটামুটি বহুল স্বীকৃত মতগুলো, পরিসংখ্যানগুলো এনেছেন, জোচ্চুরি করার চেষ্টা করেননি।

    আ’মদের জন্য উপযোগী না বইটি। যাদের মোটামুটি একাডেমিয়া নিয়ে কিছুটা আইডিয়া আছে, তাদের জন্য বেশ উপাদেয় হবে আশা রাখি। কেননা একটু কাঠখোট্টা ধরণের বই, আনন্দ নিয়ে পড়তে হলে আগেভাগে এসব বিষয়ে আগ্রহ আছে এমন মানুষ হওয়া জরুরী।

    রিভিউড বাইঃ আসিফ মাহমুদ

    15 out of 15 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    codeoflife:

    #ওয়াফিলাইফ_পাঠকের_ভাল_লাগা_সেপ্টেম্বর_২০২০
    *বইঃ অবিশ্বাসী কাঠগড়ায়
    *লেখকঃ ডা.রাফান আহমেদ
    *প্রকাশনাঃ সমর্পণ প্রকাশন
    *পৃষ্ঠাঃ ২৯৬
    *মূল্যঃ ৪১৭ টাকা (৩০% ছাড়ে ২৯৬ টাকা)

    ____________________________

    এটি মূলত একটি গবেষণামূলক বই। বাংলাদেশের নাস্তিক মুক্তমনারা হুমায়ুন আজাদকে দেবতুল্য মনে করে। হুমায়ুন আজাদ তার “আমার অবিশ্বাস” বইটির মাধ্যমে যুব সমাজে নাস্তিকতার বীজ রোপণ করতে কিছুটা হলেও সফল হয়েছিলেন। এই বইটি মূলত হুমায়ুন আজাদ এর মত অনেক নাস্তিক মুক্তমনাদের ভ্রান্ত ধারণাকে যৌক্তিকভাবে খন্ডন করে লেখা। হুমায়ুন আজাদ যাদেরকে গুরু (বাট্রান্ড রাসেল, রিচার্ড ডকিন্স) মনে করে মূলত তাদের রেফারেন্স দিয়েই রাফান আহমেদ নাস্তিকতার ভ্রান্ত যুক্তি খন্ডন করেছেন।

    _________________________

    বইটি শুরু হয়েছে টারজান বা মোগলীর মত একটা গল্প দিয়ে। যেখানে মানবশিশুটি নিজের বুদ্ধি দিয়ে আস্তে আস্তে সব কিছু আয়ত্ত করে নিচ্ছে। তার স্রষ্টাকে খুঁজে পাচ্ছে। না দেখে রবকে বিশ্বাস করাই তো মানব জনমের সার্থকতা। আমাদের অনেকেই হয়তো জানি না এই টারজান বা মোগলী গল্পটি ৯০০ বছর পূর্বে মুসলিম দার্শনিক ইবনে তুফাইল রচিত প্রথম দর্শনভিত্তিক উপন্যাস “হাঈ ইবনে ইয়াকজান ” গল্পের আদলে তৈরি হয়েছে। ৫০০ বছর আঁধারে থাকার পর ১৭০০-১৮০০ সালের দিকে টারজান বা মোগলী নিউইয়র্কে বেস্টসেলার হয়। থাক এবার মূল কথায় আসি।

    ২৯৬ পৃষ্ঠার এই বইটিকে লেখক মূলত ৭ টি ভাগে ভাগ করেছেন পাঠকদের সুবিধার জন্য। অবিশ্বাসীর বিশ্বাস, বিশ্বাসের সাতকাহন, ধর্ম নিয়ে যত কথা, ওপারে, অবিশ্বাসের ভাইরাস, আমার অবিশ্বাস, বিদায়বেলা এই সাতটি প্রবন্ধে লেখক তথ্যের পর তথ্য দিয়ে ভেঙে দিয়েছেন অবিশ্বাসের দুর্গ। প্রতিটি অধ্যায়ই শুরু হয়েছে চমৎকার সব গল্প দিয়ে। প্রতিটি অধ্যায়ের শেষে সংক্ষিপ্ত করে এর সারাংশ দেয়া আছে। প্রতিটি পাতায় পাতায় রয়েছে নাস্তিকদের অপনোদন।

    বইটার গুরুত্ব বেড়েছে এই কারণে যে লেখক মুসলিম স্কলারদের থেকে বেশি রেফারেন্স না নিয়ে, রেফারেন্স নিয়েছেন পশ্চিমা দার্শনিক ও বিজ্ঞানীদের থেকে যাদেরকে নাস্তিকরা গুরু মনে করে। কেননা মুসলিম স্কলারদের গবেষণার রেফারেন্স দিলে তো আবার অনেকের চুলকানি উঠে!
    এই বইয়ে যে রেফারেন্স দেয়া হয়েছে তা যেসব বই থেকে নেয়া হয়েছে তা বইয়ের শেষে তালিকা হিসেবে দেয়া হয়েছে। প্রায় দশ পৃষ্ঠা এই তালিকা। কোনো সন্দেহই নেই লেখককে প্রচুর বই পড়তে হয়েছে এই জন্য। রাফান আহমেদের ” বিশ্বাসের যৌক্তিকতা ” বইটি ছোট হলেও তা ছিল মূলত এই “অবিশ্বাসী কাঠগড়ায়” বইটির ট্রেইলার। এই বইটির মাধ্যমে যেন লেখকের কাজটি পূর্ণতা পেল।

    এই বইয়ের রেটিং ৫/৫ না হলে লেখকের চেষ্টাকে ছোট করা হবে, তা চাইনা। কিন্তু বইটির ফন্ট স্টাইল, আর বাঁধাই যদি আরেকটু সুন্দর হতো তাহলে আরো ভালো লাগত। আল্লাহ লেখকের লেখায় বারাকাহ দান করুক, আমিন। সবাইকে বইটি পড়ার দাওয়াত রইল।

    _________________________________

    🔥 রিভিউ লেখকঃ Abdullah Mohammad

    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    rrahman1210:

    যথা সময়ে সরবরাহ করা হয়েছে। ধন্যবাদ। ভালো বই।
    2 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top