মেন্যু
muminer binodon

মুমিনের বিনোদন

অনুবাদক : আবদুন নুর সিরাজি সম্পাদনা : মুফতি তারেকুজ্জামান পৃষ্ঠা : ১৪৪ একজন মুমিন হিসেবে কি এ অবাধ বিনোদন আমাদের জন্য অনুমোদিত? একজন মুসলিম হিসেবে কি পাশ্চাত্যের আবিস্কৃত এসব খেলার উপকরণ আমার জন্য... আরো পড়ুন
পরিমাণ

175  240 (27% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

7 রিভিউ এবং রেটিং - মুমিনের বিনোদন

5.0
Based on 7 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    মুহাম্মাদ আনাস:

    ইসলাম হলো ‘দ্বীনুল ফিতরাহ’ অর্থাৎ স্বভাবজাত ধর্ম। মানবপ্রকৃতির যত উপকারী চাহিদা আছে সবই ইসলাম সমর্থিত। শরীয়তের গন্ডির ভেতরে সবরকম বিনোদনই প্রয়োজন অনুপাতে বৈধ।

    আজকাল আমরা অনেকে বিনোদনকেই জীবনের প্রধান উদ্দেশ্য বানিয়ে ফেলি। কেউ কেউ তো এই খেলাধুলাকে জীবনের লক্ষ্যই বানিয়ে ফেলি, মা-বাবারা সন্তানকে আন্তর্জাতিক মানের খেলোয়াড় করে গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখেন। বিনোদনকে কেন্দ্র করে ঝগড়া-বিবাদ, মারামারি; এমনকি খুন, আত্মহত্যার ঘটনাও নিয়মিত ঘটছে।

    এটা অনেক বড় এক ফিতনা।জাতিকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার জন্য খেলাধুলা সম্পর্কে ইসলামের নির্দেশনাটা তাদের সামনে স্পষ্টভাবে তুলে ধরা এখন সময়ের চাহিদা। এই প্রয়োজনকে সামনে রেখে মুহাম্মদ পাবলিকেশন পাঠকের হাতে তুলে দিচ্ছে ‘মুমিনের বিনোদন’ বইটি।

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    ফাবিহা বিনতে কাশেম:

    ইসলামকে বলা হয় দ্বীনুল ফিতরাহ’। মানবপ্রকৃতির ক্ষুদ্র থেকে বৃহৎ এমন কোন দিক নেই, যা ইসলামের সীমার বাইরে।
    মুমিনের সবকিছুই হবে আলাদা মাধুর্যপূর্ণ এবং একটি নির্দিষ্ট সীমা পর্যন্ত। এমনকি মুমিনের বিনোদন কেমন হবে, অবাধ হবে কিনা তাও ইসলাম নির্ধারণ করে দিয়েছে। ‘ মুমিনের বিনোদন ‘ বইটি আমাদের এমনই কিছু তথ্যবহুল আলোচনা উপহার দিচ্ছে।
    বিনোদন হলো মনের খোরাক। মানুষ কখনই একটানা ব্যস্ততায় কাটাতে পারে না। কিন্তু বর্তমান সময়ে মানুষ দিনের বেশির ভাগ সময় বিনোদনেই বুঁদ থাকে আর সেসব বিনোদন নেই অধিকাংশই অশ্লীল এবং দ্বীনবিরোধী। তাই, ‘মুমিনের বিনোদন’ বইটি অত্যন্ত সময়োপযোগী এবং গুরুত্বপূর্ণ।
    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    muhammadashrafur203:

    onek valo ekti boi. amader ei juger jonno khubi dorkari ekti boi. Alhamdullilah
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    samrh.social:

    বহুরুপী রঙের এই দুনিয়ায় প্রায়ই আমরা বিনোদন আর অশ্লীলতাকে এক করে ফেলি।সত্যিকার অর্থে এই বিনোদনপন্থা আমাদের বহু মূল্যবান সময় নষ্ট করে ফেলে কিনা বা তা হালাল কিনা তা নিয়ে একবারও সুস্থ মস্তিষ্কে চিন্তা করবারও ফুরসাত আমাদের হয়না।আজ ফ্রেন্ডের বার্থডে পার্টি তো কাল অফিস পার্টি।আর অবসরের সময়টা যেন একটা বিরক্তিকর সময়,ফুরোতেই চায় না,অথচ আমরা চাইলেই বিভিন্ন উৎকৃষ্ট উপায়ে আমাদের বিনোদন টা হালাল এবং একইসাথে আনন্দদায়ক হতে পারতো।তাই লেখক প্রতিটি মুমিন বান্দার বিনোদন নিয়ে একটা সুন্দর বই আমাদের হাতে তুলে দিয়েছেন,আশা করি সবার মন জয় করতে সক্ষম হবে।
    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    আব্দুর রহমান:

    আমাদের মনে বিনোদন নিয়ে অনেক সংশয় কাজ করে। আলেম ওলামাদের কাছে শুনতে এটা হারাম, ওটা হারাম,এটা করা যাবে না ইত্যাদি। তাহলে কি মুমিনের জন্য বিনোদন বলতে কিছুই নেই। ইসলাম কি তাহলে এ যুগে মেনে চলা সাধ্যের বাইরে। আবার কেউ কেউ এসবের পেছনে যুক্তি খুজতে গিয়ে নিশ্চিত হারাম বিনোদনকেও হালাল বানিয়ে ফেলে। এমনকি অবস্থা এমন পর্যায়ে পোঁছেছে যে মানুষের মৃত্যু দিবসে পর্যন্ত গান, বাজনা, নাচ ইত্যাদি  নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে গেছে।
    এতদসত্ত্বেও একজন মুমিন মুসলমানের জন্য কতটুকু বিনোদন অনুমোদিত এই নিয়ে তেমন কোন আলোচনা হয়না বললেই চলে। এমতাবস্থায় কোন পর্যায়ে বিনোদন উদযাপন করলে তা শরীয়তের সীমালঙ্ঘন হবে না এ নিয়ে যারা দৈন্যতায় ভুগছিলেন তাদের দৈন্যতা ঘোচাতে শায়খ মুহাম্মাদ সালিহ আল মুনাজ্জিদ লিখেছেন ‘সানাআতুত তারফিহ’ ও ‘নাজারাতুন ফিল কাসাসি ওয়ার রিওয়ায়াত’ নামে দুটি মুল্যবান বই। অভিজ্ঞ অনুবাদক আবদুন নুর সিরাজি কতৃক বাংলায় অনুবাদের পর যার নাম দেয়া হয়েছে “মুমিনের বিনোদন”।

    সার-সংক্ষেপঃ-
    অভিজ্ঞ লেখক সালিহ আল মুনাজ্জিদ বইয়ের শুরুতেই বিনোদনের উপকারিতা, প্রয়োজনীয়তা এবং অবসর সময় কিভাবে কাটাবেন সে সম্পর্কে আলোচনা করেছেন। এর পর বইটিকে দুটি অধ্যায়ে ভাগ করেছেন। যথা-
    প্রথম অধ্যায়: বিনোদনের শরয়ী দৃষ্টিভঙ্গিঃ-
    এই অধ্যায়ে রাসূল (স:) এর যুগে বিনোদন কিরুপ ছিল এবং বর্তমানে বিনোদনের অবস্থা কিরকম তা আলোচনা করা হয়েছে। এছাড়াও বিনোদনের প্রকারভেদ ও মুসলিম সমাজ কি কারনে অশ্লীলতায় ডুবে যাচ্ছে সে সম্পর্কেও আলোচনা স্থান পেয়েছে।
    মূলত যতক্ষন বিনোদন শরীয়তের মূলনীতির মধ্যে থাকবে ততক্ষণ  বিনোদন পালন করতে কোন বাধা নেই। এখানে লেখক কুরআন-সুন্নাহ থেকে দশটি মূলনীতির কথা বলেছেন যেগুলো খেয়াল রাখলে বিনোদন শরীয়ত গর্হিত পর্যায়ে পৌছাবে না।

    দ্বিতীয় অধ্যায়: বিনোদনের বিবিধ মাসাইলঃ-
    এ অধ্যায়ের শুরুতে লেখক প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে বিনোদনের বেশকিছু মাসাইল সম্পর্কে আলোচনা করেছেন। তার মধ্যে অন্যতম হলো- বিনোদনের জন্য নারীদের বাইরে গমন করা, দাবা খেলার বিধান, চিড়িয়াখানা ভ্রমণ, টেলিভিশনে ফুটবল খেলা দেখা ইত্যাদি। এছাড়াও এই অধ্যায়ের বড় অংশ জুড়ে আলোচনা করা হয়েছে বর্তমান সময়ের বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম উপন্যাস নিয়ে। এখানের লেখক উপন্যাসের প্রকারভেদ এবং উপন্যাসের উপকারী ও ক্ষতিকর দিকগুলো তুলে ধরেছেন।
    .
    ▶যা কিছু ভালো লেগেছেঃ-
    ১। আকর্ষণীয় প্রচ্ছদ।
    ২। সহজ ও সাবলীল বর্ণনা।
    ৩। উপযুক্ত শব্দচয়ন ও রেফারেন্স সমৃদ্ধ আলোচনা।
    .
    ▶বইয়ের নেতিবাচক দিকঃ-
    বইতে সমালোচনা করার মত তেমন কিছু নেই। তবে-
    ১। প্রায় প্রতিটি বইতে দেখা যায় বইয়ের প্রতি পৃষ্ঠার উপরের অংশে একপাতায় বইয়ের নাম এবং একপাতায় অধ্যায়ের নাম থাকে। কিন্তু এই বইতে তা অনুপস্থিত ছিল।
    ২। একটি বই পড়ার পূর্বে বইয়ের লেখক কোথায় থাকেন, কি করেন, তার অন্য কোন প্রয়োজনীয় বই আছে কি না,  লেখকের আকিদা-মানহাজ কি ইত্যাদি বিষয় জানা জরুরী। কিন্তু বইতে কোন লেখক পরিচিতি দেয়া নেই।
    .
    ▶ব্যক্তিগত অনূভুতিঃ-
    ব্যক্তিগত অনূভুতি যদি বলতে হয় তাহলে বলবো বইটি এককথায় অসাধারন। লেখার ধরণ দেখে মনে হয়না যে এটা একটা অনুবাদ বই। বরং মৌলিক লেখা বলেই মনে হয়েছে।
    বইটি পড়ে আপনি ইসলামে বিনোদনের নীতিমালাগুলো খুব সহজভাবে জানতে পারবেন। যারা ইসলামে বিনোদন খুঁজে পাচ্ছেন না তারা এই বইটি অবশ্যই পড়তে পড়ুন। যা আপনাকে আরো গভীরভাবে আল্লাহর প্রতি আনুগত্য করতে অনুপ্রেরণা যোগাবে। কিছু কিছু বিষয় নতুনভাবে উপলদ্ধি করতে শেখাবে। অন্তরে এনে দেবে অনাবিল প্রশান্তি।
    সব মিলিয়ে বইটি খুবই ভালো এবং উপকারী। তাই বাংলাভাষী সকলের প্রতি  অনুরোধ “মুমিনের বিনোদন” বইটি একবার হলেও পড়ুন সেই সাথে নিজের প্রিয় মানুষটিকেও পড়তে দিন। গঠন করুন ইসলামি বিনোদনের সমন্বয়ে সুখময় জীবন। কারণ আল্লাহ তায়ালা মানুষকে সৃষ্টিই করেছেন তার ইবাদত করার জন্য, ইসলামি মূলনীতি ব্যতিত কোন নিছক বিনোদন ও খেলাধুলা করার জন্য নয়।
    ,

    7 out of 8 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No