মেন্যু
lost islamic history (islamer harano itihas)

লস্ট ইসলামিক হিস্ট্রি (ইসলামের হারানো ইতিহাস) (পেপার ব্যাক)

পৃষ্ঠা : 286, কভার : পেপার ব্যাক

অনুবাদক: আলী আহমাদ মাবরুর
পৃষ্ঠা: ২৮৬

লস্ট ইসলামিক হিস্ট্রি’র ভাষা প্রাঞ্জল ও সহজবোধ্য। ইসলামের ছোঁয়ায় উদ্ভাসিত প্রায় সব জনপদের ইতিহাসের সাথে পাঠকের একটি সামগ্রিক সংযোগ ঘটিয়ে দেয়ার চেষ্টা আছে বইটিতে। পুরো পৃথিবীব্যাপী বিস্তৃত একটি জাতির দেড়হাজার বছরের ইতিহাস মাত্র শ’তিনেক পৃষ্ঠায় খুঁটিনাটিসহ সংকুলান অসম্ভব। এ কারণে লেখক ইতিহাসগ্রন্থের সন-তারিখভিত্তিক বয়ানের গতানুগতিক পদ্ধতি এড়িয়ে ঘটনাপ্রবাহের প্রধান স্রোতকে স্পর্শ করেছেন। এজন্য রাসূলুল্লাহ সা.-এর জীবন, খোলাফায়ে রাশেদীনের শাসনকাল, উপমহাদেশের ইতিহাস ইত্যাদি যেসকল অধ্যায় আমাদের মোটামুটি পরিচিত, সেগুলোর ক্ষেত্রে বইটিকে কিছুটা অপূর্ণ মনে হতে পারে। কিন্তু পরবর্তী সময়ের বিবরণ এবং আফ্রিকা, আমেরিকা কিংবা দূরপ্রাচ্যের মুসলমানদের অজানা ইতিহাস পাঠকদের চমৎকৃত করবে। এ বইটির আরেকটি অসধারণ দিক হলো, ইতিহাসের ঘটনাপ্রবাহের স্পর্শকাতর ও মতবিরোধপূর্ণ বিষয়াদির বর্ণনায় ভারসাম্য। লেখক সেক্ষেত্রে প্রধান মতগুলোকে অল্পকথায় সামনে এনে একটি সমন্বিত বিশ্লেষণ দাঁড় করিয়েছেন। ইতিহাসের গৌরবোজ্জ্বল উদাহরণের পাশাপাশি তুলে এনেছেন বেদনাদায়ক অধ্যায়গুলোও। তাই পাঠক যুগপৎ আনন্দ-বেদনায় সিক্ত হবেন। হীনমন্যতা দূরীকরণের পাশাপাশি পাবেন আত্মপর্যালোচনার সুযোগও।

পরিমাণ

182  260 (30% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
- ৪৯৯+ টাকার অর্ডারে একটি প্রিমিয়াম বুকমার্ক ফ্রি!
- ১,৪৯৯+ টাকার অর্ডারে সারাদেশে ফ্রি শিপিং!

প্রসাধনী প্রসাধনী

2 রিভিউ এবং রেটিং - লস্ট ইসলামিক হিস্ট্রি (ইসলামের হারানো ইতিহাস) (পেপার ব্যাক)

5.0
Based on 2 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    এককথায় “চমৎকার” একটা বই। সংক্ষেপে ইসলামের ইতিহাস জানার জন্য খুবই উপযুক্ত মনে হয়েছে।

    ইসলামপূর্ব আরব থেকে শুরু করে নবীজি (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম), খুলাফায়ে রাশেদিন, উমাইয়া ও আব্বাসী খিলাফত, বুদ্ধিবৃত্তিক সোনালী যুগ, ইসলামী জ্ঞানচর্চা, ক্রুসেড, অটোম্যান, সাফাভি, মুঘল সাম্রাজ্য এবং সবশেষে মুসলিম রাষ্ট্রগুলোর বর্তমান অবস্থা নিয়ে সুন্দরভাবে আলোচনা করা হয়েছে।

    আমার জন্য বইটার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ ছিলো খুলাফায়ে রাশেদিন, শিয়াদের সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা এবং সর্বোপরি ধারাবাহিকভাবে মুসলিম সাম্রাজ্যগুলো সম্পর্কে জানার সুযোগ পাওয়া।

    পড়ার সময় মনে হয়নি যে অনুবাদ পড়ছি! বেশ ঝরঝরে অনুবাদ ছিলো।

    যা ভালো লাগেনি—

    মাঝখানের অনেক পৃষ্ঠায় বোল্ড করে কিছু তথ্য দেয়া ছিলো, অনেক জায়গায় তথ্যগুলো ছিলো ঐ পৃষ্ঠার তথ্যের সাথে অসামঞ্জস্যপূর্ণ। তাছাড়াও এমন করে তথ্য জানানোর বিষয়টা ভালো লাগেনি

    Highly recommended.

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    :

    ইসলামের রয়েছে এক বিস্তৃত ইতিহাস। যুগে যুগে ইসলামিক এবং নন-ইসলামিক উভয় ঘরানার স্কলাররাই ইসলামের ইতিহাস নিয়ে বহু গ্রন্থ রচনা করেছেন, যে রচনার কাজ আজো পর্যন্ত চলছে।
    .
    ইসলামের ইতিহাস নিয়ে খণ্ডে খণ্ডে বিশাল বিশাল গ্রন্থ রচিত হলেও মাত্র একটি খণ্ডের ছোট কলেবরে ইসলামের ইতিহাসের সামগ্রিক চিত্র নিয়ে আসার কাজ একেবারে বিরল। অথচ কোনো টপিক নিয়ে বিস্তৃত আকারে পড়ার আগে সেটা সম্পর্কে ধারণা নিতে ওই বিষয়ের সামগ্রিক চিত্র নিয়ে আসা ছোট একটা বই পড়ে নিতে বলেন গবেষকেরা।
    .
    ফিরাস আল খতীব তার ‘লস্ট ইসলামিক হিস্ট্রি’ বইতে ইসলামের ইতিহাসের সেই সামগ্রিক চিত্র ছোট কলেবরে নিয়ে আসার মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন। তিনি শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ইসলামের বুদ্ধিবৃত্তিক ইতিহাস’ বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর। প্রকাশের পর থেকেই বইটি আন্তর্জাতিক বাজারে বেস্টসেলারের তালিকায় স্থান করে নেয়।
    .
    বাংলা ভাষাভাষী মানুষদের কাছে বইটিকে বোধগম্য করতে বইটির অনুবাদ নিয়ে এসেছে প্রচ্ছদ প্রকাশন। ভাষান্তর করেছেন – আলী আহমাদ মাবরুর ভাই।
    .
    বইটি সম্পর্কে আরো একটি মূল্যবান তথ্য হলো, বর্তমান মিডিয়ার জনপ্রিয় তরুণ ইতিহাসবিদ ইমরান রাইহান ভাই বইটির একটি রিভিউ লিখেছেন। রিভিউটিতে ইসলামের ইতিহাস পড়তে আগ্রহী এমন সবাইকে তিনি এই বইটি পড়তে উৎসাহিত করেছেন।
    .
    এবার একটু ভিতরের পাঠ পর্যালোচনার কথা বলি। বইটিকে সাজানো হয়েছে মোট বারোটি অধ্যায়ে। প্রথমে লেখক একটি সুন্দর ভূমিকা লিখেছেন। তারপর প্রথম অধ্যায়ে এনেছেন ইসলামপূর্ব আরবের কথা৷ দ্বিতীয় অধ্যায়ে এসেছে নবিজী সা. এর জীবন ও তার জীবিত থাকাকালীন ইতিহাস নিয়ে। তৃতীয় অধ্যায়ে আলাপ হয়েছে, খোলাফায়ে রাশেদার যুগের ইতিহাস নিয়ে। চতুর্থ অধ্যায়ে ‘মুসলিম রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা’ শিরোনামে আলোচনা এসেছে উমাইয়া শাসনামল এবং তৎপরবর্তী আব্বাসীদের উত্থান নিয়ে। পঞ্চম অধ্যায়ে ‘বুদ্ধিবৃত্তিক সোনালী যুগ’ শিরোনামে কথা হয়েছে আব্বাসীদের আমলে মুসলিমদের বুদ্ধিবৃত্তিক উৎকর্ষসাধন নিয়ে। পরের শিরোনামগুলোর ভেতরেও লেখক বিভিন্ন শিরোনামে ধারাবাহিকভাবে ইতিহাস নিয়ে এসেছেন বর্তমান সময় পর্যন্ত। যার মধ্যে সংক্ষেপে উঠে এসেছে, আন্দালুস বিজয়, কনস্টান্টিনোপল বিজয়, ভারতবর্ষে মুসলিমশাসনসহ আরো অনেক মূল্যবান আলাপ-আলোচনা।
    .
    পাঠানুভূতি ব্যক্ত করতে বললে বলবো, এটা আমাকে ইসলামের ইতিহাসের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে। আমার ভিতর বিস্তৃতভাবে ইসলামের ইতিহাস পাঠের আগ্রহ জাগিয়ে দিয়েছে বইটি। এখন যদি আমি বিস্তৃতআকারে চার/পাঁচ খণ্ডের ইসলামের ইতিহাসের বই পড়তে যাই তাহলে সেটা বুঝতে পারা আমার জন্য অনেক সহজ হবে।
    .
    বইটির প্রচ্ছদ ও পৃষ্ঠাসজ্জা সত্যিই চমৎকার। বাঁধাইও বেশ ভালো৷
    .
    পরিশেষে, ইসলামের ইতিহাস পাঠে আগ্রহী যেকোনো ভাই বা বোনকে বলবো, প্রচ্ছদ প্রকাশন থেকে প্রকাশিত ‘লস্ট ইসলামিক হিস্ট্রি’ আপনার জন্য একটি অবশ্যপাঠ্য বই।
    6 out of 6 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top