মেন্যু
filistin beche thakar lorai

ফিলিস্তিন: বেঁচে থাকার লড়াই (পরিমার্জিত বর্ধিত সংস্করণ)

পৃষ্ঠা : 240, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : বর্ধিত সংস্করণ: নভেম্বর, ২০২০
ভাষা : বাংলা
অনুবাদ : মানসূর আহমাদ ও মাহদি হাসান সম্পাদনা : মুফতি মুহিউদ্দীন কাসেমী (বর্ধিত অংশ) ফিলিস্তিন। একটি আহত, ক্ষতবিক্ষত দেহ। লাখো শ্বাপদের দল যে শরীর খুবলে নিয়েছে তাদের হিংস্র নখর দিয়ে। . জেরুসালেম। এক কালের... আরো পড়ুন
পরিমাণ

234  320 (27% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

- ৫৯৯ টাকা অর্ডারে ১টি ফ্রি আমল চেকলিষ্ট।

- ৮৯৯ টাকা অর্ডারে ১টি ফ্রি বই।

18 রিভিউ এবং রেটিং - ফিলিস্তিন: বেঁচে থাকার লড়াই (পরিমার্জিত বর্ধিত সংস্করণ)

5.0
Based on 18 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    Nafisa Yasmin:

    লেখক ও দাঈ ও গবেষক– ড. রাগিব সারজানি রচিত ‘ফিলিস্তিন লান তাদি’ গ্রন্থটি।
    এই উল্লেখযোগ্য গ্রন্থটির বাংলা অনুবাদ ‘ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই’ প্রকাশ হতে চলেছে মুহাম্মদ পাবলিকেশনের পক্ষ থেকে। ভাষান্তর করেছেন প্রাজ্ঞ অনুবাদক মানসূর আহমাদ ও মাহদি হাসান।

    লেখক পরিচিতি
    ————————–
    ড. রাগিব সারজানি মিশরের প্রখ্যাত দাঈ, ইসলাম প্রচারক ও ইতিহাসবিদ। পেশায় তিনি একজন ডাক্তার। ইসলামি ইতিহাসের গভীর গবেষণার জন্য তিনি একজন প্রসিদ্ধ ইসলামিক গবেষক ও ইতিহাসবিদ হিসেবে পরিচিত। ইসলামীক ইতিহাস গবেষণা বিষয়ে এ পর্যন্ত তার ৫৬টি মূল্যবান কিতাব লিখেছেন।

    ব‌ই-বিষয়বস্তু(শর্ট পিডিএফ এর আলোকে)
    ———————————————————-
    মুহাম্মদ পাবলিকেশন পাঠককে ব‌ই সম্পর্কে অবগত করতে ৪৩ পৃষ্ঠার একটি ছোট্ট পিডিএফ উন্মুক্ত করেছে।
    নামকরণ থেকেই ধারণা করা যায় প্রকাশিতব্য ব‌‌ইটির বিষয়বস্তু সম্পর্কে। প্রতিটি দেশের, প্রত্যেকটি মুসলিম উম্মাহর ভালো বাসার দাবী ফিলিস্তিন যা একজন মুসলিম হিসাবে আমরা অস্বীকার করতে পারিনা।
    শর্ট পিডিএফ থেকে ধারণা করা যায়ঃ
    ফিলিস্তিনের সমস্যা ও সম্ভাবনার পাশাপাশি ইতিহাস সম্পর্কিত বহুল তথ্যের সমাহার ব‌ইটি।
    ফিলিস্তিন সম্পর্কিত সমস্যা, প্রতিকূলতা এবং এর সমাধান কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে সাবলীলভাবে প্রাক্টিক্যালি যুক্তির নিরিখে উপস্থাপন করা হয়েছে।

    বইটির প্রথমেই যে ভূমিকা রয়েছে আনদালুসের ইতিহাস নিয়ে সেই অংশটা ঈমানি দ্বীপ্তিকে বহুগুনে বাড়িয়ে দেয়। অবচেতন মনে তীব্র আলোড়ন বয়ে যায় এই ইতিহাস জানার পর। মুসলিম শাসকদের তৌহিদের তলোয়ার কতোটা জোরালো ছিল যা শাসন করেছিল একসময় স্পেন পর্তুগালকে। কিন্তু কালের পরিক্রমায় হারিয়ে যায় ইসলামের মানচিত্র থেকে আনদালুস। আনদালুসকে নিয়ে সেই আবেগ আর মুসলিম উম্মাহকে তাড়া করেনা।
    এইভিবেই কি ফিলিস্তিনও হারিয়ে যাবে মুসলিম উম্মাহর হৃদয় থেকে?
    ব‌ইয়ের ভূমিকাতে অত্যন্ত সাবলিল পরিমার্জিত হৃদয়গ্রাহী আলোচনা রয়েছে
    কেন আমরা ফিলিস্তিনকে মুক্ত করবো?’ শিরোনামে।

    মোট ১৪ টি প্রধান শিরোনামের অধীনে ছোটো ছোটো অসংখ্য উপশিরোনামে ‘ফিলিস্তিনকে মুক্ত করার কর্মপন্থা এবং একজন মুসলিম হিসাবে আমাদের করণীয় কী হতে পারে অথবা বহির্বিশ্বের মুসলমানদের দ্বায়িত্ব ও কর্তব্য কী তা নিয়ে সম্মানিত লেখক প্রাক্টিক্যালি বিস্তারিত আলোচনা করেছেন যা সহজেই নিস্তেজ হৃদয়কে জাগ্রত করে।

    ✔️কীভাবে জনমত তৈরি করা।
    ✔️গুরুত্বপূর্ণ আর একটা বিষয় আশার সঞ্চার করা।
    ✔️ ধনসম্পত্তির মাধ্যমে সহযোগিতা করা।
    ✔️ইজরাইলকে বয়কট করার কারণ এবং বয়কটের ফলপ্রসূতা।
    ✔️দুআর গুরুত্ব ও তাৎপর্য।
    ✔️ব্যক্তি ও সমাজকে পরিশুদ্ধ করার প্রয়োজনীয়তা।
    ✔️উলামায়ে কেরাম ও দাঈগণের কর্তব্য।
    ✔️তরুণ ও যুবকদের কর্তব্য।
    ✔️ সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মীদের কর্তব্য,
    ✔️শিক্ষকদের কর্তব্য।
    ✔️নারীদের কর্তব্য।

    পরিশেষে(কেন পড়বেন?)
    ————————————
    ফিলিস্তিন এক ক্ষতবিক্ষত মুসলিম উম্মাহর আত্মা যার দেহ খুবলে নিয়েছে নরখাদকের দল ইজরায়েল।
    একসময় সুশোভিত ছিলো জেরুজালেম, যেখানে অবস্থান করে হাজার নবী রাসুলের স্মৃতিবিজড়িত মসজিদুল আকসা, প্রথম কিবলা বায়তুল্লাহ মুখরিত হতো আজানের ধ্বনি। আজ ধূলিমলিন আকসা রক্তাক্ত। প্রিয় নবীজীর(সাঃ) কথা অনুযায়ী মুসলিম উম্মাহ তো এক‌ই দেহ, এক‌ই আত্মা যার কোন এক অ‌ংশ দগ্ধ হলে পুরো দেহ ব্যাথা পায়।

    একজন মুসলিম হিসেবে এই ক্ষতবিক্ষত রক্তাক্ত ফিলিস্তিনের মাটিতে ইসলামের পতাকা উড্ডীয়মান হোক সেটা কি আমাদের চাওয়া হতে পারেনা।
    তাই, সমগ্র মুসলিম পাঠকের হৃদয়কে জাগাতে মুহাম্মদ পাবলিকেশনের পক্ষ থেকে মলাটবদ্ধ আকারে প্রকাশ হতে চলেছে “ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই” ব‌ইটি।

    ⭕️সাবলীল অনুবাদ এবং ভাষার প্রাঞ্জলতা অন্তর ছুঁয়ে যায়। শর্ট পিডিএফটি পড়ে মনে হয়নি কোন অনুবাদ পড়ছি।

    আশা করবো, বইটি পাঠকমহলে ব্যপকভাবে সমাদৃত হবে এবং বাংলা ভাষাভাষী পাঠকের জন্য এক অসাধারণ স‌ওগাত ও আলোর দিশারী হয়ে প্রকাশিত হবে।

    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    তানজিন:

    “কল্পনা করুন আপনি একটি রাস্তা (ফিলিস্তিনের)দিয়ে হাটছেন। আপনার সাথে আপনার ৮ বা ১০ বছরের এক ছেলে। এমন সময় এক ইহুদি এসে একটা গুলি ছুড়ল,যা আপনা ছেলের মাথা বা বুকে বিদ্ধ হলো।ফলে সে আপনার সামনে ঢলে পড়ল।আপনি তার কোন চিকিৎসা করতে পারলেন না। শেষ পর্যন্ত সে আপনার চোখের সামনে মারা গেল।এরপর আপনি মাথা উঠিয়ে দেখলেন, শতকোটিরও বেশি মুসলিম এই দৃশ্য দেখছে,কিন্তুু কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না।তখন আপনি কি করবেন? আপনি কি আকাশের দিকে হাত তোলে সেসব লোকের বিরুদ্ধে বদদোয়া করবেন না।যারা এসব দেখছে কিন্তু কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না?”

    ★বই পরিচিতি-
    •মুসলিমদের কছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও পবিত্র ভূমি হচ্ছে ফিলিস্তিন। উমর ইবনুল খাত্তাব(রাহ:) শাসনামলে মুসলিমরা ফিলিস্তিন জয় করে।কিন্তু পরবর্তীতে পবিত্র ভুমি ফিলিস্তিন আক্রান্ত হয়েছে কখনো ক্রুসেডারদের দ্বারা কখনোবা মঙ্গলদের দ্বারা। তাদের থেকে পবিত্র ভুমিকে রক্ষা করেছেন সালাউদ্দিন আইয়ুবি(রাহ:) ও বুকনুদ্দিন বাইসার্স(রাহ:)।কিন্তু কালের বিবর্তনে আজ এই ভুমি জায়নবাদী ইহুদিদের দখলে।আর বসবাসরত মুালিমদের উপর চলছে প্রতিনিয়ত অত্যাচার নিপীড়ন ও নির্যাতন। তা থেকে মুালিমরা প্রতিনিয়ত বেচে থাকার লড়াই করছেন।
    •তাদের এই বেচে থাকার লড়াই একজন মুসলিম হিসেবে ফিলিস্তিনের প্রতি আমাদের কর্তব্য, দায়িত্ব ও করনীয়গুলো বিভিন্ন নসিহতের মাধ্যমে বইটিতে তুলে ধরেছেন। যা বইটির শর্ট পিডিএফের মাধ্যমে জানতে পারি।বইটিতে আরো আলোচিত রয়েছে,একজন মুসলিম ব্যাক্তিগত উদ্দ্যেগে ফিলিস্তিনের জন্য কী করতে পারেন,সতর্ক করেছেন পাশাপাশি সমাধানও কী হতে পারে বলে গেছেন।
    •বর্তমানে বিধ্বস্ত ফিলিস্তিনের জন্য সমগ্র মুসলীমদের উদ্দেশ্যে ৬টি অবশ্য পালনীয় কর্তব্যের কথা বলেছেন।যথাঃ-
    ১)জনমত তৈরী করা।
    ২)আশার সঞ্চার করা।
    ৩)ধন-সম্পতির মাধ্যমে সাহায্য করা।
    ৪)বয়কট করা।
    ৫)দোয়া।
    ৬)ব্যাক্তি ও সমাজকে পরিশুদ্ধ করা।

    ★বইটি যাদের জন্যঃ-
    বিশ্ব মুসলীম জাহানের জন্য এই বইটি দরকার বলে আমার মনে হয়।মুসলিমের দেহের এক অংশ অত্যাচারিত আর অপর অংশ চুপ থাকবে তা কখনোই হতে পারে না।আমাদের করনীয় সবকিছুই বইটি দেওয়া আছে।যারা সত্যিই তাদের ভাইদের জন্য কিছু করতে চায় তাদের জন্য এই বই অপরিসীম সহায়ক।

    ★লেখক+অনুবাদকঃ-
    “ফিলিস্তিন বেচে থাকার লড়াই” বইটি ড.রাগিব সারজানির ফিলিস্তিন সম্পর্কিত বই “ফিলিস্তিন লান আদী” এর অনুবাদ। পাঠকের বুঝার সুবিধার্থে আনুবাধক লেখকের ফিলিস্তিন বিষয়ে রচিত অন্য বইয়ের কিছু অংশ সংযুক্ত করেছেন।বই “ফিলিস্তিন লাল আদী” এর অনুবাদ করছেন মানসুর আহমাদ।এবং সংযোজিত অংশের অনুবাদ করেছেন মাহদি হাসান।আর বইটি প্রকাশনা করছেন উদীয়মান প্রকাশনী মুহাম্মদ পাবলিকেশন।সুতরাং চোখ বুঝে বইটি সংগ্রহ করা যেতে পারে।

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    jakariaabdullah35:

    বিসমিল্লাহ /

    আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লা তাঁর পবিত্র কালাম পাকে সূরা ইসরার প্রথম আয়াতে পৃথিবীবাসীর জন্য বরকতময় ভূমি বলেছেন ফিলিস্তিনকে । ফিলিস্তিনের গুরুত্ব বোঝানোর জন্য এই একটি আয়াতই যথেষ্ট। এছাড়াও যদি বলা হয় , এই ভূমিতেই রয়েছে মুসলিমদের প্রথম কিবলা, তৃতীয় হারাম শরিফ ও রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর মেরাজের স্টেশন মসজিদে আকসা। তাই ফিলিস্তিন কোন সাধারণ ভূখণ্ড নয়। ফিলিস্তিন মুসলিম উম্মাহর আবেগ ও ভালোবাসার স্থান। ফিলিস্তিনের সাথে জড়িয়ে আছে প্রত্যেক মুসলিমের নাড়ীর টান। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, অর্ধশতাব্দীরও বেশি সময় ধরে এ দেশের মাটি, মানুষ ও প্রকৃতি ইসরাইলি হায়েনাদের নির্যাতনের শিকার। মানুষ নামের এসব হায়েনা থেকে মুসলমানদের প্রথম কেবলা বায়তুল মুকাদ্দাসহ অনেক পবিত্র স্থান যুগ-যুগ ধরে অন্যায় ও নির্যাতনের স্টীমরোলার সহ্য করে আসছে।

    ফিলিস্তিনের সমস্যাটা সবচেয়ে গুরতর ও সংকটপূর্ণ একটা সমস্যা। ইসরাইল পুরো ফিলিস্তিন একটু একটু করে পুরোটাই দখল করে মুসলিম শূণ্য করে দিবে আর এক সময় স্পেনের মতো আমরা পর্যটক হিসেবে যেয়ে বায়তুল মুকাদ্দাসের ছবি তুলে তৃপ্তির ঢেকুর তুলে সেলফি তুলবো! আমাদের মুসলমানদের কী এতটুকু আত্মমর্যাদাবোধ নেই যে ফিলিস্তিন দখলের বিরুদ্ধে নিজেদের সামর্থ অনুযায়ী যার যার ক্ষেত্র থেকে প্রতিবাদ জানিয়ে যাবো কথা , লেখা ও কর্ম দিয়ে। আল্লাহর কাছে কি জবাব দেবো যখন জিজ্ঞাসা করা হবে ফিলিস্তিন দখল হয়ে গেলো তুমি তোমার কি প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছ? কুদসবাসী আজও তাকিয়ে আছে নতুন কোনো সালাহউদ্দিন আইয়ুবির আগমনপ্রতীক্ষায়। যাদের কথা না বললেই নয়, যুগে যুগে ফিলিস্তিনকে মুক্ত করেছেন সালাহ্উদ্দিন আইয়ুবি, নাজমুদ্দিন আইয়ুব, সাইফুদ্দিন কুতুজ ও রুকনুদ্দিন বাইসার্স প্রমুখ দিকপাল মহাবীরেরা (রাহিমাহুমুল্লাহ)। আজ তারা নেই সেজন্য কি ফিলিস্তিন মুক্ত হবে না! ফিলিস্তিনের মুক্তির জন্য কি আমাদের কিছুই করণীয় নেই?

    নির্যাতিত-নিপীড়িত ফিলিস্তিনের সংগ্রামী অধিবাসীদের আখ্যানসমৃদ্ধ ঘটনা নিয়ে এ পর্যন্ত রচিত হয়েছে অনেক বই, ডকুমেন্টারি, প্রামাণ্য গ্রন্থ, স্মারক, প্রবন্ধ ও ভিডিও। অনেকে এ নিয়ে গল্প, উপন্যাস, আখ্যান-উপাখ্যান লিখেছেন। কিন্তু এতো কিছু থাকলেও ফিলিস্তিন ইস্যুতে আমাদের করণীয় কি ; এ বিষয়ে যথেষ্ট ঘাটতি রয়ে গেছে। এ বিষয়ে আলোচনা নেই বললেই চলে। তাই এ ঘাটতি পূরণে আমাদের করণীয়গুলোই তাঁর ধারালো কলমে তুলে ধরেছেন মিসরের প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ ড. রাগিব সারজানি। ” ফিলিস্তিন বেঁচে থাকার লড়াই” বইটি রাগিব সারজানির “ফিলিস্তিন লান তাদী “মুলগ্রন্থেরই বঙ্গানুবাদ। বইটির কলেবর বেশ ছোট হওয়ায় বাংলাভাষী পাঠকের সুবিধার কথা বিবেচনা করে এবং বইটিকে আরও পূর্ণতা প্রদানের লক্ষ্যে সর্বসাধারণের জন্য বোধগম্য করে ‘মুহাম্মদ পাবলিকেশন’ পূর্বে (২০২০) সালে প্রকাশিত বইটির পরিমার্জিত ও বর্ধিত সংস্করণ প্রকাশ করতে যাচ্ছে ইনশাআল্লাহ। এক্ষেত্রে মূল লেখকেরই ফিলিস্তিন এবং আল -মুকাতআহ নামক বই থেকে কিছু বিষয় সংযোজন এবং পাঠকের উপকারে টীকাও সংযুক্ত করে দিয়েছেন প্রকাশনী। আশা করি, ইনশাআল্লাহ ; বইটি পূর্বের তুলনায় আরও বেশি সমাদৃত হবে এবং পাঠকপ্রিয়তা লাভ করবে।

    প্রকাশনী বইটির ৪৩ পৃষ্ঠার একটি শর্ট পিডিএফ উন্মুক্ত করেছেন। বইটিতে ফিলিস্তিন ইস্যু নিয়ে আমভাবে সকল মুসলিমকে ৬ টি বিশেষ কর্তব্য সম্পর্কে জানিয়েছেন লেখক। মূল ১৩ টি শিরোনামে এবং সংযুক্ত অসংখ্য উপশিরোনামে ফিলিস্তিন ইস্যুতে আমাদের করণীয় বিষয়াদি নিয়ে জীবনঘনিষ্ঠ আলোচনা ও দিকনির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে বইটিতে। কিছু শিরোনাম যেমন _ জনমত তৈরি করা ; আশার সঞ্চার করা, ধনসম্পত্তির মাধ্যমে সহযোগিতা করা ; বয়কট করা ; দোয়া ; উলামায়ে কেরাম এবং দাঈদের কর্তব্য ; তরুণ এবং যুবকদের কর্তব্য ; নারীদের কর্তব্য ; ইত্যাদি এবং সর্বশেষ আলোচনা এসেছে ফিলিস্তিনের জি হা দ সংক্রান্ত কিছু ফাতওয়া, নামক শিরোনামে। সমস্ত উম্মত একটি দেহের মতো এই হাদিসটি প্রায় সকলেরই জানা, কিন্তু উম্মতের জন্য করণীয় বিষয় অনেকাংশেই অজানা। মোট কথা, ফিলিস্তিন ইস্যুতে নিজ অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখতে চাইলে এই বইটি অন্যতম গাইডলাইন। ব্যক্তিগত মতামত, বইটি সংগ্রহে রাখা উচিত। আশা করি, বইটি গাফলতিতে সুপ্তিমগ্ন থাকা উম্মাহকে আবার জাগিয়ে তুলতে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে ইনশাআল্লাহ আল আযীয।

    বই : ফিলিস্তিন বেঁচে থাকার লড়াই (পরিমার্জিত ও বর্ধিত সংস্করণ)
    লেখক : ড. রাগিব সারজানি
    অনুবাদ : মানসূর আহমাদ ও মাহদি হাসান
    প্রকাশনী: মুহাম্মদ পাবলিকেশন
    মুদ্রিত মূল্য : ৩২০ টাকা মাত্র।

    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    Mukrima Sultana:

    ফিলিস্তিন। মুসলিমদের প্রথম কেবলা। একসময় যেখানে মুসলিমদের রাজত্য ছিল। তা সত্ত্বেও বহুবার ক্রুসেডদের দখলে চলে যায় এই ফিলিস্তিন। আর প্রত্যকবারই এক একজন মুসলিম সেনা তাদেত দখল থেকে ফিরিয়ে আনে। কিন্তু সেসব ছিল সোনালি অতীত। বর্তমানে এই ফিলিস্তিন এখন ক্রুসেডদের দখলে ক্ষতবিক্ষত দেহে পরিণত হয়েছে। এরই পরিপেক্ষিতে কিভাবে ফিলিস্তিন কে সাহায্য করতে নিজেদের থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা যায় সে সকল উপায় বাতলে দিতেই মুহাম্মদ পাবলিকেশন কর্তৃক প্রকাশিত “ড. রাগিব সারজানি” কর্তৃক রচিত বই “ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই”।

    ড. রাগিব সারজানি কর্তৃক রচিত “ফিলিস্তিন লান তাদি” বইয়ের ভাষান্তর রুপই হলো “ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই”। কিন্তু লেখকের মূল কিতাবটি সংক্ষিপ্ত হওয়ায় পুরো ব্যাপারটা পাঠকের বোঝার সুবিধার জন্য লেখকের আরো তিনটি বই যথাক্রমে ” ফিলিস্তিন — ওয়াজিবাতুল উম্মাহ”, “আনতা ওয়া ফিলিস্তিন ” এবং “আল মুকাতআহ” নামক বইগুলো থেকে কিছু বিষয় সংযোজন করে বইটি পাঠকের বোধগম্য করে তৈরি করা হয়েছে। আর এই ভাষান্তরের কাজ করেছেন ‘মানসূর আহমাদ’ এবং মাহদি হাসান।

    বইটির শর্ট পিডিএফ থেকে বই সম্পর্কে অল্প-বিস্তর ধারনা নেয়ার সুযোগ হয়েছে। বইটিতে ফিলিস্তিনকে বাচানোর জন্য আমাদের কি কি করা উচিত সে বিষয়গুলো খুব সুন্দরভাবে সহজ ভাষায় বর্ননা করা হয়েছে। আশা করছি সহজ সাবলিল ভাষায় রচিত বইটি পাঠক মনে খুব সহজেই জায়গা করে নিতে পারবে।

    শর্ট পিডিএফ অংশে ফুটে উঠেছে, ফিলিস্তিনকে বাচানোর জন্য কিভাবে আমরা নিজেদের মাঝেই এই সম্পর্কে জনমত তৈরি করতে পারি, ফিলিস্তিনকে আমরা কেন মুক্ত করব, মসজিদে আকসা আমাদের জন্য দামী নাকি মুসলমানদের রক্ত দামী। বইটির উন্মুক্ত শর্ট পিডিএফ অংশে এই বিষয়গুলো খুব সুন্দর সহজ সাবলিল ভাষায় বর্ণিত হয়েছে।

    মুসলিমরা যে যেখানে যত দূরেই থাকুক না কেন, সব মিলিয়ে এরা একটা দেহের মতোই। দেহের একটা অংশ যদি ব্যাথিত হয় তবে পুরো দেহটাই ব্যাথিত হয়। “ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই” বইটিতে বর্নিত সকল বিষয়গুলো যেন পুরো দেহের একটি অংশ অর্থাৎ ফিলিস্তিনকে বাচিয়ে নেয়ার ওষুধ নয়, বরং এটি পুরো দেহকেই বাচিয়ে রাখার ওষুধ।

    “ফিলিস্তি: বেঁচে থাকার লড়াই” বইটির সরবরাহকৃত শর্ট পিডিএফ থেকে বইয়ের সূচিপত্র এবং খন্ডাংশ পড়ে বুঝতে পারলান, বর্তমানের এই পরিস্থিতিতে লেখকের এই বইটা আসলেও সময়দের দাবী।

    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    halimabdullah019:

    #প্রিভিউ
    .
    কোনো ভূমিকা ছাড়াই বলি: ফিলিস্তিন ও আকসার জন্য সারাজীবন হাহাকার করে কী লাভ হবে, যদি কার্যকর কোনো পন্থা গ্রহণ না করা হয়? এই বইটি বিশেষভাবে তাদের জন্য রচিত, যারা ফিলিস্তিনের অধিবাসী নয়, কিন্তু দূরদেশ থেকে ফিলিস্তিনের জন্য ব্যথা অনুভব করে এবং যেকোনো উপায়ে ফিলিস্তিনিদের পক্ষে ভূমিকা রাখতে চায়। অর্থাৎ, আমরাই এর টার্গেট অডিয়েন্স। বইটিতে আমাদের জন্য পরিপূর্ণ গাইডলাইন দেওয়া আছে—কীভাবে দখলদারমুক্ত করে ফিলিস্তিনের হারানো ভূমিগুলো ফেরত আনতে হবে।
    .
    ফিলিস্তিন প্রসঙ্গে বইয়ের অভাব নেই। অধিকাংশ বইয়ে আছে ফিলিস্তিনিদের দুঃখগাঁথার বর্ণনা; কোথাও আছে মুজাহিদদের বিভিন্ন অভিযানের কাহিনি কিংবা ইসরাইলের সন্ত্রাসী কাজের ফিরিস্তি। কিন্তু ‘‘ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই’’ বইটার শুধু সূচিপত্র দেখেই বলতে হবে—হ্যাঁ, এটি এমন এক প্র্যাকটিক্যাল ও কার্যকরী বই, যা ফিলিস্তিনের জন্য কিছু করতে আগ্রহী ব্যক্তিদের জন্য ম্যানুয়াল হিসেবে কাজ করবে, ইনশাআল্লাহ্।
    .
    প্রশংসা অনেক হলো। এবার চলুন বইয়ের ভেতর থেকে ঘুরে আসি। আরবের প্রসিদ্ধ ইতিহাসবেত্তা ড. রাগিব সারজানির একাধিক ফিলিস্তিন-বিষয়ক বই থেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশগুলো অনুবাদ করে ‘ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই’ বইটিকে মলাটবদ্ধ করা হয়েছে। মুহাম্মদ পাবলিকেশন বইটি প্রকাশ করেছে। এটি বইয়ের পরিমার্জিত বর্ধিত সংস্করণ। নতুন এই বই সম্পর্কে ধারণা নেওয়ার জন্য বইটির ৪৩ পৃষ্ঠার একটি পিডিএফ উন্মুক্ত করা হয়েছে।
    .
    শুরুতেই লেখক একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা লিখেছেন। এটি মনোযোগের সাথে পড়া জরুরি। কারণ মুসলিমদের হারানো ফিরদাউস আন্দালুসের সাথে তিনি ফিলিস্তিনকে বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে কম্পেয়ার করেছেন। এরপর সাবধান করেছেন, সতর্ক করেছেন। কারণ, এভাবে চলতে থাকলে তা শীঘ্রই আন্দালুসের ভাগ্যবরণ করবে। সত্যি বলতে, প্রথমে বইটির ব্যাপারে অনেকটাই নিরাসক্ত ছিলাম। কিন্তু সারজানির ভূমিকাটুকু পড়ে নড়েচড়ে বসি এবং পিডিএফের পুরোটাই আগ্রহের সাথে পড়ে শেষ করে ফেলি।
    .
    বইটিতে লেখক অনেকগুলো উপায় আলোচনা করেছেন, যেগুলোর মাধ্যমে ফিলিস্তিনকে মুক্ত করা এবং ফিলিস্তিনিদের জন্য যথাযথ ভূমিকা রাখা সম্ভব। শুধু প্রধান কয়েকটি অধ্যায়ের শিরোনাম এখানে তুলে ধরছি: জনমত তৈরি করা, আশার সঞ্চার করা, অর্থনৈতিকভাবে সাহায্য করা, ইহুদিগোষ্ঠী ও এদের সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোকে বয়কট করা, দু‘আ করা, ব্যক্তি ও সমাজকে পরিশুদ্ধ করা। এই প্রতিটি উপায় কীভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে, লেখক তা পুঙ্খানুপুঙ্খ আলোচনা করেছেন বিভিন্ন শিরোনামে। সূচিপত্র দেখে আগ্রহ বেড়ে গিয়েছে; কারণ অনেক গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা ও ইতিহাসকে সামনে নিয়ে আসা হয়েছে। এরপর লেখক বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মুসলিমদের ব্যাপারে ভাগ ভাগ করে বিস্তারিতভাবে পয়েন্ট বাই পয়েন্ট দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন। যেমন: উলামায়ে কেরাম ও দাঈগণের কর্তব্য, তরুণ ও যুবকদের কর্তব্য, সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মীদের কর্তব্য, শিক্ষকগণের কর্তব্য, নারীদের কর্তব্য। সর্বশেষ ফিলিস্তিনের জিহাদ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ফতোয়া তুলে ধরা হয়েছে।
    .
    অনুবাদ যথেষ্ট সাবলীল মনে হয়েছে। মুহতারাম অনুবাদক টীকার মাধ্যমে বিভিন্ন অস্পষ্টতা ক্লিয়ার করে পাঠককে পরিতৃপ্ত করেছেন। প্রত্যেক সচেতন মুসলিম ভাই-বোনকে বইটি সংগ্রহ করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। ফিলিস্তিন আমাদের। এর জন্য ব্যথা অনুভব করা ঈমানের দাবী।
    .
    বই: ফিলিস্তিন : বেঁচে থাকার লড়াই
    লেখক: ড. রাগিব সারজানি
    অনুবাদক: মানসূর আহমাদ ও মাহদি হাসান
    প্রকাশনী: মুহাম্মদ পাবলিকেশন
    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top