মেন্যু
fatemi shamrajjer itihash

ফাতেমি সাম্রাজ্যের ইতিহাস

প্রকাশনী : মাকতাবাতুন নূর
অনুবাদ: মিফতাহ আল ফাতাহ পৃষ্ঠা: ২৫৬ কভার: হার্ড কভার মহাবীর, মহান বিজেতা, বিপ্লবী সিপাহসালার, ইসলামি ইতিহাসের মহানায়ক, সুলতান সালাহউদ্দীন আইয়ুবি রহ.-এর হাতে ৫৬৭হি. সনে ফাতেমি সাম্রাজ্যের কবর রচিত হয়। এ সাম্রাজ্যের সময়কাল ছিলো... আরো পড়ুন
পরিমাণ

236  337 (30% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
- ১,৪৯৯+ টাকার অর্ডারে সারাদেশে ফ্রি শিপিং!

প্রসাধনী প্রসাধনী

1 রিভিউ এবং রেটিং - ফাতেমি সাম্রাজ্যের ইতিহাস

5.0
Based on 1 review
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    ফাতেমি সাম্রাজ্য ইসলামের ইতিহাসে এক গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়।  বাগদাদের আব্বাসীয় খিলাফতের প্রতিদ্বন্দ্বীরূপে উত্তর আফ্রিকা ও মিসরে এদের ফাতেমী খিলাফত তথা শিয়া সাম্রাজ্যের উথান হয়। ওবায়দুল্লাহ আল মাহদী ছিলেন এই খিলাফতের প্রথম খলিফা। হযরত আলী (রা:) ও হযরত ফাতিমা (রা:) এর প্রত্যক্ষ বংশধর বলে তারা নিজেদের দাবি করে। এজন্য এদেরকে ফাতেমিও বলা হয় এবং এদের খেলাফত ফাতেমি খেলাফত নামে সুপরিচিত। তবে এরা নিজেদের ইসলামী খেলাফত নাম দিলেও তাদের আকিদা ও আদর্শ ছিল শিয়া গোষ্ঠীর নামে ইহুদি খ্রিষ্টানদেরই আকিদা বিশ্বাস।
    তাইতো ফাতেমি সাম্রাজ্য তথা শিয়াদের রাজ্যশাসনের সূচনা ও উত্থান-পতনের কথা সবিস্তারে তুলে ধরার নিমিত্তে বিখ্যাত লেখক ড. আলি মুহাম্মদ সাল্লাবি রচনা করেছেন “আদ-দাওলাতুল ফাতিমিয়্যাহ” নামক বইটি। মিফতাহ আল ফাতাহ কতৃক বাংলায় অনুবাদের পর যার নাম দেয়া হয়েছে “ফাতেমি সাম্রাজ্যের ইতিহাস।
    .
    ➤ সার-সংক্ষেপঃ-
    প্রখ্যাত লেখক ড. আলি মুহাম্মদ সাল্লাবি বইটিকে চারটি অধ্যায়ে বিভক্ত করে আলোচনা করেছেন। উৎপত্তির পর থেকেই শিয়াদের মাঝে অসংখ্য দল-উপদলের সৃষ্টি হয়। এবং নিজেদের মত ও মতাদর্শ প্রচার করতে থাকে। যা মুসলিমদের মতাদর্শের সাথে সরাসরি সাংঘর্ষিক ছিল।
    *প্রথম অধ্যায়:- এ অধ্যায়ে শিয়াদের পরিচয়, শিয়া সম্প্রদায়ের সূচনা, তাদের আকিদা বিশ্বাস ও তাদের প্রথম খলিফা উবাইদুল্লাহ মাহদি সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

    *দ্বিতীয় অধ্যায়:- এখানে উবাইদুল্লাহ মাহদি প্রতিষ্ঠিত উবাইদিয়া সাম্রাজ্যের সঙ্গে উত্তর আফ্রিকার গোত্রসমূহের বিরোধ ও উবাইদিয়া রাফেযিদের মূলোৎপাটনে আহলুস সুন্নাহ আলেমদের গৃহীত পদক্ষেপ ও কর্মপন্থা সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

    *তৃতীয় অধ্যায়:- এ সনহাজি সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা আবুল ফুতূহ ইউসুফ বিন জিরি এর শাসনামল, উত্তর আফ্রিকার দিকে বনী সুলাইম ও অপরাপর আরব সম্প্রদায়ের অভিযান এবং জিরি সাম্রাজ্য পতনের কারণসমূহ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

    *চতুর্থ অধ্যায়:- এ অধ্যায়ে উবায়দিয়া সাম্রাজ্যের পতন, বাতেনী সম্প্রদায়ের ভিত নির্মূল এবং ক্রুসেডার খ্রিষ্টানদের ভরাডুবির কারণসমূহ আলোচনা করা হয়েছে। এসবের পেছনে ইসলামের ইতিহাসের অন্যতম বীর সুলতান নূরুদ্দীন মাহমুদ ও সুলতান সালাহুদ্দীন আইয়ুবী (রহ:) এর অবদান সমূহ আলোচিত হয়েছে।

    এছাড়াও বইয়ের শেষে আলোচনার সারাংশ নামে একটি অংশ রয়েছে। যেখানে লেখক পুরো বই সম্পর্কে একনজরে সার-সংক্ষেপ আলোচনা করেছেন।
    .
    ➤ বইটি কেন পড়বেনঃ-
    আপনি যদি ফাতেমি সাম্রাজ্যের উত্থান পতন, আকিদা-বিশ্বাস এবং মুসলমানদের বিরুদ্ধে তাদের ষড়যন্ত্র সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে বইটি অবশ্যই পড়ুন। 
    এছাড়াও বইতে পাবেন শিয়া রাফেযিদের নির্মূল করতে সুলতান নূরুদ্দীন মাহমুদ ও সুলতান সালাউদ্দিন আইয়বী (রহ:) এর বিস্ময়কর অবদানের কাহিনী।
    .
    ➤ ব্যক্তিগত অনূভুতিঃ-
    বইটি পড়ে শিয়া সম্প্রদায় সম্পর্কে অনেক কিছু জেনেছি। যা এতদিন অজানা ছিল। অনুবাদ ও সম্পাদনাও খুবই চমৎকার হয়েছে। লেখা পড়তে গিয়ে মনে হয় না যে অনুবাদ পড়ছি। বরং যথেষ্ট সহজ ও সাবলীল, ও বোধগম্য ভাষায় রচিত মৌলিক লেখা বলেই মনে হয়েছে।
    তাই শিয়াদের সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানতে হলে বইটি সকলের জন্য পড়া জরুরী বলে মনে করি।

    2 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top