মেন্যু
nusaiba

ফ্যামিলি লাইফ

প্রকাশনী : নিয়ন পাবলিকেশন
পৃষ্ঠা : 96, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : 1st Published, 2022
ভাষা : বাংলা
পিতা-মাতা , ভাই-বোন , আত্মীয়- সজন অত্যন্ত কাছের প্রিয় মানুষগুলোকে নিয়েই আমাদের ফ্যামিলি লাইফ অর্থাৎ, পরিবারিক জীবন। বিশ্বজুড়ে পারিবারিক অশান্তি এবং নানাবিধ সমস্যায় বিপর্যস্ত মানুষের জীবন। তাহলে এর সমাধান কী?... আরো পড়ুন
পরিমাণ

147  198 (26% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

2 রিভিউ এবং রেটিং - ফ্যামিলি লাইফ

5.0
Based on 2 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    মুহাঃ রাশেদুল ইসলাম রাফি:

    যদি বইটি সম্পর্ক এককথায় বলতে হয় , তাহলে বলতে হবে “মিরাকল”।

    বই অত্যন্ত চমৎকার। বর্তমান নাজুক সমাজ ব্যবস্থায় পারিবারিক বন্ধন যখন ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম , ঠিক তখনই লেখক তার মেধা ও শ্রম দ্বারা বইটি আমাদেরকে উপহার দিয়েছে। বইটিতে পারিবারিক বন্ধন সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করা হয়েছে। যা বর্তমান সময়ে খুব দরকার ও প্রয়োজনীয়। এতে পরিবারের সদস্যদের পারস্পারিক দায়িত্ব ও কর্তব্যের অনুভূতি জাগ্রত হবে। যা পারিবারিক বন্ধন দৃঢ় করতে প্রয়োজন।

    লেখক বইটিকে পাচঁ ভাগে ভাগ করেছেন। যথা:-

    প্রথম অংশ :–
    এই অংশে লেখক স্বামীর প্রতি স্ত্রীর দায়িত্বসমূহ তুলে ধরেছেন। সমাজের বাস্তব চিত্র তুলে ধরেছেন , বর্তমান সমাজে আধুনিকতার নাম করে অনেক স্ত্রী তার স্বামীর অধিকারের প্রতি অমনোযোগী হয়ে উঠেছে। তারা তাদের স্বামীর অধিকারসমূহ পালন না করে নিজে মতো করে চলতে শুরু করেছে , এতে করেই পরিবারের মধ্যে অশান্তি সৃষ্টি হচ্ছে। এর ফলাফল অত্যন্ত ভয়ানক রুপ ধারণ করে সমাজে আবর্তিত হচ্ছে।

    দ্বিতীয় অংশ :-
    দ্বিতীয় অংশে লেখক স্ত্রীর প্রতি স্বামীর দায়িত্ব সমূহ উল্লেখ করেছেন। লেখক কোরআন ও হাদিসের বিভিন্ন উদ্ধৃতি দিয়ে স্ত্রীর প্রতি স্বামীর দায়িত্বের গুরুত্ব ও মাহাত্ম্য এখানে উল্লেখ করেছেন। স্ত্রীর প্রতি স্বামীর দায়িত্ব সমূহের মধ্যে , উত্তম জীবনযাপনের ব্যবস্থা করা , খাদ্য ও পোশাকের ব্যবস্থা করা , উত্তম বাসস্থানের ব্যবস্থা করা , গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ করা , ইসলামী জ্ঞান শিক্ষার ব্যবস্থা করা , মোহরানা আদায় ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন। সুতরাং স্বামীর প্রতি স্ত্রীর যেমন দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে , তেমনি স্ত্রীর প্রতি স্বামীর দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে।

    তৃতীয় অংশ:-
    লেখক তৃতীয় অংশে আলোচনা করেছেন পিতা-মাতার প্রতি সন্তানের কর্তব্য নিয়ে। পিতা-মাতার প্রতি সন্তানের কর্তব্য গুলোর অধিকাংশ আবর্তিত হয় বৃদ্ধ বয়সে। এই বইতে লেখক অনেকগুলো দায়িত্ব ও কর্তব্য আলোচনা করেছেন ,যা মানবজীবনে প্রয়োজনীয়। যেমন , দয়া করা , আনুগত্য করা , উত্তম জীবন যাপনের ব্যবস্থা করা , নরম সুরে কথা বলা , বৃদ্ধ বয়সে তাদের বেশি বেশি সেবা করা , তাদের মৃত্যুর পরে প্রাণভরে দোয়া করা।

    চতুর্থাংশ :-
    লেখক চতুর্থ অংশকে দুই ভাগে ভাগ করেছেন।
    যথা-
    ১.সন্তানের প্রতি পিতার দায়িত্ব সমূহ।
    ২.সন্তানের প্রতি মাতার দায়িত্ব সমূহ।

    ** পিতার দায়িত্ব সমূহের মধ্যে লেখক এখানে গুরুত্বপূর্ণ অনেক বিষয়গ উল্লেখ করেছেন। যেমন : বাবার প্রথম দায়িত্ব হলো সন্তানের একজন আদর্শ মায়ের ব্যবস্থা করা , সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার সাথে সাাথে আজান ও ইকামতের ব্যবস্থা করা , সুন্দর নাম রাখা , আকিকা করা , খাতনা করা , ইসলামী জ্ঞান শিক্ষাদান , উন্নতচরিত্র শিক্ষাদানের ব্যবস্থা করা , সন্তানের জন্য দোয়া করা , সন্তানের বিবাহের ব্যবস্থা করা , সন্তান নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা , আদর্শ শিক্ষাদান ইত্যাদি বিষয়গুলো।

    ***লেখক মায়ের দায়িত্ব সমূহের মধ্যে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করেছেন। যেমন , গর্ভাবস্থায় মায়ের কিছু দায়িত্ব রয়েছে ,তারপরে সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পরে কিছু দায়িত্ব রয়েছে ,যে সকল সন্তানের পিতা মারা যায় তাদের প্রতি মায়ের বিশেষ দায়িত্ব রয়েছে ।
    সর্বোপরি কথা হলো সন্তানের উত্তম চরিত্র গঠনে মায়ের ভূমিকা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ । কেননা মায়ের কাছে সন্তান প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করে এবং নৈতিক চরিত্রের ভিত্তি মায়ের কাছে থেকেই স্থাপিত হয়।

    অবশেষে এতটুকু বলি ,
    মহান রাব্বুল আলামিন যেন প্রিয় লেখককে নেক হায়াত দান করেন এবং বেশি বেশি বই উপহার দেয়ার তৌফিক দান করেন। আমিন!! ছুম্মা আমিন!!

    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    সাইফ মুহাম্মদ ইয়াকুব:

    🔰আমাদের জীবনের অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি স্তর হলো পরিবার। এই পরিবারের মাধ্যমেই গড়ে ওঠে একটি জাতি , একটি সমাজ , এমনকি একটি রাষ্ট্র।
    আর এই জাতি গঠন যদি আমাদের পারিবারিক জীবন থেকে শুরু হয় তাহলে কেমন হয়! জ্বি বলছিলাম “ফ্যামিলি লাইফ” বইটির কথা।

    🔰আলোচনার দিক-
    ব্যক্তিগত জীবনে যারা এখনো বিয়ে করেননি , তবে বিয়ে করতে যাচ্ছেন বা সদ্য বিবাহিত দম্পতি। অথবা এমনও হতে পারে যে, যাদের বিবাহিত জীবন কিছু তিক্ত ভুল বুঝাবুঝির জন্য বিচ্ছেদের দোরগোড়ায়। তাদের জন্য যথেষ্ট আলোচনা করা হয়েছে বইটিতে। পাশাপাশি একজন সন্তান হিসেবে তার পিতামাতার সাথে কেমন আচরণ করতে হবে , আবার পিতামাতা হিসেবে তার সন্তানের উপর দায়িত্ব বা কর্তব্য রয়েছে তার আলোচনাও সুন্দরভাবে এই বইটিতে স্থান পেয়েছে। আর তাও পবিত্র কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে। অর্থাৎ একটি আদর্শ পরিবার গঠনের জন্য যেরকম রুপরেখা দরকার , যেরকম সুন্দর একটি কাঠামো প্রয়োজন , ঠিক তেমনই কিছু টিপস্ বা পরামর্শই লেখক তুলে ধরেছেন তার এই বইতে।

    “ফ্যামিলি লাইফ” বইটি এমন একটি বই , যে বইটি পড়লে আমরা জানতে পারবো কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে রাসূল (সা. ) এর অতুলনীয় চমৎকার পারিবারিক জীবন সম্পর্কে । তিনি তার প্রিয়তমা স্ত্রীদের সাথে কিরূপ ব্যবহার করেছেন ,তার প্রিয়তমা সঙ্গীনিরা তাকে কতোটুকু শ্রদ্ধা করেছেন , কতোটুকু ভালোবেসেছেন এমন সব বাস্তবধর্মী জ্ঞান। বইটিকে লেখক চারটি বিভাগে ভাগ করে তার আলোচনাগুলো ফুটিয়ে তুলেছেন। যেমন-
    ১. স্বামীর প্রতি স্ত্রীর দায়িত্বসমুহ
    ২. স্ত্রীর প্রতি স্বামীর দায়িত্বসমুহ
    ৩. পিতামাতার প্রতি সন্তানের কর্তব্য ও
    ৪. সন্তানের প্রতি পিতামাতার দায়িত্ব’র পাশাপাশি কিছু বাস্তব জীবনের গল্পও এই বইতে আলোচনা করা হয়েছে।

    লেখকের দক্ষতা সম্পর্কে বলতে গেলে- সংসার জীবন সাজিয়ে তুলতে কুরআন ও সুন্নাহর আলোকে একটি বই যেমন হওয়া প্রয়োজন লেখক ঠিক তেমনটিই করেছেন। কুরআন ও সুন্নাহর আলোচনা উদ্ধৃতি ব্যতিত লেখক ব্যক্তিগত কথা খুব কমই লিখেছেন বইটিতে। অর্থাৎ বলা যায় সংসার জীবনের অন্যতম সম্মিলিত একটি পরামর্শ। সে ক্ষেত্রে লেখক অবশ্যই প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য। এবং এক্ষেত্রে আমার বিশ্বাস লেখক যথেষ্ট চেষ্টা করেছেন বইটিতে অজানা কিছু তথ্য দেয়ার এবং তা পেরেছেন বলেও আমার ধারণা।

    বইটি আমার যথেষ্ট ভালো লেগেছে। তার অন্যতম কারণ হলো , আমরা সংসার জীবন সম্পর্কে অনেক কিছু জানলেও একটা গুছানো জ্ঞানের অবস্থা তৈরি করতে সক্ষম হইনা। লেখক সেই কাজটিকে সহজ করে একমলাটে বাঁধার চেষ্টা করেছেন। যাতে করে দাম্পত্য জীবন সুন্দর করার পাশাপাশি পিতামাতার কেমন সন্তান হওয়া দরকার বা একজন সন্তানকে কিভাবে সুন্দর করে গড়ে তোলা প্রয়োজন এমন টিপসগুলো আমরা খুব সহজে জানতে এবং বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করতে পারি।

    🔰সমালোচনার দিক-
    একটি বই যেমনি আলোচনা পাওয়ার যোগ্য। কিছু ভুলত্রুটির জন্য সামান্য হলেও সমালোচনার মুখোমুখি হতে হয় এটাই স্বাভাবিক। সে ক্ষেত্রে বইয়ের তেমন কোনো ভুল না থাকলেও বানানের ক্ষেত্রে কিছু ভুল পাওয়া যায় বইটিতে। তবে এমন কিছু ভুল একমাত্র সুক্ষ্ম দৃষ্টিতেই ধরা সম্ভব।
    পরিশেষে এই সমালোচনার দিকটুকুও পরিমার্জনের উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে লেখকের সুন্দর জীবনের উজ্জ্বল ভবিষ্যত কামনা করছি।

    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top