মেন্যু
facebook khoti noy kollan boye anuk

ফেইসবুক: ক্ষতি নয় কল্যাণ বয়ে আনুক

প্রকাশনী : মাকতাবাতুন নূর
পৃষ্ঠা : 140, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : 1st published 2020

অনুবাদঃ হামদুল্লাহ লাবীব

ফেসবুক; ক্ষতি নয়, কল্যাণ বয়ে আনুক৷ বইটি যখন আপনার হাতে এসে পৌঁছেছে, ততদিনে মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ ও আফ্রিকার লাখো পাঠক বইটির সুখপাঠ সমাপ্ত করেছেন। বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছে পাঠক মহলের।

বর্তমান সমাজে ফেইসবুক আত্মিকব্যাধির রূপ নিয়েছে। বহু মনোরোগের উৎস হয়ে দাড়িয়েছে৷ পৃথিবীর অনেক দেশে এ রোগ নিরাময়ের বেশ কিছু পদক্ষেপ চোখে পড়লেও বাংলাদেশে তেমন জোড়ালো পদক্ষেপ চোখে পড়ছে না৷ অথচ বর্তমানে এ রোগ মহামারীর আকার ধারণ করেছে। যুবশক্তিকে নিঃশেষ করে দিচ্ছে। প্রতিনিয়ত দুর্বল করে দিচ্ছে আমাদের চেতনার ভিতকে। হুমকির মুখে পড়ছে প্রাইভেসি ৷ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে আমাদের গড়ে তোলা সমাজ ও ইসলামি সভ্যতা সংস্কৃতি। এসব হচ্ছে ফেইসবুকের অনিয়ন্ত্রিত লাগামহীন ব্যবহারের ফলে। ইসলামের সঠিক দিক নির্দেশনা আমাদের সামনে না থাকার দরুন। অথচ সময়কে কাজে লাগালে জনশক্তির বিচারে এতদিনে আমরা থাকতাম বিশ্বের অন্যতম উন্নত ও শীর্ষস্থানীয় জাতি। সঠিক উপায়ে অন্যায়ের প্রতিবাদে আমরা পেতাম শিরোপার সম্মান ৷ ফেইসবুকের নীলসাদা জগত থেকে আমাদের তরুণ সমাজ ইহলৌকিক ও পারলৌকিক রসদ সহজে নাগালে পেতে সক্ষম হত।

একটু দেরিতে হলেও গুণীজনরা একটু একটু ব্যাপারটা উপলব্ধি করতে পারছেন৷ পথ খুঁজছেন উত্তরণের। আমরা আশাবাদী, “ফেইসবুক; ক্ষতি নয়, কল্যাণ কয়ে আনুক” বইটি পতিত সমাজ উত্তরণের সঠিক পথনির্দেশ করবে। আর সভ্য ও সুন্দর সমাজ গড়তে সামান্য হলেও অবদান রাখবে৷ আর ফেসবুক হবে সত্যিকারের একটি স্বস্থিদায়ক সামাজিক প্লাটফরম ৷ তাই প্রতিটি ফেসবুক ব্যবহারকারির জন্যই তা উপকারি মনে করি৷

পরিমাণ

154  220 (30% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
- ১,৪৯৯+ টাকার অর্ডারে সারাদেশে ফ্রি শিপিং!

প্রসাধনী প্রসাধনী

2 রিভিউ এবং রেটিং - ফেইসবুক: ক্ষতি নয় কল্যাণ বয়ে আনুক

5.0
Based on 2 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    ‘সাবধান! ফেসবুক যেন আপনার সময় নষ্ট করার মাধ্যম না হয়। আপনি আপনার যৌবন সম্পর্কে জিজ্ঞাসিত হবেন। জীবনের হিসাব আপনাকে দিতে হবে। ‘

    ★পাঠ_পর্যালোচনা–
    ————————-
    একজন মুসলিম হিসেবে ইসলাম আমাদের বলে দিয়েছে কীভাবে জীবনযাপন করতে হবে। জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ইসলাম আমাদের দিক-নির্দেশনা দিয়েছে। বিষয়টি ছোট হোক কিংবা বড় হোক। চাইলেও আপনি আপনার মতো করে আমল করতে পারবেন না। শরিয়ত আপনাকে যেভাবে বলেছে ঠিক সেভাবে আমল করতে হবে। যদি আপনি মুমিন হয়ে থাকেন অবশ্যই নিজের ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিবেন না। কারন এটাই ইসলাম ধর্মের অনন্য বৈশিষ্ট্য। আল্লাহর মনোনীত ধর্ম এটা। কোনো কাফের মুশরিকদের বানোয়াট ধর্ম না। আমরা প্রায় সবাই ফেসবুক ব্যবহার করে থাকি। এটিকে ছোটখাটো বিষয় ভেবে ইচ্ছেমতো ব্যবহার করতে যাবেন না। এক্ষেত্রেও রয়েছে শরিয়তের বিধান। মিসরীয় লেখক আলি মুহাম্মদ শাওক্বী মূল বইটি লিখেছেন। এর অনুবাদ করেছেন হামদুল্লাহ লাবীব সাহেব। আর মুসলিম পাঠকের হাতে বইটি তুলে দেওয়ার জন্য বাংলা অনুবাদের মহান দায়িত্ব হাতে নিয়েছেন ‘মাকতাবাতুন নূর’ পাবলিকেশন্স।
    ‘ফেসবুক ক্ষতি নয় কল্যাণ বয়ে আনুক’ একটি বুদ্ধিবৃত্তিক গবেষণার ফসল। এই গ্রন্থটি মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ ও আফ্রিকার লাখো পাঠকের কাছে সমাদৃত হয়েছে। তারা বইটির সুখপাঠ সমাপ্ত করেছেন। এখন বাংলার পাঠকদের বইটির স্বাদ আস্বাদন করার পালা।
    ‘ফেসবুক ক্ষতি নয় কল্যাণ বয়ে আনুক’ গ্রন্থে ফেসবুক ব্যবহারের যাবতীয় শিষ্টাচার ও আদব নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।
    বইটিতে যেসব বিষয় উঠে এসেছে তার কিছু পয়েন্ট তুলে ধরলাম যাতে আপনি বইটি কেন পড়বেন তা অনুধাবন করতে পারেন । ইনশাআল্লাহ।

    ♣প্রথম পরিচ্ছেদের বিষয়বস্তু–
    ♦পেইজের নামকরণ
    ♦ছদ্মনামে ফেসবুক পেইজের নামকরণের হুকুম
    ♦ফেসবুক পেইজের নাম ‘কুরআন ও সুন্নাহ’, আল্লাহ আমার রব, কুরআন আমার নীতি, অথবা সুবহানাল্লাহ ‘ ইত্যাদি যিকির দ্বারা নামকরন করার বিধান কি?
    ♦আল্লাহ ও নবি-রাসূলদের সাথে ইশক্ব শব্দযোগে পেইজের নাম দেওয়ার বিধান
    ♦নবিজীর উপনাম ‘আবুল কাসিম’ রাখার বিধান
    ♦ ফেসবুক পেইজ হ্যাক করা বা তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার বিধান

    ♠দ্বিতীয় পরিচ্ছেদে ফেসবুক পেইজে ছবি সংযুক্ত করার বিধান সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এছাড়া সেলফি ও নারী ছবির বিধান নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে।

    ♦ফেসবুক পোস্ট সম্পর্কিত বিধান
    ♦ফেসবুকে যে পোস্টগুলো করে সওয়াব অর্জন করা যায়
    ♦মুমিনদের অসম্মান করা ও তাদের দোষ প্রচার করা হতে বিরত থাকুন।
    ♦বৈধ পোস্ট সম্পর্কে কিছু সতর্কতা

    ♣ষষ্ঠ পরিচ্ছেদে পোস্টে লাইক ও কমেন্ট সম্পর্কিত শিষ্টাচার বিষয়ে যাবতীয় আলোচনা করা হয়েছে।
    ♦অন্যায়কে প্রত্যাখ্যান করুন
    ♦কমেন্টকারীর জন্য যেসব বিষয় বৈধ
    ♦স্টিকার ব্যবহার বিধান কি? এগুলো চিত্রাঙ্কন বলে ধরা হবে?

    সবশেষে ফেসবুকে ম্যাসেজ আদান-প্রদান বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আলহামদুলিল্লাহ। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ফেসবুক ব্যবহারকারীর জন্য।

    ফেসবুক ব্যবহারের সময় আমার দ্বিনী ভাই-বোনদের মনে অনেক বিষয়ে প্রশ্ন আসে। এটা করা জায়েয কিনা, ওটা করা যাবে কি না? যেমন- কোনো পেইজ হ্যাক করলে গুনাহ হবে কি না? ইমোজি বা স্টিকারগুলো ব্যবহার করলে গুনাহ হবে কি? আলেমদের সাথে কীভাবে ম্যাসেজ বা কমেন্ট করা উচিত ইত্যাদি বহুমুখী প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন। ইনশাআল্লাহ।

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    :

    বইটি সত্যি অসাধারণ। আমাদের নিত্য দিনের সময় নষ্টের একটা মাধ্যম হলো ফেইসবুক। সে ফেসবুক দিয়ে কল্যাণ নিয় আসা মানে ফেসবুককে দ্বীনের কাজে ব্যবহার করা। আবর্জনা থেকে মহামূল্যবান বস্তু প্রস্তুত করা। আশা করি, বইটি ভালো হবে।
    7 out of 7 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No