মেন্যু


ইলেকট্রনিক গেমস এবং কমার্সিয়াল সেন্টারের মহামারি

অনুবাদ : শেইখ আসিফ, আশিক আরমান নিলয় 
পরিমার্জন এবং সম্পাদনা: সাজিদ ইসলাম
শর’ঈ সম্পাদনা: মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মাসউদ

পৃষ্ঠাঃ ১৩০ পৃষ্ঠা

আজকের প্রজন্ম ভুলে গিয়েছে মুক্ত বাতাসের দৌড়ানো, তারা জানে না ঝুম বৃষ্টিতে কাদা পানি চুবিয়ে ফুটবল খেলার আনন্দ, বর্ষাকালে নদী-পুকুরে ডুব দিয়ে এক ভিন্ন দেশে যাওয়ার বিনোদন। যে কচি বয়সটা ছিল প্রকৃতির মাঝে হারিয়ে যাওয়ার, সেই বয়সটা এখন গ্রাস করে ফেলেছে কিছু ইলেক্ট্রিক ডিভাইস। প্রযুক্তি এবং মর্ডানাইজেসন আমাদেরকে যতটা কল্যাণের পাশাপাশি অকল্যাণ বয়ে এনে, তার মধ্যে এটি একটা।  ঘন্টার পর ঘন্টা স্ক্রিনে ডুবে থাকা শিশুটা হারিয়ে ফেলে চাঞ্চল্য স্বভাব।
এই দিকে শপিং মলের রঙবেরঙের চোখ ধাঁধানো কাপড়ের মাঝে হারিয়ে যাচ্ছে মেয়ে শিশুটি! মৌলিক প্রয়োজন মেটানোর জন্য যার উদ্ভব, তা আজ বিলাসিতায় রূপ নিয়েছে। যুব সমাজের দ্বীন নষ্ট করার কারণ হয়েছে। সংসার ভাঙার কারণ হচ্ছে। মানুষের ব্যক্তিত্বকে আজ কন্ট্রোল করছে এই ইন্ডাস্ট্রিগুলো।

আরবের প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন, ফকিহ, শায়খ সালেহ আল-মুনাজ্জিদ এই দিককে সামনে রেখেই দিয়েছেন অসাধারণ কিছু নসিহত। যা শিশু-যুবকদেরকে গেম নামক নেশা থেকে বেড়িয়ে আনতে সহায়ক হবে এবং প্রডাক্টিভ করবে, নারী থেকে শুরু করে মার্কেট কর্তৃপক্ষকে সবার জন্য উত্তম নসিহত এবং কর্মপন্থায় ভরপুর একটি বই এটি।

পরিমাণ

130  200 (35% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

1 রিভিউ এবং রেটিং - ইলেকট্রনিক গেমস এবং কমার্সিয়াল সেন্টারের মহামারি

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    উম্মাহর প্রতি সচেতন, আলেমে দ্বীন শায়েখ সালেহ আল মুনাজ্জীদ রচিত যুগোপযোগী বই একটি বই হলো ‘ইলেকট্রনিক গেমস এবং কমার্সিয়াল সেন্টারের মহামারি’।বর্তমান সময়ে সবচেয়ে ভয়াবহ আকার ধারণ করা এ দুটো বিষয় লেখক গভীর বিশ্লেষণের সাথে আলোচনা করেছেন।

    #বিষয়বস্তু
    ভিডিও গেমস যে কতটা মহামারি আকার ধারণ করেছে সেটা বলার অপেক্ষা রাখেনা।ছোট শিশু থেকে শুরু করে প্রাপ্ত বয়স্কদেরও গেমস নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় নষ্ট করতে দেখা যায়।এতে সময়ের যেমন নিদারুণ অপচয় হচ্ছে তেমনি শিশু-কিশোরদের শারিরীক-মানসিক বিকাশও হচ্ছে বাধাগ্রস্ত।গেমসে আসক্তরা হয়ে উঠছে অসামাজিক,অলস,অকর্মঠ।লেখক বিভিন্ন গেমসের উদাহরণ দিয়ে দেখিয়েছেন,এসব কতটা ইমান ও চরিত্র বিদ্ধংসী।গেমসের আড়ালে মুসলিম সন্তানদের আকিদা-বিশ্বাস নষ্ট করা,শিরক-কুফরির প্রতি আকৃষ্ট করা,নৈতিকতার অধঃপতন ইত্যাদি স্পষ্ট উদাহরণ লেখক বর্ণনা করেছেন।গেমসের ফলে ভুক্তভোগী বহু পিতামাতার উদ্ধৃতি লেখক তুলে ধরেছেন যা এখনকার বাবা মা’কে সতর্ক হতে সাহায্য করবে।

    ‘কমার্সিয়াল সেন্টার’ টপিকে লেখক ইসলামি বাজার ব্যবস্থা কেমন হওয়া উচিত, বর্তমান বাজার ব্যবস্থা কতটা শরীয়ত বিরোধী তা বর্ণনা করেছেন।এই বাজারগুলোকে কেন্দ্র করে যেভাবে ভোগবাদের প্রবণতা গড়ে উঠছে,অশ্লীলতার প্রচার হচ্ছে,নারীদের হয়রানি,সামাজিক অবক্ষয় বেড়ে চলেছে ইত্যাদি বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করেছেন।
    এ দু’টো বিষয়ের ভয়াবহতা তুলে ধরার পাশাপাশি,ইসলামিক দৃষ্টিকোন,কুরআন ও হাদীসের প্রাসংগিক বর্ণনা,সালাফদের মতামত ইত্যাদি উল্লেখ করা হয়েছে।এসব সমস্যা থেকে উত্তরণের নানা কার্যকরি পদক্ষেপও আলোচিত হয়েছে।

    #ভালোলাগাঃ অনুবাদের মান ঝরঝরে,সহজবোধ্য।উম্মাহর মাঝে সচেতনতা জাগ্রত করতে লেখকের উদ্যোগ প্রশংসনীয়।বইয়ের সাথে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আল্লাহ তা’আলা উত্তম জাযা দান করুন।আমীন।

    #বইটি কাদের জন্যঃমহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া এ দুটো বিষয় নিয়ে প্রত্যেকেরই জানা উচিত।অভিভাকদের জন্য,গেমসে আসক্ত ও শপিং ম্যানিয়াকদের জন্য অবশ্য পাঠ্য একটি বই।

    বইয়ের প্রচ্ছদ,বাঁধাই,পৃষ্ঠার মান ৪/৫।

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No