মেন্যু
১০০০ টাকার পণ্য কিনলে সারা দেশে ডেলিভারি একদম ফ্রি।

আসহাবে রাসূলের জীবনকথা (১ম খন্ড থেকে ৬ষ্ঠ খন্ড )

সাহাবা কারা?
‘সাহাবী’ শব্দটি আরবী ভাষার ‘সুহবত’ শব্দের একটি রূপ। একবচনে ‘সাহেব’ ও ‘সাহাবী’ এবং বহুবচনে ‘সাহাব’ ব্যবহৃত হয়। আভিধানিক অর্থ সংগী, সাথী, সহচর, এক সাথে জীবন যাপনকারী অথবা সাহচর্যে অবস্থানকারী। ইসলামী পরিভাষায় ‘সাহাবা’ শব্দটি দ্বারা রাসূলুল্লাহর সা. মহান সংগী-সাথীদের বুঝায়। ‘সাহেব’ শব্দটির বহুবচনের আরো কয়েকটি রূপ আছে। তবে রাসূলুল্লাহর সা. সংগী-সাথীদের বুঝানোর জন্য ‘সাহেব’-এর বহুবচনে ‘সাহাবা’ ছাড়া ‘আসহাব’ ও ‘সাহব’ও ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

আল্লামা ইবন হাজার রাহ. ‘আল–ইসাবা ফী তাময়ীযিস সাহাবা’ গ্রন্থে সাহাবীর সংজ্ঞা দিতে গিয়ে বলেনঃ ইন্নাস সাহাবিয়্যা মান লাকিয়ান নাবিয়্যা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামা মু’মিনান বিহি ওয়া মাতা আলাল ইসলাম’- অর্থাৎ সাহাবী সেই ব্যক্তি যিনি রাসূলুল্লাহর সা. প্রতি ঈমান সহকারে তাঁর সাক্ষাৎ লাভ করেছেন এবং ইসলামের ওপরই মৃত্যুবরণ করেছেন।

উপরোক্ত সংজ্ঞায় সাহাবী হওয়ার জন্য তিনটি শর্ত আরোপ করা হয়েছে। ১. রাসূলুল্লাহর সা. প্রতি ঈমান ২. ঈমানের অবস্থায় তাঁর সাথে সাক্ষাৎ (আল-লিকা) ৩. ইসলামের ওপর মৃত্যুবরণ (মাউত ’আলাল ইসলাম)।

Clear
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

4 রিভিউ এবং রেটিং - আসহাবে রাসূলের জীবনকথা (১ম খন্ড থেকে ৬ষ্ঠ খন্ড )

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5
    Rated 5 out of 5

    :

    রাসূল সা.-এর পর এই উম্মাহর সব থেকে উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন সাহাবী রা. গণ।তাঁরা ছিলেন প্রিয় রাসূল সা.-এর বন্ধু,সঙ্গী,সাথী।রাসূল সা.-এর প্রত্যক্ষ সাহচর্য লাভের কারণে আমল, ইবাদত,তাকওয়া,নীতি-নৈতিকতা,ন্যায়বিচার,সাহসীকতা,সামাজিকতা,মানবিকতায় তাঁরা ছিলেন রাসূলের (সা.) জীবন্ত প্রতিচ্ছবি।ইসলাম নামক পরশ পাথরের স্পর্শে তাঁরা পরিণত হয়েছিলেন একেক জন সোনার মানুষে।সর্বোত্তম মানবিক গুণাবলীর বিকাশ সাধিত হয়েছিল তাঁদের মধ্যে।আবদুল্লাহ ইবনে মাস’উদ (রা.) বর্ণিত এক হাদীসে রাসূল সা. স্বয়ং সাহাবা রা.-দের শ্রেষ্ঠত্ত্বের ব্যাপারে প্রত্যায়ন করেছেন।তিনি বলেছেন,”আমার উম্মতের মধ্যে সর্বোত্তম লোকেরা হচ্ছে আমার যুগের লোকেরা।”

    রাসূল সা. -এর হাত ধরে সর্বোত্তম সমাজ ব্যবস্থার যে ভিত্তি স্থাপিত হয়েছিল, সাহাবী রা. রা তার প্রথম নমুনা। ঈমাণ ও বিশ্বাস তাঁদের সসামগ্রীক যোগ্যতাকে আলোকিত করে দিয়েছিল।স্বল্প সময়ের মধ্যে তাঁরা বিশ্বের সর্বাধিক অঞ্চলকে প্রভাবিত করতে সক্ষম হয়েছিলেন।আজও যদি আমরা সাহাবা রা.-দের অনুরূপ সমাজ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চাই তাহলে আমাদের কে সেইসব গুণাবলী অর্জন করতে হবে যা সাহাবা রা.-দের মধ্যে বিদ্যমান ছিল।আর এর জন্য প্রয়োজন ব্যাপক ভাবে তাঁদের জীবনীচর্চা।

    রাসূল সা.-এর সাহাবীদের জীবনী সম্পর্কিত মৌলিক গ্রন্থ বাংলা ভাষায় নেই বললেই চলে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী বিভাগের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আবদুল মাবুদ-এর ‘আসহাবে রাসূলের জীবনকথা’ সেদিক দিয়ে অনবদ্য সৃষ্টি।১৯৮৯ সালে প্রথম প্রকাশের পর থেকে আজ অবধি সিরিজটি বহুল প্রচারিত এবং প্রশংসিত।লেখক ছয়টি খন্ডে মোট ১৯৮ জন প্রসিদ্ধ সাহাবী (রা.)-র সংক্ষিপ্ত জীবনী সংকলিত করেছেন।
    ১ম খন্ডের শুরুতেই লেখক একটি ছোট প্রবন্ধের মাধ্যমে সাহাবী রা.-দের পরিচয়,তাঁদের মর্যাদা,কিভাবে বা কেন তাঁরা সাহাবী রা. হিসেবে চিন্হিত হবেন,তাঁদের সংখ্যা কত ছিল?,তাঁদের জীবনী পাঠের গুরুত্ব ইত্যাদির ওপর আলোকপাত করেছেন।
    প্রথম এবং দ্বিতীয় খন্ডে লেখক মক্কা থেকে মদীনায় হিযরত করে যাওয়া মুজাহির সাহাবী রা.-দের জীবনী সংকলন করেছেন।
    তৃতীয় এবং চতুর্থ খন্ডে সংকলিত হয়েছে আনসার সাহাবীদের জীবনী।
    পঞ্চম খন্ডটি পুরোটাই রচিত হয়েছে আমাদের উম্মুল মু’মিনিন দের নিয়ে।
    ষষ্ঠ খন্ডে বর্ণিত হয়েছে নারী সাহাবী রা.-দের জীবনী।
    সাহাবী রা.-দের ইসলাম পূর্বের জীবন, ইসলাম গ্রহনের পরের অবস্থা,রাসূল সা.-এর সাথে তাঁদের সম্পর্ক,বিশেষ চারিত্রিক গুণাবলী, তাঁদের মর্যাদা ইত্যাদি বিষয় গুলোকে লেখক তুলে ধরেছেন।
    সব গুলো খন্ডের শেষে গ্রন্থসূত্র জুড়ে দেয়া হয়েছে যা আগ্রহী পাঠকের জ্ঞান তৃষ্ণা মেটাতে সহায়ক হবে।
    ৫ম এবং ৬ষ্ঠ খন্ডে প্রতি পৃষ্ঠার নিচে তথসূত্রের উল্লেখ করা হয়েছে,যা লেখকের বক্তব্যকে দৃঢ় করেছে।

    আমরা এবং আমাদের সন্তানেরা ‘ফেইক হিরোইজমের ‘ পাল্লায় পড়ে প্রতিনিয়ত প্রতারণা আর ভ্রান্তির শিকার হচ্ছি।কারণ যারা নিজেরা ভণ্ড তারা আমাদের কি শেখাবে? অথচ আমাদের সাহাবী রা.- রা ছিলেন ‘রিয়াল লাইফ হিরো’।তাঁদের অনেকের জীবন কাহিনী রূপকথার গল্পকেও হার মানাবে।
    বইটি বেশ বড় হয়েপড়ার সুযোগ পেয়েছি।মুগ্ধ হয়ে পড়েছি।বারংবার ই মনে হয়েছে আরো আগে কেন হাতে পেলাম না?
    সরল- প্রাঞ্জল ভাষায় লেখা বইটি কিশোর থেকে বর্ষীয়ান সবার পড়ার উপযুক্ত বই।সাহাবী রা.- রা হচ্ছেন আমাদের সত্যিকারের ‘রোল মডেল’।তাঁদের মত হতে হলে বেশি করে তাঁদের জীবনী পাঠের বিকল্প নেই।সাহাবী রা. দের সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানার জন্য ‘আসহাবে রাসূলের জীবনকথা ‘ বেশ সহায়ক একটি গ্রন্থ।

    Was this review helpful to you?
  2. 5 out of 5
    Rated 5 out of 5

    :

    বইটি কেন পড়বেন?
    আমাদের প্রিয় নবীকে কীভাবে অনুসরন করতে হবে তা সবচেয়ে সুন্দরভাবে দেখিয়ে গেছেন সাহাবীরা। তাদের অনুসরুন করলে আমরা নবীকে অনুসরন করার পন্থা, আনন্দ ও উপকারিতা সহজে বুঝতে পারবো। এই বই সেটাই শেখাবে।

    বই সম্পর্কে ধারনাঃ
    মোট ৬ খন্ডে সমাপ্ত এই বই। বাংলা ভাষায় এই বইটি বেশ পুরানো ও বৃহৎ কলেবরের সাহাবীদের জীবনী সম্পর্কিত বই। আমি ১ম খন্ড পড়েছি। তাই এই খন্ডের রিভিউ লিখছি।

    এই বই নিয়ে আলোকপাতঃ
    ১ম খন্ডে ৩০ জন ১ম সারির সাহাবীদের জীবনী বর্ননা করা হয়েছে। হযরত খাদীজা, আবু বকর, উমার, উসমান, আলী (র) সহ আশারায়ে মুবাশশারার সাহাবীগন সহ আরো ২০ জন সাহাবীর জীবনী আলোচনা করা হয়েছে।
    ভূমিকায় সাহাবী কারা, মর্যাদা, চিনবার উপায়, সংখ্যা ইত্যাদি বিষয়ে প্রাথমিক ধারণা দেয়া হয়েছে।
    সাহাবীদের বংশ, পরিবার ইত্যাদি শুরুতে বর্ননা করে জীবনের গুরুত্বপূর্ন কর্মকান্ডগুলো সাবলীলভাবে বর্নিত হয়েছে। বই পড়তে পড়তে কখন যে চোখের কোনে পানি জমে টপ করে নিচে পড়বে তা টেরও পাওয়া যাবে না। তাদের ত্যাগ, তিতিক্ষা, ভালোবাসা, মনোবল ইত্যাদির বিষয়ে জানলে মন নরম হয়, অনুপ্রাণিত হওয়া যায়।

    বই থেকে যে শিক্ষাগুলো পাবেনঃ
    # সাহাবীদের অসাধারন জীবনী থেকে রাসূলকে মানার শিক্ষা
    # শত প্রতিকূলতায়ও ইসলামের পক্ষে টিকে থাকা
    # ইসলামকে প্রচার করতে এবং তাঁর প্রসার ও প্রতিষ্ঠায় কীভাবে নিজের জীবনকে বিলিয়ে দিতে হয়
    # রাসূলকে কীভাবে ভালবাসতে হয়, তাঁর জন্য অন্য সব কিছুকে উতসর্গ করা যায়।

    নিজের অনুভূতিঃ
    এই বইটা পড়ে একসাথে ৩০ জন সাহাবী সম্পর্কে ধারণা হয়েছে যা এক কথায় অসাধারন। মনে হয়েছে তারা এত ত্যাগ কিভাবে স্বীকার করতো? তাদের সাথে আমাদের এত দূরত্ব! আমরা কত পিছিয়ে। অনেক উৎসাহ ও পেয়েছি আলহামদুলিল্লাহ। আল্লাহ তাদের সাথে আমাদেরও জান্নাতে যাবার তৌফিক দিন আমীন।
    রেটিং ৯/১০

    Was this review helpful to you?
  3. 5 out of 5
    Rated 5 out of 5

    :

    Highly recommended books for anyone who is interested in the lives of the sahabas around the Prophet (sm).
    Was this review helpful to you?
  4. 5 out of 5
    Rated 5 out of 5

    :

    প্রাঞ্জল, সুখপাঠ্য ও হৃদয়গ্রাহী ভাষায় লেখা অসাধারণ একটি জীবনী সিরিজ।
    ইসলামের ঊষালগ্নের অগ্রপথিক সাহাবা (রাজিঃ)-দের ক’জনকেই বা চিনতাম! বইগুলো পড়তে পড়তে জানছি যে কত বহুসংখ্যক সাহাবীদের অচিন্ত্যনীয় ত্যাগের ইতিহাস, এক সাহাবীর ত্যাগ আর মেহনত যেন আরেকজনের চেয়ে বেশি। বইগুলো পড়লে, উপলব্ধি করার চেষ্টা করলে সাহাবীদের প্রতি অপরিসীম শ্রদ্ধা আর অকৃত্রিম ভালোবাসা হৃদয় থেকে উৎসারিত হয়। সেই সাথে ইসলামের প্রথম যুগের পবিত্র আর রোমাঞ্চকর ইতিহাসগুলোও জানা হয়ে যায়। আত্নসংশোধনে আর জীবনে চলার পথে প্রেরণা যোগায় এ ইতিহাস।
    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?