মেন্যু
cholo jai jannate

চলো যাই জান্নাতে

প্রকাশনী : হুদহুদ প্রকাশন
পৃষ্ঠা : 168, কভার : হার্ড কভার
জান্নাত একজন প্রকৃত মুমিনের জন্য মহান রবের প্রতিশ্রুত সর্বশেষ ও সর্বশ্রেষ্ঠ উপহার। উপহার এজন্য যে, কেউ-ই কেবল তার আমলের বিনিময়ে জান্নাতের মতো মূল্যবান বস্তু লাভে সক্ষম হবে না। আল্লাহ অনুগ্রহ... আরো পড়ুন
পরিমাণ

150  300 (50% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

9 রিভিউ এবং রেটিং - চলো যাই জান্নাতে

4.8
Based on 9 reviews
5 star
77%
4 star
22%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    আব্দুর রহমান:

    মৃত্যু এক চিরন্তন সত্যের নাম । যা এড়িয়ে যাওয়ার কোন উপায় নেই। এই মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গেই মানুষের দুনিয়াবী জীবনের শেষ হয়।
    আল কুরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন- “প্রত্যেক প্রাণীকেই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে এবং তোমাদের সকলকে (কর্মের) পুরোপুরি প্রতিদান কেবল কিয়ামতের দিনই দেওয়া হবে। অতঃপর যাকে জাহান্নাম থেকে দূরে সরিয়ে জান্নাতে প্রবেশ করানো হবে, সে-ই প্রকৃত অর্থে সফলকাম। আর (জান্নাতের বিপরীতে) এই পার্থিব জীবন তো প্রতারণার উপকরণ ছাড়া আর কিছুই নয়।” —[সুরা আলে ইমরান : ১৮৫]
    এর থেকে বুঝা যায় দুনিয়ার জীবনই আমাদের জন্য শেষ নয়। মৃত্যুর মাধ্যমেই এই দুনিয়াবী জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটবে। শুরু হবে পরকালীন অধ্যায়। এই দুনিয়ার জীবনে কৃতকর্মের উপর ভিত্তি করবে আমরা জান্নাতে যাবো নাকি কঠিন শাস্তির স্থান জাহান্নামের যাবো।
    সুতরাং মানুষের উচিত, কুরআন-সুন্নাহর বিধান মোতাবেক নিজেদের জীবন পরিচালনা করার মাধ্যমে নিজেদেরকে জান্নাতের জন্য তৈরি করা। জান্নাতের নেয়ামত লাভে নিজেদের ধন্য করার চেষ্টা করা।
    সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে হুদহুদ প্রকাশন থেকে শিঘ্রই প্রকাশিত হতে যাচ্ছে ইমাম ইবনু কাইয়্যিম আল জাওজিয়্যাহ রহ. লিখিত “চলো যাই জান্নাতে” নামক বইটি।
    .
    ➤ সার-সংক্ষেপঃ-
    যেহেতু বইটি এখনো প্রকাশিত হয়নি তাই এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনার সুযোগ নেই। তবে প্রকাশের পূর্বেই প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান হুদহুদ প্রকাশন থেকে বইটির একটি শর্ট পিডিএফ উন্মুক্ত করা হয়েছে। যেখানে স্থান পেয়েছে সূচিপত্র সহ বইয়ের বেশকিছু অংশ। সেখান থেকে দেখা
    লেখক ইমাম ইবনুল কাইয়্যিম জাওজিয়্যাহ (রহ) বইটিকে সর্বমোট ৩০টি শিরোনামে বিভক্ত করে আলোচনা করেছেন। প্রতিটি শিরোনামে জান্নাতে যাওয়ার জন্য দুনিয়ার মানুষকে উদাত্ত আহব্বান জানানো হয়েছে। তার মাঝ থেকে সূচিপত্রের কয়েকটি শিরোনাম হলো-
    বান্দা মুখাপেক্ষী আর আল্লাহ অমূখাপেক্ষী
    সব নেয়ামতই আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে।
    আনুগত্যের পেছনের কথা
    বিপদে ধৈর্যধারণ
    পরজগতে জবাবদিহির ধরণ ইত্যাদি।
    .
    ➤ ব্যক্তিগত অনূভুতি:
    যেহেতু এটি একটি বইয়ের শর্ট পিডিএফ মাত্র। তাই বই নিয়ে সার্বিকভাবে মন্তব্য করার সুযোগ নেই। তবে যেটুকু পড়লাম তাতে অনুবাদ বেশ সহজ ও সাবলীল মনে হয়েছে। এটুকু বলতে পারি, যে বইটি পড়লে আপনার কাছে মনে হবে এটি বুঝি আপনার বাচ্চার জন্যই লেখা হয়েছে। আর বইটি নির্দিষ্ট সময় বা নির্দিষ্ট কিছু মানুষের জন্য নয় বরং সকল মুসলমানদের সবসময়ের জন্যই জরুরী। কারণ জান্নাতে যাওয়ার জন্য আমাদের সবাইকে চেষ্টা করতে হবে। যেখানে রয়েছে চিরসুখ ও শান্তির ঠিকানা।
    তাই আমরা বইটি প্রকাশের জন্য আগ্রহভরে অপেক্ষার প্রহর গুণছি।
    .
    ➤ শেষ কথাঃ-
    অতএব উপরোক্ত বিষয়সমূহ জানার পর কে এমন পাঠক আছেন যিনি বইটি কেনার প্রতি আগ্রহ প্রকাশ করবেন না?
    তাই আসুন প্রকাশিতব্য “চলো যাই জান্নাতে” বইটি কিনে এবার নতুন কিছু হোক। আমরা সবাই মিলে একসাথে জান্নাতে যাওয়ার জন্য দুনিয়ায় আল্লাহর ইবাদতে মশগুল হই। এই দুনিয়া তো ক্ষণস্থায়ী। চিরস্থায়ী আবাসস্থল তো রয়েছে আখিরাতে।
    আশা করি বইটি সকল দ্বীনি ভাই-বোনদের কল্যাণে আসবে। তাই বইটি আপনি সংগ্রহ করুন এবং আপনার আপনজনকেও সংগ্রহ করতে বলুন।
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 4 out of 5

    চাঁদ সুলতানা:

    ▪️প্রারম্ভিকা:
    ________________

    প্রতিযোগিতার ঘোষণা পোস্ট পড়ছিলাম। যত ভালোই লিখি না কেন, প্রতিযোগিতার নিয়মাবলি মেনে পোস্ট করতে হবে। না হয়, পোস্ট বাতিল বলে গণ্য হবে। ঘোষণার পোস্ট পড়তে পড়তেই আমি বইয়ের নামের দিকে খেয়াল করলাম।

    “চলো যাই জান্নাতে”, আচ্ছা এই প্রতিযোগিতার জন্যই যদি এত নিয়মকানুন থেকে থাকে। তো পুরো পৃথিবীর চেয়েও দামী যে জান্নাত, তা কি এমনি এমনি পাওয়া যাবে। অবশ্যই না। কীভাবে আমরা জান্নাতে যেতে পারবো, আল্লাহকে কীভাবে সন্তুষ্ট করতে পারব! জান্নাতের দিকেই আহ্বানকারী হুদহুদ প্রকাশনের বই “চলো যাই জান্নাতে”। বইটি লিখেছেন ইমাম ইবনু কায়্যিম আল জাওজিয়্যাহ রাহ.। অনুবাদ করেছেন কথাসাহিত্যিক মাওলানা মাহমুদ হাসান কাসেমি।

    .
    ▪️শর্ট পিডিএফ পড়ে অনুভূতি:
    ____________________________

    একজন পাঠক হিসেবে শর্ট পিডিএফে চোখ বুলিয়ে সন্তুষ্ট হয়ে গিয়েছি। আলহামদুলিল্লাহ!
    কারণ, বইয়ের শুরুতেই ভূমিকার পর পর আল্লাহর পরিচয় নিয়েই কথা বলা হয়েছে। টপিকের শিরোনাম দেওয়া হয়েছে, “বান্দা মুখাপেক্ষী আর আল্লাহ অমুখাপেক্ষী”। তারপরের টপিকটা ছিলো বিধান-বিন্যাস।

    এছাড়াও উল্লেখযোগ্য আরও কিছু টপিক হলো:

    🔸 আল্লাহর নেয়ামতের শুকরিয়া জ্ঞাপন
    🔸 আল্লাহর নেয়ামতের ওপর চিন্তাভাবনা করা
    🔸 স্থির থাকার প্রতিজ্ঞার্জন
    🔸 মানুষ দু’প্রকারে বিভক্ত
    🔸 ধৈর্য, ধৈর্য, তারপরও ধৈর্য
    🔸 জান্নাত-জাহান্নাম : জান্নাতি-জাহান্নামি
    🔸 ভালোবাসার উন্মুক্ত দরজা
    🔸 অন্বেষণের অবস্থান
    🔸 পরজগতে জবাবদিহির ধরন ইত্যাদি।

    এ’বইয়ে প্রিয় নবীর (সা:) দেখানো পথে চলার কথা, আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য আমাদের অবশ্য করণীয় কর্তব্যগুলো এবং কুরআন হাদীসে উল্লিখিত বাণী।

    .
    ▪️বইটি কারা এবং কেন পড়বেন:
    ____________________________

    প্রত্যেক মুসলিমেরই বইটি পড়া উচিত। বিশেষ করে, সচেতন যারা তাদের জন্য বইটি অবশ্য পাঠ্য এবং বেস্ট রিমাইন্ডার হিসেবে কাজ করবে, ইন শা আল্লাহ!

    আপনি যদি জান্নাতপ্রত্যাশী একজন মুসলিম হন তো বইটি কেন পড়বেন! তা আর আলাদা করে বলার অপেক্ষা থাকছে না। কারণ, মুসলিম মাত্রই আল্লাহর সন্তুষ্টিতে, আল্লাহর অনুগ্রহে চিরস্থায়ী জান্নাতের বাসিন্দা হতে চাই। আর জান্নাত প্রাপ্তি মানেই একজন মুসলিমের শ্রেষ্ঠ সাফল্য, শ্রেষ্ঠ অর্জন।

    .
    ▪️উপসংহার:
    _______________

    কেউ শুধুমাত্র তার আমল দ্বারা জান্নাত হাসিল করতে পারবে না। কারণ, জান্নাত আল্লাহর দেওয়া শ্রেষ্ঠ উপহার। আল্লাহ বান্দার কৃতকর্মের উপর খুশি হয়ে বান্দাকে জান্নাত দান করবেন। আর জান্নাত হাসিলের জন্য আমাদের করণীয়-বর্জনীয় সবকিছুই সবিস্তারে আলোচনা করা হয়েছে এ’বইয়ে।

    অনুবাদকের প্রাঞ্জল ভাষা ব্যবহার, হৃদয়গ্রাহী আহ্বান যেকোন পাঠককে বইয়ের প্রতি আগ্রহী করে তুলবে। বইয়ে উল্লিখিত কুরআনের বিভিন্ন আয়াত, নবীজির (সা:) হাদীস এবং লেখকের উপদেশ একজন অসচেতন পাঠককেও জান্নাত নিয়ে ভাবতে শেখাবে। ভাবনার দুয়ারে কড়া নাড়বে, ইন শা আল্লাহ!

    বই সংশ্লিষ্ট সকলকে আল্লাহ উত্তম প্রতিদান দিক।
    এবং তাঁদের এই নেক কাজকে আল্লাহ কবুল করে নিক, নাজাতের উছিলা বানিয়ে দিক। আমিন!

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 4 out of 5

    Ruponti Shahrin:

    প্রকাশনি কর্তৃক উন্মুক্ত শর্টপিডিএফটি পড়লাম। ১৪ পৃষ্ঠার সামান্য অংশ পড়ে পুরো বই সম্পর্কে ধারণা করা বেশ কঠিন। সুচীপত্র দেখে এটাই অনুমান করা যায় যে, জান্নাতের পানে আহবান করা হলেও বইটি দুনিয়া ও আখিরাতের খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে লেখা হয়েছে। বইটির নামকরণে জান্নাতের বিবরণ ও সুশীতল হাওয়ার কথা স্মরণে এলেও বইটি রচিত হয়েছে সিরিয়াস বিষয় নিয়ে। যেখানে মূলনীতি, উপকার-অপকার, শুকরিয়া, অবাধ্যতা, নেয়ামতের ব্যাপারে বান্দার ধারণা, আল্লাহর সুন্দর নাম সম্পর্কে চিন্তাভাবনার প্রসার, জান্নাত-জাহান্নাম, লক্ষ্য অর্জনে ঈমানী অবিচলতা, হতাশা, ধৈর্য- এসব অনেক বিষয় উঠে এসেছে। যার কিছু অর্জন, বর্জন, পরিমার্জন ও স্থিরতার প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।
    অনুবাদের মান তুলনামূলক কম ভালো। আরও অনেক কাজ করার ছিল। জান্নাত লাভের জন্য যে তাগিদ সাহিত্যের ভাষা দিয়ে শব্দের ব্যবহারে মুমিনের অন্তরে তুফান তোলার মত দক্ষতার জন্য আরও পরিশ্রমের প্রয়োজন ছিল। তাছাড়া বহুল শব্দের ব্যবহারে ‘-‘ চিহ্ন ব্যবহৃত হয়েছে। সুচীপত্রে ও গ্রন্থের মূল অংশেও তা পরিলক্ষিত।
    সম্পাদনার ক্ষেত্রে আরও অনেক জায়গায় কাজ করার ছিল। প্রচ্ছদ আমার কাছে আকর্ষণীয় বা দৃষ্টিনন্দন বলে মনে হয়নি। বইয়ের সাথে মানানসই স্নিগ্ধ কোনো প্রচ্ছদ দিলে বেশ মানিয়ে যেত বলে আমার ব্যক্তিগত মতামত। আরও অনেক জায়গায় টাইপিং মিস্টেক রয়েছে। এগুলো ঠিকঠাক করে নিতে পারলেই, আগ্রহী পাঠকেরা ভালো একটি বইয়ের অনুবাদ পেতে চলেছে বলে আশা করি।
    বারাকাল্লাহ ফীক।
    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    Abdul Halim:

    রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন, আল্লাহর কসম, দুনিয়ার উদাহরণ আখেরাতে মোকাবিলায় এমন, যেমন তোমাদের মধ্য হতে কোনো ব্যক্তি নিজের আঙ্গুল সমুদ্রে ডুবাইয়া বাহির করে দেখে, আঙ্গুলে কি পরিমাণ পানি লেগেছে, অর্থাৎ যেমনিভাবে আঙ্গুল লাগিয়ে থাকা পানি সমুদ্রের মোকাবিলায় অতি সামান্য, তেমনিভাবে দুনিয়ায় জিন্দেগী আখেরাতের মোকাবিলায় অতি সামান্য।
    দুনিয়ার জীবন শেষ জীবন নই এরপরেও আমাদের জন্য অফুরন্ত হায়াত রয়েছে। বুদ্ধিমান তো সেই ব্যক্তি যে মৃত্যুর পরের জীবন নিয়ে হুশিয়ার থাকে। মৃত্যুর পরে যে জান্নাত লাভ করতে পেরেছে সেই তো সফলকাম হয়েছে।
    জান্নাত আল্লাহ দেওয়া একটা নিয়ামত। কোনো বান্দা নিজ চেষ্টায় জান্নাতে যেতে পারে না, যদি না আল্লাহ অনুগ্রহ করে। আল্লাহর নিয়ামত লাভের জন্য আল্লাহর অনুগত বান্দা হয়ে উঠতে হবে।
    আল্লাহ অনুগত বান্দা হয়ে উঠতে, জান্নাতে যাওয়ার পথ সহজ হওয়ার জন্য হুদহুদ প্রকাশন থেকে খুবই মূল্যবান বই “চলো যায় জান্নাতে” গ্রন্হটি।

    বইটির বিষয়বস্তুঃ-
    _________________________
    জান্নাতে যেতে কে বা না চাই? সকলে চাই জান্নাতে যেতে। কিন্তু সেটা আল্লাহর ইবাদত করে নই, এমনি এমনি পেয়ে যেতে চাই। জান্নাত লাভ কি এতটাই সহজ?
    বক্ষমান বইটি জান্নাত লাভের মাধ্যম গুলো জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইবনু কাইয়্যিম আল জাওজিয়্যাহ খুবই মূল্যবান একটি গ্রন্হ লেখেছেন। জান্নাতে যাওয়া চেষ্টা এবং জান্নাত নেয়ামত সমূহ লাভের জন্য এই বক্ষমান বইটি।
    ৩০ টি শিরোনামে বইটি সাজানো হয়েছে। বইটি নাম এবং শিরোনাম দেখেই বুঝে নেওয়া যাবে বইটিতে কি কি বিষয় বর্ণনা করা হয়েছে । বিশেষ কয়েকটি দিক এখানে তুলে ধরা হয়েছে।
    📚বইটিতে আল্লাহ এক, অদ্বিতীয়, আমরা আল্লাহর দিকে মুখাপেক্ষী, আল্লাহ কারো দিকে মুখাপেক্ষী নই, তিনি অমুখাপেক্ষী।
    📚আমাদের চারপাশে যা কিছু আছে সবই আল্লাহর নেয়ামত। আল্লাহর নেয়ামতের শুকরিয়া আদায় করা সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়েছে।
    📚আল্লাহর অনুগত বান্দা হওয়া ধৈর্য এবং আল্লাহ উপর নির্ভরশীল হওয়া।

    পিডিএফ পড়ে আমার অভিমতঃ-
    __________________________________
    পাঠকের সুবিধার্থে ১৪ পৃষ্ঠার ছোট্ট পিডিএফ তৈরি করা হয়েছে। এই ছোট্ট পিডিএফ এ বেশি বর্ণনা করা হয়নি, যতটুকু পড়েছি তাতে মনে হলো বইটি আমাদের জন্য অনেক উপকারী হবে ইন শা আল্লাহ।
    সফল হতে কে বা না চাই? সকলে চাই সেই সফলতার উচ্চ শিখরে পৌঁছে যাক। আসল সফলতাই হলো জান্নাত লাভ করা। উম্মতে মুহাম্মদী কে সফলতার উচ্চ শিখরে পৌঁছাতে রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যে পথ দেখিয়ে দিয়েছেন সেই পথ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে “চলো যায় জান্নাতে” বইটি তে।

    শেষ কথনঃ-
    _________________
    বক্ষমান বইটি সকলের জন্য উপকারী হবে ইন শা আল্লাহ। আখেরাতে সফল হওয়ার জন্য দুনিয়াতেই চেষ্টা করতে হবে। সেই দুনিয়ার চেষ্টা গুলো বর্ণনা করা হয়েছে বক্ষমান বইটি।
    সকলে তো জান্নাতে যেতে চান। তাহলে কিনে পড়ে ফেলুন বইটি। আপনি ও পারবেন জান্নাত লাভ করতে।

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    Shahin Miah:

    চিরস্থায়ী সুখের ঠিকানা জান্নাতে যেতে চায় না এমন মানুষ কি পৃথিবীতে আছে! এর উত্তর হলো—না, নেই। একজন খাঁটি মুমিন—যিনি বিশ্বাস রাখেন মহান আল্লাহ ও তাঁর প্রেরিত রাসূলে, তিনি যেমন জান্নাতের প্রত্যাশা করেন; তেমনিভাবে একজন পাড় নাস্তিক—যার মধ্যে বিশ্বাসের কোনো বালাই নেই, সে-ও মনে মনে জান্নাতের আশা পোষণ করে। কিন্তু সর্বসুখ ও নেয়ামতসমৃদ্ধ জান্নাত তো আর এমনি এমনি পাওয়া সম্ভব নয়! সেজন্য রয়েছে একেবারে আলাদা ও স্বতন্ত্র জীবন পরিচালনা-পদ্ধতি। আল্লাহর পূর্ণ আনুগত্য এবং রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের দেখানো পথে চললেই কেবল একজন মানুষ এই অপার নিয়ামত লাভে ধন্য হতে পারে।

    ইবনু কাইয়্যিম আল জাওজিয়্যাহ রহ. এই উম্মাহর একজন দরদী মনীষী। তিনি মানুষকে আল্লাহর পথ এবং নবিজির সুন্নাহর দিকে টেনে আনার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন। তিনি অসংখ্য কালজয়ী গ্রন্থের রচয়িতা। হুদহুদ প্রকাশন থেকে প্রকাশ হতে যাওয়া ‘চলো যাই জান্নাতে’ এমনই অসাধারণ একটি গ্রন্থ হবে ইনশাআল্লাহ।

    বইয়ের বিষয়বস্তু:
    ‘চলো যাই জান্নাতে’ বইটির নামের মধ্যেই লুকিয়ে আছে এক অপার্থিব দরদমাখা আহ্বান। জান্নাতে শুধুমাত্র একা গেলেই চলবে না। বরং এখানে সব মুমিনকে নিয়েই যেতে হবে—এই চেতনা তো এখান থেকেই পাওয়া যায়!

    পুরো বই ৩০টি শিরোনামের অধীনে বিন্যস্ত হয়েছে। এখানে ইসলামি বিধিবিধানের এমন কিছু বিষয় আলোচিত হয়েছে, যে বিষয়গুলো একজন মুসলিম হিসেবে জানা এবং মেনে চলা প্রয়োজন। শর্ট পিডিএফ পড়ে পুরো বই সম্পর্কে আলোচনা করার সুযোগ নেই। তবে শিরোনামের অধ্যায়গুলো পাঠ করে বইটি সম্পর্কে আগ্রহ জেগে উঠেছে।

    যে বিষয়গুলো নিয়ে এখানে আলোচনা এসেছে তার কয়েকটির শিরোনাম হলো— বান্দা মুখাপেক্ষী আর আল্লাহ অমুখাপেক্ষী, বিধান-বিন্যাস, মহা-মূলনীতি, উপকার-অপকার বিধাতার ইচ্ছাধীন, আল্লাহর শোকরিয়া জ্ঞাপন, সব নেয়ামতই আল্লাহর পক্ষ থেকে, আল্লাহর নেয়ামতের ওপর চিন্তাভাবনা করা, জান্নাত-জাহান্নাম : জান্নাতি-জাহান্নামি, জ্ঞান আর কর্মের ভিত্তিতে মানুষের বিন্যাস, পরকাল-যাত্রার ছাউনি।

    শিরোনাম দেখে আমরা উপলব্ধি করতে পারা যায়—এখানে আলোচিত বিষয়গুলোর মধ্যে অনেকগুলোই রয়েছে আকিদা-সংশ্লিষ্ট। জান্নাতে যাওয়ার জন্য সবার আগে নিজের বিশ্বাসকে সহিহ করে নেওয়া প্রয়োজন। তারপর সে অনুযায়ী আমল করতে হয়। তাই এই বইয়ে যে বিষয়গুলোর ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

    মূল্যায়ন:
    ‘চলো যাই জান্নাতে’ বইটি যে একটি অসাধারণ বই হতে যাচ্ছে, সেটা আমরা নিশ্চয়ই উপলব্ধি করতে পারছি। বইয়ের বিষয়বস্তু সুন্দরভাবে বিন্যস্ত করার পাশাপাশি এখানে পবিত্র কুরআন এবং সহিহ হাদিসের রেফারেন্স ব্যবহার করা হয়েছে প্রচুর। ফলে বইটির গ্রহণযোগ্যতা বেড়ে গেছে অনেক বেশি।

    তবে বইটির প্রচ্ছদ আমার কাছে তেমন যুতসই মনে হয়নি। বর্তমান সময়ে ইসলামি প্রকাশনাগুলো অত্যন্ত উঁচুমানের কাজ করছে প্রচ্ছদ নিয়ে। সেই তুলনায় একে বেশ মামুলি মনে হচ্ছে। সুযোগ থাকলে প্রচ্ছদ নিয়ে আরেকটু ভাবা যেতে পারে।

    তাছাড়া অনুবাদ আমার কাছে কিছুটা কঠিন মনে হয়েছে। সম্পাদনা করে ভাষাগত দিক দিয়ে আরেকটু উন্নত করা সম্ভব নয়? বিষয়টি হুদহুদ কর্তৃপক্ষ একটু ভেবে দেখবেন আশা করি।

    আমি আশা করবো—’চলো যাই জান্নাতে’ বইটি আমাদের জান্নাতের পথে যাত্রায় সহায়ক ভূমিকা পালন করবে ইনশাআল্লাহ।

    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No