মেন্যু
chintaporadh

চিন্তাপরাধ

পৃষ্ঠা - ১৯২ 'যতক্ষণ সাম্রাজ্যের সার্বভৌমত্ব স্বীকার করে নিচ্ছ, ইচ্ছায় কিংবা অনিচ্ছায় ততক্ষণ তোমাকে সহ্য করা হবে। যা করার সিস্টেমের ভেতরে ঢুকে করো, কিন্তু কোনোভাবেই সিস্টেমের বিরোধিতা করা যাবে না। প্রশ্ন... আরো পড়ুন
পরিমাণ

190 

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

34 রিভিউ এবং রেটিং - চিন্তাপরাধ

4.9
Based on 34 reviews
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    sakibrishfat:

    ‘মাস্টারপিস’ বুঝেন? এই বই হলো সেইটা। পড়ে দেখেন মিথ্যা লিখছি কি না। পশ্চিমা, মডারেট, মুত্রমনাদের জন্যে তো পারমাণবিক বোমা, ভাই! জাস্ট একবার পড়লে মাথায় ঢুকবে না, দুইবার পড়বেন কমসে কম!
    7 out of 7 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    Muhammad Imtiaz Hossain Nafi:

    আসিফ আদনান ভাইয়ের কাজ গুলো অসাধারণ। ভাইয়ের আরো অনেক বইয়ের অপেক্ষায় ❤️
    5 out of 5 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 4 out of 5

    mushfiqurrahman2906:

    চমৎকার একটি বই। নতুন করে ভাবাতে শিখাবে। প্রথমে পড়তে গিয়ে হয়তো একটু হুচট খেতে হবে, শেষ করার পর নিরপেক্ষার সাথে বিবেচনা করলে বলতেই হবে যে এটা একটা মাস্টারপিস।
    7 out of 7 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    শেখ সাকিব:

    এককথায় অসাধারণ বই। আমি মনে করি, মডারেট-পশ্চিমমনা মুসলিমদের জন্য অবশ্য পাঠ্য একটি বই। তারা দেখতে পারবে সত্যিকারঅর্থে তাদের পশ্চিমা সংস্কৃতি কতটুকু সভ্য। আমার পড়া সেরা বইগুলোর মাঝে অন্যতম একটি হচ্ছে ‘চিন্তাপরাধ’। আসিফ আদনান ভাই সেরা। জাযাকাল্লাহু খাইর, তাকাব্বাল আল্লাহ।
    7 out of 7 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    muhammadfahad649015:

    বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

    “Thought crime” অর্থাৎ “চিন্তা-অপরাধ” সুন্দর করে বললে “চিন্তাপরাধ”। শব্দটার সাথে পরিচিত হই বেশিদিন না এই বছরখানেক হবে। আমি এই বইয়ের রিভিউ লেখার ন্যূনতম যোগ্যতা রাখি না। এই বইয়ের রিভিউ না লিখে আমি যদি পারতাম সবাইকে এই বই পড়তে ‘বাধ্য’ করতাম। আমার জীবনের কেনা বইয়ের ২য় বইটা হচ্ছে এই ” চিন্তাপরাধ”। আর আমার অনলাইন জগতে চেনা ২য় লেখকও হচ্ছেন আসিফ ভাই। ভাইয়ের লেখা পড়ার পর মস্তিষ্কের দরজায়ও যে করাঘাত হয় তা ‘পারফেক্টলি’ বুঝেছি।এখন এই বই আমার নোটবুকের মতো। আর বইটা পড়ার পর থেকেই আমি “Thought Criminal” শুদ্ধ বাংলায় যাকে বলে “চিন্তাপরাধী”! 

    কেন পড়বেনঃ চিন্তার দরজা প্রসারিত করার জন্য। চিন্তাপরাধী হওয়ার জন্য। কারণ “….মিথ্যের বসত ভাঙার প্রথম হাতিয়ার;চিন্তাপরাধ”

    এবার আসি বইয়ের প্রচ্ছদে…….
    প্রচ্ছদ টা মাশাআল্লাহ আকর্ষণ করার মতো।
     
    উৎসর্গঃ
    ” ৩৩:২৩” অসম্ভব সুন্দর একখানা আয়াত। আল্লাহু আকবার। জানেন আয়াত টা কি?
    مِنَ الْمُؤْمِنِيْنَ رِجَا لٌ صَدَقُوْا مَا عَاهَدُوا اللّٰهَ عَلَيْهِ ۚ فَمِنْهُمْ مَّنْ قَضٰى نَحْبَهٗ ۙ وَمِنْهُمْ مَّنْ يَّنْتَظِرُ ۖ وَمَا بَدَّلُوْا تَبْدِيْلًا ۙ 
    “মু’মিনদের মধ্যে কতক লোক আল্লাহর সঙ্গে কৃত তাদের অঙ্গীকার সত্যে পরিণত করেছে। তাদের কতক উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে (শাহাদাত বরণ) করেছে আর তাদের কতক অপেক্ষায় আছে। তারা (তাদের সংকল্প) কখনো তিল পরিমাণ পরিবর্তন করেনি।”
    এই আয়াতের মর্মার্থ যাদের বুঝে আসে তারা নিঃসন্দেহে সফলকাম। আল্লাহ ভাইকে উত্তম জাযা দিন। বইয়ের প্রতিটা পৃষ্ঠায় এমনভাবে ভাই আপনাকে চিন্তা করতে বাধ্য করছেন যে আপনি চিন্তা করবেনই।

    এখন আমরা একদম বইয়ের ভেতরে ঢুকে যাবো যেহেতু আমি বইয়ের সব বিষয় রিভিউয়ে আনতে পারবো না তবে চেষ্টা করবো ভালো কিছু কথা আনার ইনশাআল্লাহ।

    পূর্বকথাঃ
    এই জায়গায় ভাইয়ের শুধু একটা কথা হাইলাইট করতে চাই, “চিন্তাপরাধ কোনো ইসলামী বই না, তবে মুসলিমদের জন্য লেখা বই।” কতটা সূক্ষ্ম আর চিন্তাশীল মানুষের কথা তা এই একটি মাত্র কথা দ্বারাই বুঝা যায়।

    সহস্র সূর্যের চেয়ে উজ্জ্বলঃ
    ভাইরেভাই এই অধ্যায় টা খালি সাম্রাজ্যবাদীদের করা হত্যাযজ্ঞের পরিসংখ্যান। এই অধ্যায় পড়ার পর বুঝবেন “মানবাধিকার”,” মানবতাবাদ” আর “শান্তি” নামক “মরীচিকা” টা কি?  আর ‘যায়োনিস্ট’দের ডিকশনারিতে “সন্ত্রাসবাদ” আর “শান্তি”র অর্থ টা কি!
    “সিস্টেম” নামক জিনিস টা কি? আর ” সিস্টেমের পূজারী” ও “সিস্টেমের বিরোধীতাকারী” কারা?  

    ফিরিংগিসেন্ট্রিকঃ
    এই অধ্যায়ে পাবেন “সাদা চামড়াধারী” “কলুষিত মানুষের” কর্মের বিবরণ। কীভাবে এই “সাদা চামড়াধারী” মানুষগুলোর ‘দাস’ হিসেবে আমরা এখনো “গোলামী” করছি!কীভাবে এই “দাসত্ব’ থেকে মুক্তি পাওয়া যায় তারও ‘সমাধান’।

    চিন্তার জটঃ
    মানুষের বর্তমান “চিন্তার মাপকাঠি” কি? এ বিষয়ক বিশদ বিশ্লেষণ। আমাদের “সাধারণ চিন্তা” নামক চিন্তায় জট টা কোথায়?  তথাকথিত “ক্রিটিক্যাল থিংকিং” এর নামে আসলে হচ্ছেটা কি? এই অধ্যায়ের শেষে একটা খুব সুন্দর উক্তি করেছেন ভাই। উক্তিটি
    “বিজিত সবসময় বিজয়ীর অনুসরণ করে।অনুসরণ করে বিজয়ী হওয়া যায় না। ”

    পূজারি ও পূজিতঃ
    আল্লাহ মনোনীত দ্বীন ব্যতীত বর্তমান প্রচলিত “সেক্যুলারিযম” আর “স্যাটানিজমের” একজন যে আরেকজনের পরিপূর্ণতা দানকারী তার ব্যাখ্যা এখানে উঠে আসছে।

    গোড়ায় গলদঃ
    এখানে হাইলাইট করা হইছে “বিজ্ঞান ও সামাজিক বিজ্ঞানের পার্থক্য”, “পশ্চিমা সামাজিক বিজ্ঞানের শিকড়”, “সেক্যুলার চিন্তা যে কয়টি প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেষ্টা করে তা”।

    শুভংকরের ফাঁকিঃ
    এই অধ্যায়ে খুব শর্টলি বললে মূলত ” নারীবাদ” বা “Feminism” নামক ‘-ism’ এর যে মরীচিকা আছে তা ‘দৃশ্যমান’ করছেন ভাই। এছাড়াও “অর্থনীতি” নামক “নীতি” এর সাথে সম্পৃক্ত ভুল কিছু জিনিসের ব্যাখ্যা করেছেন আলহামদুলিল্লাহ।

    স্থিতিস্থাপকতা, না-মানুষ ও অন্যান্যঃ
    “পৃথিবীতে লাভজনক ব্যবসা ৩টি -মানুষ,মাদক ও অস্ত্র।আর তিনটার মধ্যে সস্তা হলো মানুষ। ” এখানে মূলত এই ব্যবসাগুলোর প্রতি আলোকপাত করা হয়েছে আর এর পেছনের ” রহস্য” ও এর “সমাধান” দেয়ার চেষ্টা করেছেন ভাই।

    ভুল মাপকাঠিঃ
    বর্তমানে মানুষ চিন্তার যে মাপকাঠি(গণতন্ত্র,সেক্যুলারিযম ইত্যাদি) গ্রহণ করেছে তার সাথে “ইসলামি শারীয়াহ” এর পার্থক্যকে এখানে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন আসিফ ভাই।

    সমকামী এজেন্ডা:ব্লু-প্রিন্টঃ
    অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এক ‘ফিতনা’ নিয়ে এখানে প্রিয় ভাই আলোচনা করেছেন। পশ্চিমে কীভাবে এই এজেন্ডা সফল হয়েছে বাংলাদেশে কিভাবে এই কুলাংগারেরা তাদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের কাজ করছে তা নিয়েই এই অধ্যায়।

    মরীচিকাঃ
    “মানবধর্ম”, “ব্যক্তিস্বাধীনতা”, “চিন্তার স্বাধীনতা”, “নারীর অধিকার” ইত্যাদি অধিকারের পশ্চিমা ব্যাখ্যা ও ইসলামী ব্যাখ্যার তুলনামূলক আলোচনা করা হয়েছে এখানে।

    বালির বাঁধঃ
    চিন্তার মানদন্ড হিসেবে আমরা যে পশ্চিমাদের অনুসরণ করি তাদের বক্তব্যগুলোর অসারতা এখানে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

    মানসিক দাসত্বঃ
    “বিজ্ঞান”,”যুক্তি” ইত্যাদি ইত্যাদিকে যে আমাদের সেক্যুলাংগার দাদারা/দিদিরা মানদন্ড হিসেবে উপস্থাপন করেন  তাদের এই অপব্যাখ্যার অসারতা লেখক এখানে ফুটিয়ে তুলেছেন। ইহা যে কতবড় বুদ্ধিবৃত্তিক ও মনস্তাত্ত্বিক পরাজয় তা বুঝানোর চেষ্টা করেছেন।

    হাউস নিগারঃ
    আমার কাছে মনে হয়েছে এখানে একটা টুইস্ট আছে সো এই বিষয় বই থেকে পড়ে নেয়া প্রয়োজন।

    সাম্রাজ্যের সমাপ্তিঃ
    খুব তাড়াতাড়ি যে “যুগের হুবাল” খ্যাত “আমেরিকা” এর পতন ঘটছে লেখক এখানে ইতিহাসের ও ইতিহাসবিদদের আলোকে পর্যালোচনা করেছেন।

    অবক্ষয়কালঃ
    এখানে লেখক কেন একটি “সাম্রাজ্য” ধ্বংস হয়? এবং আরেকটা “সাম্রাজ্যের উত্থান” হয় কীভাবে?  কোন সাম্রাজ্য অধিক “টেকে” তাই তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। এখানে একটা কথা এড করতে চাই,
    “হয় হেরে যেতে হবে নয়তো আরেকটা সাম্রাজ্য(ইসলামি খিলাফাহ) গড়তে হবে।”

    শ্বেত সন্ত্রাসঃ
    বিভিন্ন সময় “সাদা চামড়াধারী” -দের দ্বারা মানবজাতির উপর হওয়া কিছু আক্রমণের পর্যালোচনা করা হয়েছে।

    বইয়ের নামঃ চিন্তাপরাধ
    লেখকঃ আসিফ আদনান
    প্রকাশকঃ ইলমহাউস পাবলিকেশন
    মুদ্রিত মূল্যঃ ১৯০/-

    10 out of 11 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No