মেন্যু
biye

বিয়ে

বিয়ে একটি ধর্মীয় চুক্তি, একটি সামাজিক সম্পর্ক। একে ঘিরে দুজন মানুষ, দুটি পরিবারে কত আকাক্সক্ষা, কত স্বপ্ন! সম্পর্কটিকে সুন্দর করার জন্য প্রয়োজন সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা। তাই এই বইটি কেবল বিবাহেচ্ছু,... আরো পড়ুন
পরিমাণ

170 

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

2 রিভিউ এবং রেটিং - বিয়ে

5.0
Based on 2 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    কামরুননাহার মীম:

    বিয়ে নিয়ে তরুণ প্রজন্মের মাঝে হাজারো স্বপ্ন। প্রতিটি পরিবারের কত ইচ্ছা-আকাঙ্ক্ষা জড়িয়ে থাকে একটা বিয়েকে ঘিরে। শুধুমাত্র বিয়ে কোনো সামাজিক বন্ধন নয়; বিয়ে ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা যা পরিপূর্ণ করে দ্বীনের অর্ধেক। কিন্তু এই বিয়েকে ঘিরে সমাজে, পরিবারে নানা সমস্যার সূত্রপাত। শুধুমাত্র পরিবারের সদস্যদের মাঝেই নয় বরং স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের মাঝেও ভাঙন ধরে অনেক সময়। “বিয়ে” বইটি এমন একটি বই যাতে বৈবাহিক জীবনের সমস্যা, সমাধান, দায়িত্ব-কর্তব্যের বিষয় গুলো লেখিকা বাস্তবতার মাধ্যমে তুলে ধরেছেন।

    বই আলাপন:
    ★★★★
    বিয়ে বইটিতে মূলত ২২টি শিরোনামে কখনো প্রবন্ধ, কখনো লেখিকার বাস্তবতা, কখনো গল্পে বাস্তবতার ছোঁয়ায় লিখাকে সাজানো হয়েছে। বিয়ের এই সম্পর্কে টা শুনতে যতটা ছোট তেমনি অনেক ভারী ওজনে। বর্তমান সমাজে বেশিরভাগ বিয়ে সংঘটিত হয় বাহ্যিক সৌন্দর্যের বিচারে। অথচ বিবাহ হওয়া উচিত ছিল দ্বীনদারিতার বিবেচনায়। বাহ্যিকরূপ পরিহার করে অন্তদৃষ্টি দিয়ে বিবেচনা করার সিদ্ধান্ত সবার মাঝে পৌঁছে দেওয়ার কথা লিখেছেন। ভাল সঙ্গী পেতে হলে দোয়ার দুয়ার বন্ধ হতে দেওয়া চলবেনা। বিশ্বজাহানের মালিকের পক্ষে যেহেতু কিছুই অসম্ভব নয় সেহেতু তাঁর কাছে চাওয়ার বিকল্প না করে যেন তার দুয়ারেই হাত বাড়াই–এই বিষয়গুলো তেও লেখিকা বইয়ে উল্লেখ করেছেন। বিয়ের সম্পর্ক হোক বন্ধুত্বপূর্ণ এবং তা হোক আত্মমর্যাদাপূর্ণ। সমাজের অনেক পরিবারে মেয়েদের নামকরণের ক্ষেত্রে ভ্রুক্ষেপহীনতার দেখা যায়। এই বিষয় গুলোর গুছালো উত্তর লেখিকার এই বইয়ে উঠে এসেছে। স্বামী-স্ত্রীর মাঝের বন্ধন দৃঢ় করার আলোচনা করেছেন লেখিকা তার বইয়ে৷ শুধুমাত্র এই সম্পর্কের মাঝের বন্ধন-ই না বরং পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মাঝের সমঝোতা নিয়েও গুছালো আলোচনা রয়েছে তার বইয়ে৷ অনেক পরিবারেই আজ মেয়েদের মতামত কে কোনো প্রাধান্য দেওয়া হয়না। অথচ মেয়েটার জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যাপার তার মতামত ছাড়াই পিতামাতার সিদ্ধান্তে সম্পন্ন হয়। প্রতিপত্তির কাছে আজ শরীয়াহ বিসর্জন দেয় পরিবার– ফলশ্রুতিতে মেয়ের জীবনের সুখের যাত্রা শুরু না হয়ে যুদ্ধের যাত্রার সূচনা ঘটে৷ সম্পর্কের মাঝে কি কি বিষয় জরুরি তা নিয়েও লেখিকার আলোচনার ঘাটতি ছিল না বইয়ে। সম্পর্কের বুননকৌশল আর স্থায়িত্বের মাত্রার নতুন রুপ দিয়ে লেখিকা তার লেখনী দিয়েই পাঠককে মুগ্ধ করেছে।

    বইটি কাদের জন্য:
    ★★★★★★★
    বইটি বিশেষভাবে তরুন সমাজের মাঝে পৌঁছে দেওয়া জরুরি বলে মনে করি। যেহেতু বিয়ে প্রতিটি মানুষের জীবনেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে সেহেতু এই বিষয় নিয়ে জানা আর প্রতিবন্ধকতা দূর করাই তো সফলতা। মা-বাবার মাঝেও বইটি ছড়িয়ে দেওয়া আবশ্যক। এছাড়াও পরিবারের সদস্যদের বইটি পড়তে দেওয়া উচিত। কারন বিয়ে কেবল দুইটি মানুষের মধ্যেই নয়; এই সম্পর্কের মধ্যে আরও অনেক সদস্য জড়িয়ে রয়েছে। সম্পর্কের এই ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র একক কে নতুনভাবে গড়ে তুলার জন্য ‘বিয়ে’ বইয়ের ভূমিকা অনেক।

    বইটির প্রয়োজনীয়তা:
    ★★★★★★★★
    পরিবারের সম্পর্কগুলোর মাঝের ভিত কে মজবুত করে বিয়ের সম্পর্ক কে আরও সুন্দর এবং সহজ করতে বইটির প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। বিয়ের ক্ষেত্রে কি কি বিষয় গ্রহণযোগ্য এবং কোন কোন বিষয় পরিহার আবশ্যক তা জানলে পারিবারিক সমস্যা দূর করা সহজেই সম্ভব হবে।

    অনুভূতির কিছু কথা:
    ★★★★★★★
    বইটিতে বাস্তবসম্মত কথা গুলো গুছিয়ে লেখা হয়েছে যার মাধ্যমে সহজেই বোধগম্য হয়েছে। বিয়ের বিষয়গুলো ইসলামের আলোকে এবং সমাজের তথাকথিত ভুলের বিপরীতে গিয়ে লেখা হয়েছে যা ইন শা আল্লাহ ভবিষ্যতে জীবনে কাজে লাগাতে সহায়ক হবে।

    বই সম্পর্কে সংক্ষেপে-
    বই: বিয়ে
    লেখক: রেহনুমা বিনত আনিস
    মূল্য: ২২০৳ (পেপারব্যাক)
    প্রকাশন: গার্ডিয়ান পাবলিকেশন

    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    Azmin Akther Eva:

    আসলেই বিয়ে ছোট্ট একটা শব্দ হলেও এর ওজন অনেক ভারী।
    বিয়ে একটি ধর্মীয় চুক্তি একটি সামাজিক সম্পর্ক। একে ঘিরে দুইজন মানুষ দুটি পরিবার কত আকাঙ্ক্ষা কত স্বপ্ন। সম্পর্ক টিকে সুন্দর করার জন্য প্রয়োজন সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা। তার জন্য রয়েছে কিছু গল্প যা জীবনে বাস্তবতার প্রতিফলন ঘটিয়ে হয়তো চিন্তার দিগন্তের নতুনত্ব আনতে পারে।

    বই নিয়ে কিছু কথাঃ-
    °°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°
    বিয়ে জীবন চক্রের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। বিয়ের মাধ্যমে দুইজন নর নারী পূর্ণতা লাভ করে। একই সাথে স্বপ্ন আর সেই স্বপ্ন পূরণে দায়িত্ববোধের নাম বিয়ে। বিয়ে তো সেই চুক্তি যার মধ্য দিয়ে সমাজব্যবস্থা পুরুষকে একজন নারীর সাথে অতি ঘনিষ্ঠ ভাবে বসবাস, সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না ও দৈহিক চাহিদার ভাগাভাগি করে নিতে স্বীকৃতি দেয় এবং উত্তরাধিকারের নিশ্চয়তা প্রদান করে।

    যা আছে বইটি তেঃ-
    °°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°
    বিয়ের আগের ও পরের যাবতীয় ব্যাপারগুলো সুন্দরভাবে আলোকপাত করা আছে বইটি তে। এখানে বিয়ের স্বরূপ , দায়িত্বসমূহ, করণীয় এবং বর্জনীয় বিষয়াদি নিয়ে কিছু আলোচনা রয়েছে ।

    বইটি কাদের জন্যঃ-
    °°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°
    অবিবাহিত দের জন্যই সর্বোত্তম। কারন আপনার জীবনের পরবর্তী সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় বিয়ে। তাই এখনি আপনাকে সেটা নিয়ে ভাবতে হবে। বিবাহিত রা ও অবশ্যই পড়বেন তবে আপনাদের সংসারে আরো উন্নত হবে ইনশা আল্লাহ্। তাই বলে বইটি কেবল বিবাহেচ্ছু, নববিবাহিত বা বিবাহিতদের জন্য নয় বরং তাদের বাবা-মা শ্বশুর-শাশুড়ি আত্মীয়-স্বজনদের জন্য।

    ইসলামের একটি মুখ্য নীতি হলো পর্দা:-
    °°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°°
    মুমিনদেরকে বলুন তারা যেন তাদের দৃষ্টি নত রাখে এবং তাদের যৌন অঙ্গের হেফাযত করে। এতে তাদের জন্য খুব পবিত্রতা আছে । নিশ্চয় তারা যা করে আল্লাহ তা অতিবাহিত আছেন। ঈমানদার নারীদেরকে বলুন তারা যেন তাদের দৃষ্টিকে নত রাখে এবং তাদের যৌন অঙ্গের হেফাযত করে। তারা যেন যা সাধারণতঃ প্রকাশমান, তা ছাড়া তাদের সৌন্দর্য প্রদর্শন না করে এবং তারা যেন তাদের মাথার ওড়না বক্ষ দেশে ফেলে রাখে। এবং তারা যেন তাদের স্বামী, পিতা, শ্বশুর, পুত্র, স্বামীর পুত্র, ভ্রাতা,, ভ্রাতুস্পুত্র, ভগ্নিপুত্র, স্ত্রীলোক, অধিকারভুক্ত বাঁদী, যৌনকামনামুক্ত পুরুষ ও বালক যারা নারীদের গোপন অঙ্গ সম্পর্কে অজ্ঞ তাদের ব্যতীত আর কারো কাছে তাদের সৌন্দর্য প্রকাশ না করে । তারা যেন তাদের গোপন সাজ-সজ্জা প্রকাশ করার জন্য জোরে পদচারণা না করে। মুমিনগণ, তোমরা সবাই আল্লাহর সামনে তওবা কর যাতে তোমরা সফলকাম হও।
    (সূরা নূর ৩০-৩১)

    লেখক পরিচিতঃ-
    °°°°°°°°°°°°°°°°°°°°
    লেখিকা জন্ম চট্টগ্রাম । শৈশব ঢাকায়, কৈশোর আবুধাবিতে ।পরিনত বয়সে ভারতে এবং বিয়ের পর আবার চট্টগ্রামে ফিরে আসেন। দীর্ঘদিন ক্যানাডায় প্রবাস জীবন কাটিয়ে বর্তমানে মালয়েশিয়ায় বসবাস করছেন। ইংরেজিতে অনার্স মাস্টার্স সম্পন্ন করে শিক্ষকতা করলেও বিশ্ব সাহিত্য ও জ্ঞানের যেকোনো অঙ্গনে বিচরণে আপত্তি নেই লেখিকার। ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি চিটাগাং এর শিক্ষকতা করেছেন দীর্ঘদিন। আবুধাবি ইয়াং টাইমস ম্যাগাজিনে নিয়মিত লেখিকা হিসাবে লেখার হাতে খড়ি। দীর্ঘদিন পড়াশোনায় মগ্ন থাকার পর ছাত্রছাত্রীদের চাপাচাপিতে আবার লেখালেখিতে ফিরে আসেন।

    শেষ কথা:-
    °°°°°°°°°°°°°°
    নূর মোহাম্মদ আবু তাহের ভাইয়ের শেষ কথাগুলোই উল্লেখ করলাম, বিয়ে নিয়ে তরুণ-তরুণীদের স্বপ্ন চিন্তা ও সিদ্ধান্তের ব্যাপারে সহায়ক পাঠ্য হবে’ বিয়ে’ বই ইনশাআল্লাহ।।

    1 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top