মেন্যু
apitaf

এপিটাফ

প্রকাশনী : Bookmark Publication

ধরণ: লেকচার সংকলণ
পৃষ্ঠা: ১৪৪
কভার: পেপার ব্যাক

উস্তাদ মুহাম্মাদ হুবলস। অস্ট্রলিয়ান দাঈ। প্রচন্ডভাবে মানুষকে অনুপ্রাণিত করতে পারেন। মানুষের অন্তরাত্মা কাঁপিয়ে দিতে পারেন। জাহিলিয়াত থেকে মানুষকে দ্বীনের পথে নিয়ে আসা, বস্তুবাদি যান্ত্রিক আটপৌরে জীবনে হাঁপিয়ে উঠা এই আমাদেরকে আখিরাতের কথা মনে করিয়ে দেওয়া, জান্নাতের পথে চলার সীমাহীন শক্তি যোগাতে এই উস্তাদের তুলনা তিনি নিজেই।
.
উস্তাদের লেকচার অবলম্বনেই এই বইটি। বর্তমান সময়ে আমরা যে সমস্যাগুলোর সম্মুখীন হচ্ছ তা ভয়াবহ। ফিতনার সময় চলছে। আমাদের অনেক সমস্যা, অনেক প্রতিবন্ধকতা। তার মধ্যে অন্যতম মুসলিম পরিবারে জন্মেও উম্মাহর একটা বড় অংশ্যই এখনও কাফেরদের লাইফ স্টাইলে চলে। অনেকসময় আমরা বুঝি যা করছি ভুল করছি, এটা সঠিক পথ নয়, কিন্তু ভুলের সেই চক্র থেকে বের হতে পারি না। তখন আমাদের একটি ধাক্কার দরকার পড়ে। এমন কিছু যা আমাদের অন্তরকে কাঁপিয়ে দিবে। বস্তুবাদ, চোখ ধাঁধানো আলোর এই মোহের জগৎ নিমিষেই ভেঙে গুড়িয়ে দিবে। এই বইটি সেই ধাক্কা হিসেবে কাজ করবে এই আমাদের বিশ্বাস।

পরিমাণ

144  200 (28% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

20 রিভিউ এবং রেটিং - এপিটাফ

5.0
Based on 20 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

  1. 5 out of 5

    :

    আলহামদুলিল্লাহ….

    আপনাদের যোগাযোগ পেয়ে আমি উপকৃত হয়েছি।

    আমি সহযোগিতা করতে পেরেছি আমার আশেপাশের পরিচিত /প্রিয় জন ব্যাক্তিবর্গদের।
    আমি একজন বই পিপাসু মানুষ।
    বই পড়া আমার জন্যে অনেক আনন্দের।
    আপনাদের কাছ থেকে বই এনে বিনামূল্যে বিতরণ করছি।
    আমার ছোটবেলা থেকে অনেক ইচ্ছা,আমি একটা গ্রন্থগার খুলবো।
    কিন্তু, বর্তমান সমাজ এতটাই খারাপ হয়েছে,উৎসাহ দিবে দূরের কথা,এ-ব্যাপারে তুচ্ছতাচ্ছিল্য করে ফেলে দেয়।
    আমার স্বপ্ন, স্বপ্ন-ই থেকে গেল।
    আমি আমার স্থানে আমার থেকে শুরু করতে চাই যে, বর্তমান প্রজন্ম যেইভাবে মোবাইলের প্রতি আসক্ত হয়েছে,তা ভালোর চাইতে খুব খারাপ ফল দিবে।
    আমি চাই তাদেরকে ইসলামের পথে আনতে,
    বই পড়ার দিকে আসক্ত করতে।
    বই পড়া কত যে আনন্দের,
    তা বই না পড়লে বুঝা যাবেনা।
    আর যদি হয়,ইসলাম,এবং সুশৃঙ্খল বই….
    তাহলে তো আর কোন কথাই নেই।
    আপনাদের হোম ডেলিভারিতে আমি সন্তুষ্ট।
    আপনাদের কাছ থেকে যা বই আমি নিয়েছি তার তালিকা দিলাম….
    (1) এপিটাফ।
    (2) হাফসা।
    (3) যে জীবন ফড়িঙের যে জীবন জোনাকির।
    বই গুলো খুবই অসাধারণ……।
    ইনশাআল্লাহ…..
    আমি আপনাদের সাথে থাকতে চাই।
    এবং আমাকেও সুজুগ সুবিধা দিয়ে সহযোগিতা করবেন আশা করি।
    আল্লাহ, আপনাদের যাত্রাকে দীর্ঘ করুক,কল্যাণময় করুক।

    4 out of 4 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    :

    আমি শুধু এইটুকুই বলবো,
    “এর চেয়েও কি বই আরও ভালো হতে পারে?”
    কিভাবে সম্ভব!
    রেটিং – ৯.৮
    6 out of 6 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    :

    এপিটাফ বইটা যখন বের হয়, তখন থেকেই এটা কেনার আকাংখা তৈরি হয়।আলহামদুলিল্লাহ বইটা হাদিয়াস্বরুপ পেয়েছি। বইটার প্রতি তীব্র আকাংখার কারনই হলো উস্তাদ Mohammad Hoblos. উনার একটা লেকচার “সেল্ফি রিমাইন্ডার ” এর মাধ্যমেই উনাকে প্রথম চিনি।দ্বীনের পথে প্রথম দিকে যখন দুনিয়াবি সৌন্দর্যগুলো আকৃষ্ট করতো, ফিতনার সম্ভাবনা তৈরি করতো, তখন উনার সেই লেকচারটাই নিজের মনের সব দুঃখ গুলো দূর করে দিয়ে একঝাঁক প্রশান্তি এনে দিয়েছিল। সেই থেকে উনার অন্যান্য লেকচার, আলী বানাত (রঃ), বাসিত এনাদের সাথে কনভারসেশন ইত্যাদি বিভিন্ন লেকচার আমি দেখি।উনার লেকচারগুলো অনেকের কাছে খুব রাফ লাগলেও, আমি মনে করি আমাদের মত ঘুমন্ত জাতির জন্য এই ঝাড়িগুলো খুবই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একমাত্র এই মানুষটার লেকচার শুনলে, অন্যকে জাজ করার বদলে নিজেকে নিয়ে একশবার ভাবতে শিখায়, যে আমরা নিজেরা আল্লাহর নিয়ামতের কি শুকরিয়া করছি,আবার ইজিলি জান্নাতের টিকিট পাওয়ার আশায় বসে আছি। আবার ওস্তাদ যখন জান্নাতের বর্ণনা দেন তখন মনে হয় তিনি যেন তা দেখতে পারছেন। সুবহান আল্লাহ, উনার উপলব্ধি ক্ষমতা অসাধারণ।
    এই বইটা ওনার কতগুলো লেকচারের সমষ্টি, অসাধারণ লেগেছে বইটা। তবে আরও অসাধারণ লাগে ওনার লেকচার শুনতে।

    আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআ’লা উস্তাদ Mohammad Hoblos কে দাওয়াতি কাজে আরও বেশি অগ্রসর ও কামিয়াবি দান করুন, আর আখিরাতেও অনেক অনেক সম্মানিত করুন। আমিন।

    6 out of 8 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  4. 5 out of 5

    :

    এপিটাফ। এপিটাফ কি? এপিটাফ বলতে বোঝায় সমাধিলিপি, কবরের উপর স্মৃতিফলকের মতো কিছু।

    বইটির কন্টেন্ট নেওয়া হয়েছে Mohammad Hoblos এর লেকচার থেকে। তিনি একজন অস্ট্রেলিয়ান দাঈ—মানুষকে ইসলামে আহ্বানকারী। মৃত্যু, দুনিয়া, আখিরাত, জীবনের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য, তার আলোচনার মূল বিষয়। প্রচন্ডভাবে মানুষকে অনুপ্রাণিত করতে পারেন। মানুষের অন্তরাত্না কাপিয়ে দিতে পারেন। জাহিলিয়াত থেকে মানুষকে দ্বীনের পথে নিয়ে আসা, বস্তুবাদি যান্ত্রিক আটপৌরে জীবনে হাঁপিয়ে ওঠা এই আমাদের আখিরাতের কথা মনে করিয়ে দেওয়া, জান্নাতের পথে চলার সীমাহীনশক্তি যোগাতে তাঁর কথাগুলো টনিকের মতো কাজ করে।

    বইটির কন্টেন্ট Mohammad Hoblos এর হলে উপস্থাপন করেছেন সাজিদ ইসলাম। কোথাও কোথাও প্রয়োজনে তিনি লেখকের ভূমিকা পালন করেছেন।

    বইটিতে সাজিদ ইসলাম বলেন,”২০১২-২০১৩ সালের দিকের কথা। একদিন ইউটিউবে একটা ভিডিও চোখে পড়ল। বক্তা Mohammad Hoblos. টপিক ছিল আমরা সত্যিকার অর্থেই আল্লাহ ও তার রাসুল (সা.) কে কতটা ভালোবাসি, আদৌ ভালোবাসি কিনা! সেদিন তাঁর কথাগুলো এতটাই নাড়া দিয়েছিল, নিজের হালত চিন্তা করে এতটা লজ্জা পেয়েছিলাম, যে লজ্জা আমার এখনো কাটেনি। সেই থেকে মানুষটা বারবার আমাকে লজ্জা দিয়েই চলেছেন।
    আমি চাই এই বইটি আপনাদেরকেও লজ্জা পাইয়ে দিক। চোখ ধাঁধানো এই আলোর শহরে উদ্দেশ্যহীন আমাদের এই জীবনগুলোতে সম্বিৎ ফিরে পাওয়ার জন্য মাঝে মাঝে কিছু ঝাঁকুনি, ধাক্কার দরকার পড়ে। আমি আশা করি এই বইটি সেই ধাক্কা হিসেবে কাজ করবে।”

    বইটি পড়ে সত্যি আপনি লজ্জা পাবেন। Male হিসেবে জন্মগ্রহণ করে হয়তো নিজেকে সত্যিকারের Man ভাবছেন। কিংবা গায়ের জোরে যাদের সাথে কেউ পেরে উঠে না ভাবছেন তারাই সত্যিকারের Man. অথবা ভাবছেন Male এবং Man একই বিষয়। কিন্তু আপনি ভুল। কুরআনে আল্লাহ সুবহানাতায়ালা Male এবং Man এর পার্থক্য করে দিয়েছেন। আপনি Male‌ হয়ে জন্ম নিলেই Man নন। কিংবা গায়ের জোর থাকলেই আপনি Man হতে পারেন না। ইসলামে Man হওয়ার জন্য আলাদা সংজ্ঞা রয়েছে।

    বর্তমান সময়ের এতধরনের পাপ সমাজে ছড়িয়ে পড়ার কারণ হিসেবে আপনি বলছেন আলেমদের অনৈক্যের কথা, দোষ দিচ্ছেন সমাজের উপর, সমাজের মানুষের উপর, আলেমদের উপর, এমনকি নিজের বাবা-মার কাজের উপরও। কিন্তু আপনি ভুল। আপনার এই বিশ্বাস একটি মারাত্নক ধরনের ভুল। সমাজের এই অবস্থার কারণ আপনি। জি, আপনি। আপনি বাংলাদেশে বসবাস করেন, কিন্তু সিরিয়ায় ধর্ষিত হওয়া বোনটির ইজ্জত নষ্ট হওয়ার কারণ আপনি । এখন আপনি হয়ত ভাবছেন আপনি চাইলেও কিছু করতে পারবেন না আপনার হাতে কোন ক্ষমতা নেই। ভুল! আপনার এই ভাবনাটিও ভুল। আপনার হাতে হয়ত রাষ্ট্রক্ষমতা নেই, হয়ত আপনার কাছে কোন সামরিক শক্তি নেই যার মাধ্যমে আপনি তাদের বাচাবেন। কিন্তু আপনার কাছেই আছে আরেকটি ক্ষমতা যার অপব্যবহার আপনি প্রতিনিয়ত করে যাচ্ছেন। আপনার এই অপব্যবহারের প্রভাব শুধু সিরিয়া নয়, শুধু ফিলিস্তিন নয়, শুধু উইঘুরদের উপর নয়, সমগ্র মানবজাতির উপর পড়ছে।

    বর্তমান সময়ের বিভিন্ন অন্যায়-অনাচার, বিভিন্ন পাপের কারণ বলতে বললে আপনি সাথে সাথেই বলে দেন নারীদের কথা। নারীদের পর্দা না করা, মাহরামের সাথে না চলা ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ের কথা আপনি মুখস্ত বলে দেন। কিন্তু না। শুধুমাত্র নারীরা নয় বরং পুরুষদের দোষ বর্তমানে সবচেয়ে বেশি। যেদিন এই উম্মাহর পুরুষেরা তাদের ‘পৌরুষ’ হারিয়েছে, সেইদিন এই উম্মাহর নারীরা তাদের ‘হায়া’ হারিয়েছে।

    দোকানে যখন আপনি কিছু ক্রয় করতে যান দোকানদার আপনাকে ২ টাকা বেশি দিলে আপনার মধ্যে ভাবনা আসে , “আরেহ! ২ টাকা এমন আরকি! ২ টাকা ফেরত দেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই!”

    দুনিয়ার জীবনে সফল হওয়ার জন্য আপনি পাগল। মনে করেন আপনি বিদেশে যাবেন। এয়ারপোর্টে প্লেনের অপেক্ষা করছেন। একটু পরেই আপনার প্লেন। এখন আপনি আপনার সহকর্মীকে বললেন, “চলো, গেটের সামনে গিয়ে দাড়াই। একটু পরেই প্লেন।” কিন্তু সে আপনাকে উত্তর দিল, “দাড়াও। দেখো কত সুন্দর এয়ারপোর্ট। আমি ভাবছি এখন একটা বিয়ে করব, তারপর এখানে একটা রুম কিনব, তারপর এখানেই সেটেল হয়ে যাব।” তখন আপনি আপনার সহকর্মীকে কি ভাববেন? নিশ্চই ভাববেন সে পাগল হয়ে গেছে। তাকে বলবেন,”আরে তুমি পাগল হয়ে গেলে নাকি? একটু পরে আমাদের প্লেন, আর তুমি এখন কি সব আজগুবি বিষয় ভাবছ!” অথচ দুনিয়া আর আখিরাতের বেলায় সেই পাগলের মতো চিন্তা করা ব্যক্তিটি আপনিই।

    আপনি দুয়া করে ভাবছেন আপনার দুয়া আল্লাহ সুবহানাতায়ালা কবুল করেন না কেন। কেন আপনার সহকর্মী যেই দুয়া করে তা সে পায় কিন্তু আপনি পান না। অথচ আপনার এই অবস্থার কারণ হাদীসে স্পষ্টভাবে বলে দেওয়া হয়েছে।

    বক্সার বিলির কথা মনে আছে? বক্সিং এ ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন ছিলেন। যার সাথে 50 cent, ফ্লইড ম্যায়ওয়েদার দের মতো মানুষ চলত। যারা একত্রে খুলেছিল The Money Team. যাদের গাড়ী-বাড়ি দেখলে আপনার খালি দেখতেই ইচ্ছে করত। সেই বিলি কেন ইসলামে ফিরে আসলেন। কেন সবকিছু ছেড়ে দিলেন?

    সমাজে কোন ধরনের মারাত্নক অপরাধ হলেই আপনার মুখে শোনা যায় একজন ওমর আসবে। একজন ওমর আসবে। আসলেই আপনার এই ধারণা কতটুকু যৌক্তিক?
    আপনার নিজের কাছেই আপনার এই ধারণা কি গ্রহণযোগ্য? এই ধারণা সত্যিকারে আপনার জন্য লজ্জার বিষয়?

    এরকমই বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে এই বইটিতে। সূচিপত্র সাজানো হয়েছে অসাধারণ ভাবে। গল্প, গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা, মোটিভেশন, নিজের যোগ্যতা উপল্পধি করার জন্য অসাধারণ কিছু কথা সবকিছুই একটি প্যাটার্ন অনুসারে সাজানো হয়েছে । বইটি পড়তে গিয়ে আপনি কখনোই বিরক্ত হবেন না। বুঝতে পারবেন আপনার আসল যোগ্যতা কতটুকু মাত্র। বুঝতে পারবেন আপনার প্রতি আপনার রবের দয়া কত বেশি। জানতে পারবেন এই উম্মাহর সত্যিকার পুরুষদের কথা।

    এককথায় বইটি পড়ার পর আপনার নিজেকে দেখে নিজের লজ্জা লাগবে। বইটির প্রতিটি অনুচ্ছেদ আপনার জন্য একটি নতুন বার্তা নিয়ে অপেক্ষায় আছে। পড়তে গিয়ে আপনি হারিয়ে যাবেন অন্য দুনিয়ায়। অনুভব করবেন আপনার প্রতি আপনার রবের দয়া। ইচ্ছে করবে পাল্টে যেতে।

    সবশেষে কিছু কথা বলি। আপনি একদিন মারা যাবেন। দিনশেষে শুধু পৃথিবীতে থেকে যাবে আপনার কিছু কর্ম, হঠাৎ হঠাৎ প্রিয়জনদের মজলিসে দু’লাইন আবেগঘন স্মৃতিচারণ, কিংবা কবরের পাশে একটা ধুলোমাখা এপিটাফ। তাই আপনাকে পাল্টাতে হবেই। সত্যিকার অর্থেই ফিরতে হবে রবের পথে।

    5 out of 5 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  5. 5 out of 5

    :

    Oshadharon ekta boi..
    1 out of 1 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No