মেন্যু
agami diner sovvota islam

আগামী দিনের সভ্যতা ইসলাম

প্রকাশনী : মক্তব প্রকাশন
কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : 1st Published, 2022
ভাষা : বাংলা
বিশ্বমানবতার সকল সংকট থেকে মুক্তির একমাত্র পথ হল ইসলামী সভ্যতার বিনির্মাণ। মুসলমানগণ রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক, বুদ্ধিবৃত্তিক এবং সাংস্কৃতিক ভাবে পিছিয়ে পড়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে গোটা মানবতা, গোটা বিশ্বব্যবস্থা।মুক্তিকামী মানুষের প্রিয় ব্যক্তিত্ব,... আরো পড়ুন
পরিমাণ

255  350 (27% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

- ৫৯৯ টাকা অর্ডারে ১টি ফ্রি আমল চেকলিষ্ট।

- ৮৯৯ টাকা অর্ডারে ১টি ফ্রি বই।

1 রিভিউ এবং রেটিং - আগামী দিনের সভ্যতা ইসলাম

5.0
Based on 1 review
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    Amit Hasan:

    পৃথিবী আজ সমসাময়িক সভ্যতার বাহ্যিক চাকচিক্যময় আবহে আবৃত। এত আড়ম্বরপূর্ণতার মাঝে থেকে কিসের যেন শূন্যতা! হাহাকার! কারণ আজকের সমাজে বস্তুবাদ ও স্বার্থপরতা বিরাজমান। এ সমাজ নৈতিক অধঃপতন পরিবারের ভাঙন মনস্তাত্ত্বিক উদ্বিগ্নতা এবং মানসিক অস্থিরতায় আচ্ছন্ন। এ থেকে মুক্তির উপায় কি? এর উত্তর ঐশী শক্তির ধারক ইসলাম। লেখক ড. ইউসুফ আল কারযাভী রচিত বক্ষমাণ গ্রন্থ “আগামী দিনের ইসলাম” বইতে উঠে এসেছে সমসাময়িক সভ্যতা থেকে ইসলাম কতটা সমুন্নত? পাশ্চাত্য সভ্যতার অসারতা, সেই অসারতা দূরীভূত করে কিভাবে আগামী দিনের সভ্যতা হিসেবে ইসলাম আবির্ভূত হবে!

    বইটি চারটি অধ্যায়ে সুবিন্যস্ত। অধ্যায়গুলো আবার সুনির্দিষ্ট পরিচ্ছদে বিভক্ত।

    প্রথম অধ্যায়ে “সমসাময়িক সভ্যতার চেতনা এবং এর মতাদর্শসমূহ” শিরোনামে সমসাময়িক সভ্যতা তথা পাশ্চাত্য সভ্যতার বাহ্যিক এবং আদর্শিক চেতনার যেমন পরিচয় মিলবে তেমনি দেখা মিলবে এই সভ্যতার আদর্শিক মূল পাঁচটি ভিত্তির এবং ইসলামের আলোকে সেগুলোর বিশ্লেষণ ও মূল্যায়নের।

    দ্বিতীয় অধ্যায়ে “সমসাময়িক সভ্যতার ব্যাধিসমূহ এবং মানবজীবনে এর প্রভাব” শিরোনামে উঠে এসেছে সমকালীন সভ্যতার ত্রুটিগুলোর প্রমাণ এবং নতুন নতুন প্রথাগুলোর অকার্যকারিতার প্রত্যক্ষ দর্শন, জরিপ ও পরিসংখ্যানগত বিশ্লেষণ এবং মানব জীবনে এগুলোর ক্ষতিকর প্রভাবসমূহ।

    তৃতীয় অধ্যায়ে “পশ্চিমা জ্ঞানীগণ কতৃক প্রদত্ত সতর্কবার্তা” শিরোনামে উঠে এসেছে কিভাবে পাশ্চাত্য সভ্যতার ধারকগণ এই সভ্যতার অসারতা অনুধাবন করছেন? কিভাবে তারা পাশ্চাত্যের গ্রহণকৃত মতাদর্শগুলো এড়িয়ে যাচ্ছেন? তারই উত্তর তাদেরই নিজস্ব বয়ানে।

    চতুর্থ অধ্যায়ে “পৃথিবী যে সভ্যতার আকাঙ্ক্ষী শিরোনামে” লেখক দেখিয়েছেন যে, ইসলামই আগামী দিনের আকাঙ্ক্ষিত সেই সভ্যতার মূর্ত প্রতীক! তিনি এর কারণ যেমন দর্শিয়েছেন ঠিক তেমনি পাশ্চাত্য সভত্যার বিকল্প মতাদর্শ সমূহ যেমন-মার্কসবাদ, কমিউনিজম, পুঁজিবাদ জাতীয়তাবাদ ইত্যাদির পারস্পরিক সাংঘর্ষিকতা ফুটিয়ে তোলার পাশাপাশি এগুলোর অন্তঃসারশূন্যতা তুলে ধরেছেন। দেখিয়েছেন পাশ্চাত্য সভ্যতার যে দিকগুলো অক্ষমতার পরিচয় দিয়েছ তার একমাত্র উত্তরণকারী ইসলাম। ইসলামই একটি আদর্শ ইনসাফপূর্ণ সভ্যতা বিনির্মাণের দাবিদার। কি কারণে ইসলাম ধর্ম সভ্যতার ভবিষ্যতে দায়িত্ব পাওয়ার যোগ্য? তার বিশ্লেষণ।

    পুরো বইটিতে লেখক পাশ্চাত্য সভ্যতার নেতিবাচক দিকগুলোকে নির্দেশ করার চেষ্টা যেমন করেছেন তেমনি ইতিবাচক দিকগুলোর স্বকীয়তা স্পষ্ট করেছেন। আবার আমাদের মুসলিম সমাজ বস্তবাদী দিক গুলোতে পিছিয়ে থাকলেও জীবনের অন্যান্য দিকগুলোতে এগিয়ে থাকার সুস্পষ্টতা নিরূপণ করেছেন। আর সেগুলোর উজ্জীবনী শক্তিই ভবিষ্যতে ইসলামের পূর্ণজাগরণে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

    বইটির চমৎকার বিষয়বস্তুর আলোকে অনুবাদের মান যথেষ্ট সাবলীল মনে হয়েছে। তেমন দুরূহ শব্দের প্রয়োগ করা হয়নি। বরং সুখপাঠ্য হয়েছে। বিষয়বস্তুর সাথে মিলিয়ে প্রচ্ছদ ও বাইন্ডিং যথেষ্ট ভালো হয়েছে। মানুষ ভুলের ঊর্ধ্বে নয়। বইটিতে অনেক জায়গায় মুদ্রণজনিত বানান ভুল চোখে পড়েছে। আশা করি পরবর্তীতে সেগুলো সংশোধন করা হবে ইনশাআল্লাহ।

    পরিশেষে..
    সমসাময়িক সভ্যতা তথা পাশ্চাত্য সভ্যতা কখনোই কোনোদিনই ইসলামের সমুন্নত মর্যাদাকে ছোট করতে পারবে না। ইসলাম সব সময়ই তাঁর সমুন্নত অবস্থানে অধিষ্ঠিত থাকবে। তাই একজন মুসলিমের ও উচিত সর্বদা সমুন্নত ইসলামের সাথে তাল মিলিয়ে চলা! কোনো বস্তুবাদী আদর্শের সাথে নয়!

    Was this review helpful to you?
    Yes
    No