মেন্যু
adorsho poribar gothone 40ti upodesh

আদর্শ পরিবার গঠনে ৪০টি উপদেশ

অনুবাদ : হাসান মাসরুর সম্পাদনা : মুফতি তারেকুজ্জামান   কীভাবে স্ত্রীকে নেককার হিসাবে গড়ে তুলবে? - ১. তাকে কিয়ামুল লাইল তথা তাহাজ্জুদের জন্য উৎসাহিত করবে। ২. কুরআন তিলাওয়াতের ব্যাপারে যত্ন নেওয়ার তাগিদ দেবে। ৩. প্রতিটি কাজের মাসনূন... আরো পড়ুন
পরিমাণ

129  175 (26% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

6 রিভিউ এবং রেটিং - আদর্শ পরিবার গঠনে ৪০টি উপদেশ

4.5
Based on 6 reviews
Showing 1 of 6 reviews (4 star). See all 6 reviews
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 4 out of 5

    kredoy239:

    একজন নেককার স্বামী ও নেককার স্ত্রী মিলেই গঠিত হয় একটি নেককার সুখী পরিবার। কারণ ভালো ও উত্তম মাটি থেকেই উৎপন্ন হয় ভালো ও উন্নত মানের ফসল। আর খারাপ ও নিম্নমানের মাটি থেকে উৎপন্ন হয় নিম্ন ও অনুন্নত ফসল।

    কত মানুষের অভিযোগ- ঘরে গিয়ে একটু শান্তিতে ঘুমোতে পারি না। সবার মাঝে কেমন জানি অস্থিরতা। চাওয়া- পাওয়ার অভিযোগ শুনতে শুনতেই হাঁপিয়ে ওঠার অবস্থা! কিন্তু কেন এমন হয়? আসলে আমরা অনেকটা আন্তকেন্দ্রিক চিন্তায় ডুবে থাকি। পরিবার কীভাবে সুন্দর ও সুশৃঙ্খল হবে, এ বিষয়গুলোর প্রতি তেমন লক্ষ্যই করা হয় না। এর ফলে আমাদের পারিবারিক জীবনে অনেক অনাকাঙ্ক্ষিত ভোগান্তির সম্মুখীন হতে হয়।

    আদর্শ পরিবার গঠনের জন্য যে সুষ্ঠু পরিকল্পনা ও দিক নির্দেশনা প্রয়োজন তা নিয়ে প্রিয় শাইখ সালেহ আল মুনাজ্জিদ ” আদর্শ পরিবার গঠনে ৪০টি উপদেশ ” বইটিতে ৪০টি উপদেশ তুলে ধরেছেন। বইটি শাইখ সালেহ আল মুনাজ্জিদ এর আরবি গ্রন্থ “আরবাউনা নাসিহাতান লি ইসলাহিল বুয়ূত ” এর বাংলা অনুবাদ।

    ● বইটিতে যা রয়েছে :
    শাইখ চল্লিশটি উপদেশ কে ভিন্ন ভিন্ন শিরোনাম দিয়ে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কয়েকটি কোরআন ও হাদিসের রেফারেন্স সহ উল্লেখ করেছেন, প্রয়োজন মোতাবেক ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ করেছেন। আবার একই ধারার উপদেশগুলোকে একটি অধ্যায়ের আওতায় সাজিয়েছেন।

    লেখক ৪০টি উপদেশকে ৬টি অধ্যায়ে বিভক্ত করে বইটিতে আলোচনা করেছেন। অধ্যায়গুলো হলো:
    ❒ পরিবার গঠন
    ❒ ঘরে শরয়ী ইলম চর্চা করা
    ❒ ঘরোয়া বৈঠক
    ❒ পরিবারের চারিত্রিক বিষয়গুলো
    ❒ ঘরের কিছু নিকৃষ্ট ও পরিত্যাজ্য বিষয়
    ❒ বিভিন্ন নসীহত
    ____________________________________
    ✴ পরিবার গঠন :
    প্রথম অধ্যায়ে লেখক সুখী পরিবার গঠনের জন্য ৭টি উপদেশ উল্লেখ করেছেন। সেগুলো হলো:

    ❒ ভালো ও নেককার স্ত্রী নির্বাচন
    ❒ স্ত্রীকে সংশোধনের চেষ্টা করা
    ❒ ঘরে ঈমানি পরিবেশ তৈরি করা
    ❒ তোমরা তোমাদের ঘরগুলোকে কিবলামুখী ও ইবাদাতের স্থান বানাও
    ❒ ঘরের লোকদেরকে ঈমানি শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলা
    ❒ ঘর ও পরিবার সংশ্লিষ্ট সকল সুন্নত ও মাসনূন দুয়া পড়া এবং তা যথাযথ গুরুত্বসহকারে আদায় করা
    ❒ ঘর থেকে শয়তান তাড়ানোর জন্য নিয়মিত সূরা বাকারা তিলাওয়াত করা

    একটি সুখী পরিবার গঠনের পূর্বশর্ত হচ্ছে নেককার একটি মেয়েকে ঘরে আনা। একজন দ্বীনদার স্ত্রীর (সম্পদ,বংশমর্যাদা, সৌন্দর্য) এই ৩টি গুন না থাকলেও, তার দ্বীনদারিতায় ঘর হয়ে ওঠতে পারে জান্নাতের বাগান।
    যদি স্ত্রী নেককার না হন, তাহলে তাকে সংশোধনের চেষ্টা করতে হবে।
    এছাড়াও এই অধ্যায়ে স্ত্রীকে সংশোধনের, ঘরে ঈমানি পরিবেশ তৈরি, ঘরকে ইবাদাতের স্থান বানানো এবং ঘরের লোকদেরকে ঈমানি শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার জন্য লেখক বেশ কয়েকটি পদ্ধতির কথা উল্লেখ করেছেন।
    ___________________________________

    ✴ ঘরে শরয়ী ইলম চর্চা করা:

    ❒ ঘরের লোকদের ইলম শিক্ষা দেয়া
    ❒ বাড়িতে ইসলামি বইয়ের একটা লাইব্রেরি তৈরি করা
    ❒ ঘরে অডিও লাইব্রেরি তৈরি করা
    ❒ মাঝে মাঝে নেককার আলেম ও তালিবুল ইলমদের দাওয়াত করে বাড়িতে নিয়ে আসা
    ❒ ঘর ও পরিবারের শরয়ী বিধি বিধানগুলো শিক্ষা করা

    বাড়িতে ইসলামি বইয়ের একটা লাইব্রেরি তৈরি করার ক্ষেত্রে লেখক বিভিন্ন ক্যাটাগরির কিছু বইয়ের পরামর্শ দিয়েছেন। তাফসীর, হাদিস, আকাইদ, ফিকহ, আখলাক, তাযকিয়াতুন নাফস, ইতিহাস ইত্যাদি বই পড়ার প্রতি উদ্বুদ্ধ করেছেন।
    কুরআন তিলাওয়াত, ইসলামি সঙ্গীত, বিভিন্ন ইসলামিক স্কলারদের লেকচার, মাসয়ালা মাসায়েল সংক্রান্ত আলোচনা ইত্যাদি বিষয়ভিত্তিক ক্যাসেট সংগ্রহ করা অডিও লাইব্রেরি তৈরি করার কথা বলা হয়েছে। কোন ধরনের স্কলারের লেকচার আমরা শুনতে পারি, তার বিবরণও দেয়া হয়েছে।
    ——————————————————————–
    ✴ ঘরোয়া বৈঠক:
    যেকোনো কাজেই ঘরোয়া পরামর্শ অত্যন্ত জরুরি। এতে করে পরিবারের সবাই নিজেদেরকে গুরুত্বপূর্ণ ভাবতে শুরু করবে এবং পরিবারের কল্যাণের জন্যে কাজ করবে।

    ❒ পরিবারের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা ও পারস্পরিক মতবিনিময়ের সুযোগ করে দেয়া
    ❒ দাম্পত্যকলহের বিষয়গুলো সন্তানদের সামনে প্রকাশ না করা
    ❒ বদদ্বীন লোকদের ঘরে প্রবেশ করতে না দেয়া
    ❒ পরিবারের সদস্যদের অবস্থা ও প্রতিটি বিষয় ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করা
    ❒ ঘরে শিশুদের যত্ন নেওয়া
    ❒ ঘুম, খাওয়া-দাওয়া ও অন্যান্য কাজের জন্য সময় নির্দিষ্ট করা
    ❒ মহিলাদের বাড়ির বাইরের কাজ সুবিন্যস্তভাবে করা
    ❒ ঘরের গোপন বিষয়গুলো বাইরে প্রকাশ না করা
    _____________________________________

    ✴ পরিবারের চারিত্রিক বিষয়গুলো:
    এই অধ্যায়ে পরিবারের সদস্যদের চারিত্রিক গুণাবলি সুন্দর করতে লেখক কিছু উপদেশ দিয়েছেন।

    ❒ ঘরে কোমলতার চরিত্র ছড়িয়ে দেওয়া
    ❒ ঘরের কাজে পরস্পরকে সাহায্য-সহযোগিতা করা
    ❒পরিবারের লোকদের সাথে মজা ও রসিকতা করা
    ❒ ঘর ও পরিবারের সদস্যদের খারাপ ও নোংরা স্বভাবগুলো সংশোধনের চেষ্টা করা
    ❒ ঘরের এমন এক স্থানে বেত ঝুলিয়ে রাখা, যেখান থেকে বাড়ির লোকেরা তা দেখতে পায়
    ____________________________________

    ✴ ঘরের কিছু নিকৃষ্ট ও পরিত্যাজ্য বিষয় :
    এখানে লেখক ১১টি উপদেশ বর্ণনা করেছেন।

    ❒ স্বামীর অনুপস্থিতিতে গাইরে মাহরাম প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা।
    ❒ পারিবারিক সাক্ষাতের ক্ষেত্রে নারী পুরুষের আলাদা ব্যবস্থা রাখা।
    ❒ কাজের লোক ও ড্রাইভার থেকে সাবধান হওয়া।
    ❒ মেয়েলি স্বভাবের পুরুষ প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা।
    ❒ টেলিভিশন অপসারণ করা।
    ❒ মোবাইলের ব্যাপারে সতর্ক হওয়া।
    ❒ কাফের বা কুফরি ধর্মের যেকোনো প্রতীক অপসারণ করা।
    ❒ প্রাণীর ছবি ঘর থেকে সরানো।
    ❒ ধূমপান নিষিদ্ধ করা।
    ❒ কুকুর আনায়ন এবং কুকুরপ্রীতি বন্ধ করা।
    ❒ বাড়ির ভেতর ও বাহিরে কারুকাজ করা থেকে বিরত থাকা।
    ________________________________________
    ✴ বিভিন্ন নসীহত:
    বইয়ের শেষ অধ্যায়ে লেখক ৪টি উপদেশ দিয়েছেন।

    ❒ বাড়ি বানানোর জন্য সুন্দর জায়গা নির্বাচন করা এবং তার জন্য নকশা তৈরি করা।
    ❒ বাড়ি নির্বাচনের পূর্বে প্রতিবেশী নির্বাচন করা।
    ❒ প্রয়োজনীয় সংস্কারমূলক কাজ এবং প্রয়োজনীয় ও আরামের জিনিসগুলো পর্যাপ্ত পরিমাণে রাখা।
    ❒ ঘরের প্রতিটি সদস্যের শারীরিক সুস্থতার প্রতি লক্ষ্য রাখা।

    » বইটি কাদের জন্য?
    যারা পরিবারকে আল্লাহর রঙে রাঙাতে চান এবং মুসলিম সমাজে আদর্শ পরিবারের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চান।

    » বইটি পড়ে যা জানতে পারবেন:
    ✓ঘরে অবস্থানের ব্যাপারে শরীয়তের নির্দেশনা
    ✓শিশুদের শুরুর জীবন থেকেই কীভাবে দ্বীনমুখী করে দেয়া যায়
    ✓পরিবারের প্রতি যত্নশীল ও পরিবারকে কিভাবে আগলে রাখতে হয়
    ✓ঘরে ঈমানি পরিবেশ তৈরী করার পদ্ধতি
    ✓ঘর ও পরিবার সংশ্লিষ্ট সুন্নাত

    ≫ বইয়ের যা ভালো লেগেছেঃ
    -উপদেশগুলোকে সুন্দরভাবে অধ্যায়ের আওতায় বিন্যস্ত করা হয়েছে।
    -কুরআনের গুরুত্বপূর্ণ আয়াত ও হাদিসগুলো রঙিন বর্ণের, যা পাঠককে আকৃষ্ট করবে।
    – প্রায় প্রতিটি উপদেশের সাথেই কুরআনের আয়াত ও হাদিস
    উল্লেখ করা হয়েছে।
    – উপদেশগুলো কিভাবে প্রাক্টিক্যালি মানা যায় তাও বলে দেওয়া হয়েছে।

    ★পাঠ-প্রতিক্রিয়াঃ
    বইটি পড়ে প্রথমেই মনে হয়েছে- “আরেহ! আমি তো এর অনেক কিছুই জানতাম”। তবে একটিও যথাযথভাবে মানতাম না। বইটি পড়ে পরিবারের প্রতি নিজের আচরণকে গুছিয়ে নিয়েছি। পরিবারের সদস্যদের দ্বীনের প্রতি উৎসাহিত করতে পারছি, আলহামদুলিল্লাহ। বইটিকে সুখী পরিবার গঠনের একটু প্রেক্টিকাল গাইডবুক হিসেবে নেওয়া যেতে পারে । বইয়ের উপদেশগুলো মেনে চললে পরিবারের চিত্র নতুনভাবে ফুটে উঠবে ইন শা আল্লাহ।

    2 out of 2 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top