মেন্যু
adhunik pracchobader kobole muslim nari somaj

আধুনিক প্রাচ্যবাদের কবলে মুসলিম নারীসমাজ

পৃষ্ঠা : 160, কভার : হার্ড কভার, সংস্করণ : 1st Published, 2022
ঐতিহাসিকভাবেই প্রমাণিত যে, সাম্রাজ্যবাদী শক্তিগুলো নারীদেরকে তাদের সাম্রাজ্য বিস্তারের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছে। মুসলিম-সমাজকে পাশ্চাত্যকরণের ইতিহাস পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, ইউরোপীয়ানরা উপনিবেশ আমলে নারী সম্পর্কে পশ্চিমা ধারণা মুসলিমদের উপর চাপিয়ে... আরো পড়ুন
পরিমাণ

161  230 (30% ছাড়ে)

পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন
পছন্দের তালিকায় যুক্ত করুন

- ৫৯৯ টাকা অর্ডারে ১টি ফ্রি আমল চেকলিষ্ট।

- ৮৯৯ টাকা অর্ডারে ১টি ফ্রি বই।

3 রিভিউ এবং রেটিং - আধুনিক প্রাচ্যবাদের কবলে মুসলিম নারীসমাজ

5.0
Based on 3 reviews
5 star
100%
4 star
0%
3 star
0%
2 star
0%
1 star
0%
 আপনার রিভিউটি লিখুন

Your email address will not be published.

  1. 5 out of 5

    Rasel Hossain:

    বইটি অনেক সুন্দর। আমাদের নারী-সমাজকে ধ্বংস করার জন্য পশ্চিমা সভ্যতা যে সূক্ষ্ম ফন্দিগুলো এঁটেছে, তার সবগুলোর আলোচনাই উঠে এসেছে বইটিতে। স্বতন্ত্রভাবে প্রতিটি ফিতনার আলোচনা করা হয়েছে এবং এসব ফিতনা থেকে বেঁচে থাকা আমাদের জন্য যে কী পরিমাণ জরুরি, সেটাও বলে দেওয়া হয়েছে।

    সচেতন প্রতিটি নারী-পুরুষেরই উচিত এই বই মনোযোগ দিয়ে পড়া এবং পশ্চিমাদের পাতা ফাঁদ থেকে বেঁচে থেকে ইসলামের চির শীতল ছায়ায় আশ্রয় নেওয়া।

    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  2. 5 out of 5

    Ibrahim Khalil:

    এই বই পড়লে ইসলামি সভ্যতা ধ্বংসে পশ্চিমা ব্রেনওয়াশের মুখোশ উন্মোচন হবেই।
    আশা করি সবাই বইটি পড়বেন।
    বিশেষ করে নারীসমাজ।
    5 out of 5 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
  3. 5 out of 5

    Sazzad Hossain:

    পৃথিবীকে যদি বলা হয় একটি বাগান, তবে নারী সেই বাগানের ফুল। যুগে যুগে এই ফুলের হাতেই গড়ে উঠেছে সমাজ, ব্যক্তিত্ব ও সফল-হওয়া-মানুষেরা। সারাদিনের ক্লান্তি ও রুক্ষতা নিমিষেই দূর হয়ে যায় এই ফুলের পরশে। সুকুন ও প্রশান্তির সকল অধ্যায় যেন আল্লাহ নারীর মাঝেই লুকিয়ে রেখেছেন।

    এই কথাটাই একটু ভিন্নভাবে বলি—সমাজের পুরুষদের নিয়ন্ত্রণ একপ্রকার নারীদের হাতেই থাকে। একজন রুক্ষ পুরুষও স্ত্রীর কাছে এসে প্রশান্তি খোঁজে। যেই মানুষ তাকে প্রশান্তি এনে দেয়, তার ছোট ও সামান্য বিষয়ও পুরুষ গুরুত্ব দিয়ে গ্রহণ করে। নিজেকে কেমন-যেন সঁপে দেয় তার কাছে! এই দিকটা ভেবেই শয়তানেরা দেখেছে, ষড়যন্ত্রের বিষ সমাজের প্রতিটি স্তরে ও স্থানে বিস্তার করতে হলে, তা কেবল নারীর মাধ্যমেই সম্ভব! তাই তাদের ষড়যন্ত্রের বড় একটা অধ্যায় রচিত হয়েছে মুসলিম নারীসমাজকে কেন্দ্র করে।

    যুগে যুগে জিন ও মানুষ-শয়তানেরা মুসলমানদের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করেছে নারীর মাধ্যমে। ইতিহাসের পাতায় এর হাজার হাজার প্রমাণ কালো মেঘের মতো ছেয়ে আছে। আমরা এখন বসবাস করছি একুশ শতকের চূড়ান্ত উন্নয়নের যুগে। এখন বদলেছে সমাজের কাঠামো, বদলেছে পৃথিবীর রূপ। কাফেরদের লড়াইয়ে এসেছে নতুন সব মাত্রা। তবে এই পদ্ধতি বদলায়নি। কার্যকর এই পদ্ধতি ছেড়ে দেয়নি ওরা।

    র‍্যান্ড কর্পোরেশন। নামটা আর অপরিচিত নেই আমাদের মাঝে। নব্য প্রাচ্যবাদী এজেন্ডার নির্লজ্জ পতাকা বহন করছে এই র‍্যান্ড। ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে আদর্শিক বিজয় অর্জনই এদের লক্ষ্য। মুসলিমদের বিরুদ্ধে বিজয় অর্জন করতে মুসলিম নারীসমাজ নিয়ে এরা ঘৃণ্য চক্রান্ত করছে। এদের পদ্ধতি পুরোনো সকল পদ্ধতিকে ছাড়িয়ে গেছে। এরা নারীদের ঘায়েল করার জন্য গ্রহণ করেছে মুখরোচক ভয়ানক সব পরিভাষা। আর তা ছড়িয়ে দিয়েছে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে। বিষের বাতাস হয়ে তা অনুপ্রবেশ করছে মুসলিম নারীসমাজে। কিন্তু কীভাবে?

    এর উত্তর খুঁজে আমাদের সামনে তুলে এনেছেন লেখক হাসসান বিন সাবিত। সেই সাথে এর থেকে উত্তরণের উপায়ও উল্লেখ করেছেন তিনি। নারীদের ঘিরে ফেমিনিস্টদের আস্ফালন, র‍্যান্ডের ষড়যন্ত্র আর পাশ্চাত্যের কাপুরুষোচিত অবস্থানের মুকাবিলার জন্য আমাদের কী করা উচিত, তা বলে দিয়েছেন তিনি। পশ্চিমের সমাজের প্রভাবে, কিংবা বলুন, তাদের চক্রান্তে ঘায়েল হয়ে কতিপয় মডারেট বারবার ইসলামকে পশ্চিমাকরণ করতে চেয়েছে। তাদের বুলিগুলো কী, এবং সেগুলো কেন ভুল, এর জন্য আমাদের করণীয়-ই বা কী? সবকিছুর উত্তর মিলবে এই উপহারে— ‘আধুনিক প্রাচ্যবাদের কবলে মুসলিম নারীসমাজ’।

    3 out of 3 people found this helpful. Was this review helpful to you?
    Yes
    No
Top